ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ০৬ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

অভ্যন্তরীণ

বিদ্যালয়ের মাঠ দিয়ে যান চলাচলে বাড়ছে দুর্ভোগ

প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

কাপ্তাই (রাঙ্গামাটি) উপজেলা সংবাদদাতা : ঐতিহ্যবাহী কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয়টি দীর্ঘ ৩৫বছর যাবত এলাকায় সুনামের সহিত জ্ঞানের আলো দিয়ে আসছে। কিন্তু এ বিদ্যালয়টির মাধ্যদিয়ে সর্ব সাধারণের যাতায়াত, গাড়ি চলাচল করার দরুন শিক্ষার আলো হতে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা শিক্ষার অধিকার ও পরিবেশ হতে বঞ্চিত হয়ে পড়েছে। অনেক মেধাবী শিক্ষার্থীর অভিভাবক খোলামেলা বিদ্যালয়ের মধ্য দিয়ে সাধারণ লোকালয় চলাচল করার দরুন শিক্ষার্থীদের অন্যত্র নিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, বাংলাদেশের মধ্যে এ ধরনের কোন বিদ্যালয় নেই যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠের ভিতর দিয়ে রাত-দিন যাতায়াত করে। ফাহিম ফয়সাল সাকিব, নাসরিন সুলতানা মুনমুন, এনামুল হক টিপু, রনি দত্ত মাফিয়া ইসলাম এক যোগে অভিযোগ করেন স্কুলের মধ্য দিয়ে গাড়িসহ বিভিন্ন যান চলাচলের ফলে আমাদের পড়ালেখা হরহামেশা বিঘœ হচ্ছে। আমরা শিক্ষার পরিবেশ ফিরে পাওয়ার জন্য এ যাতায়াত বন্ধসহ একটি ওয়ালের ব্যবস্থা করার জন্য প্রশাসনের নিকট দাবি জানাচ্ছি। এ ব্যাপারে কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক কমিটির সদস্য কাজী সামসুল ইসলাম আজমির, কাজী মাকসুদুর রহমান বাবুল, আবদুস সুবাহান, জাহাঙ্গীর আলম, বেলাল হোসেন, আনোয়ার হোসেন বলেন, এ পরিবেশের জন্য শিক্ষার্থীদের পরিবেশ তথা লেখাপড়া নষ্ট হচ্ছে। আমরা এ নিয়ে প্রশাসনকে কয়েকবার বলেছি তথা লেখা লেখি করছি। আমরা চাই সর্ব স্কুল ভিতর দিয়ে সাধারণের যাতায়াত বন্ধ করে অন্যত্র বিকল্প সড়ক দিয়ে চলাচল করার জন্য প্রশাসন সুযোগ করে দিলে শিক্ষার্থীদের জন্য ভাল হয়। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মোজাম্মেল হোসেন বলেন দীর্ঘ বছরের আমাদের একটি মাত্র দাবি স্কুলের ভিতর দিয়ে সর্বসাধারণ যাতায়াত করায় আমাদের শিক্ষার্থীদের পড়া লেখা নষ্ঠ হচেছ। ভাল শিক্ষার্থীদের অভিভাবক মহল এ পরিবেশের জন্য অন্যত্র নিয়ে যাচ্ছে। প্রশাসনের সহযোগিতা পেলে আমরা আবার স্কুলের পরিবেশ এবং ঐতিহ্য ফিরে পাব। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বিদ্যালয় কমিটির সভাপতি দিলদার হোসেন বলেন, একটি মাত্র বাউন্ডারি জন্য শিক্ষার্থীদের লেখা পড়া নষ্ট হচ্ছে। আমরা অচিরেই এ ব্যবস্থা করার কথা উল্লেক করেন। কাপ্তাই ইউপি চেয়ারম্যান প্রকৌ. আবদুল লতিফ বলেন, শিক্ষার জন্য এবং পরিবেশ ফিরে পাওয়ার জন্য অচিরেই এ সড়কটি বন্ধ করে দিয়ে আমরা বিকল্প সড়কের ব্যবস্থা করার আশ্বস দেন। বিদ্যালয়ের মধ্যে দিয়ে সাধারণ লোকদের সর্বদা যাতায়াত সবচেয়ে দুঃখের বিষয় বলে তিনি মন্তব্য করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন