বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ১২টি দোকান পুড়ে ছাই

৪০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি

কুড়িগ্রাম জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৮ অক্টোবর, ২০২১, ১:৫৬ পিএম

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে বৈদ্যুতিক শট সার্কিট থেকে সৃষ্ট অগ্নিকান্ডে ১২ টি দোকান, আসবাবপত্র, ইলেকট্রনিক জিনিসপত্রসহ অন্যান্য মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে ধারণা করা হচ্ছে ৪০ লক্ষাধিক টাকার মালামালের ক্ষতি হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার ( ২৮ অক্টোবর) দিবাগত রাত একটার দিকে উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের কুড়ার পাড় ইট ভাটা সংলগ্ন বাজারে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, উপজেলার পাইকের ছড়া ইউনিয়নের কুড়ার পাড় এলাকার ইটভাটা বাজারে রাত আনুমানিক একটার দিকে একটি চায়ের দোকান থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়। মূহুর্তের মধ‍্যেই সেই আগুনের লেলিহান শিখা পার্শ্ববর্তী দোকান ঘর গুলোয় ছড়িয়ে পড়ে। পরে এলাকাবাসী আগুন দেখতে পেয়ে নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্হলে পৌঁছনোর আগেই সেখানে থাকা ১২ টি দোকান ঘর ও মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে একটি দোকানের একাংশ রক্ষা করতে সক্ষম হন এবং আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন। এতে ৪০ লক্ষাধিক টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা করছেন তারা।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকানী আকতার আলী ও আলমগীর হোসেন বলেন, আমাদের দোকানের ভিতরে থাকা সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে আমাদের প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
ক্ষতিগ্রস্ত চা'য়ের দোকানদার আব্দুস সামাদ বলেন, ভূরুঙ্গামারীতে ফায়ার স্টেশন না থাকার কারনে বিভিন্ন সময়ে অগ্নিকান্ডে ব‍্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। আমরা দ্রুত ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন মাস্টার ইমন মিয়া বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছনোর আগেই বাজারটির সবগুলো দোকান পুড়ে গেছে। আমরা পৌঁছে দেড় ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন সম্পূর্ণভাবে নেভাতে সক্ষম হই। তবে অগ্নিকাণ্ডের শিকার একটি দোকানের একাংশ রক্ষা করতে পেরেছি। আমরা প্রাথমিক ভাবে ধারনা করছি বৈদ‍্যূতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের উৎপত্তি হয়েছে।

এব্যাপারে ভুরুঙ্গামারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দীপক কুমার দেব শর্মা বলেন, আমি আজ সকালে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত দোকান ঘর গুলি পরিদর্শন করেছি। দোকানগুলিতে থাকা দামী আসবাব পত্র, ইলেকট্রনিক জিনিসপত্র সহ মালামাল পুড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আপাতত ক্ষতিগ্রস্তদের খাদ্য সহায়তার আশ্বাস দিয়েছি। তারা নির্ধারিত ফরমে আবেদন করলে পরবর্তীতে বরাদ্দ আসলে সহায়তা দেয়া হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন