বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

ভারত ও চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মাথা ঘামাবেন না

প্রকাশের সময় : ২৭ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : আসাম ও অরুণাচলের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে অরুণাচল সফর করেন ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড বর্মা। ভারতের অরুণাচল রাজ্যে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের এ সফরে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে চীন। অরুণাচল সফর শেষে গত ২১ অক্টোবর টুইটারে ছবি প্রকাশ করেন ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড বর্মা। গত সোমবার চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এর কঠোর সমালোচনা করেন চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লু কাং। ব্রিফিংয়ে লু কাং বলেন, ‘দুই দেশ আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করছে। সেখানে তৃতীয় পক্ষের উপস্থিতিতে পুরো প্রচেষ্টা ব্যর্থ হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রকে অন্যের বিষয়ে মাথা ঘামানো বন্ধ করতে হবে, অন্যথায় সীমান্ত সমস্যা আরও জটিল হবে। চীনা মুখপাত্র বলেন, অনেক কষ্ট করে নিয়ন্ত্রণ রেখায় শান্তি ফেরানো সম্ভব হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপে তা বিঘিœত হতে পারে। আমরা যুক্তরাষ্ট্রকে অনুরোধ করছি, ভারত এবং চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মাথা ঘামানো বন্ধ করুন। নইলে আঞ্চলিক শান্তি এবং স্থিতিশীলতা নষ্ট হতে পারে। এজন্য দুই দেশের মানুষকেই ফল ভোগ করতে হবে। ভারত অবশ্য চীনের আপত্তি আমলে না নিয়ে বলেছে, মার্কিন দূতের সফরে অস্বাভাবিকতার কিছু নেই। অরুণাচল প্রদেশে সফরের পূর্ণ অধিকার রয়েছে তার। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ জানিয়েছেন, এর মধ্যে অস্বাভাবিকত্বের কিছু নেই। অরুণাচল প্রদেশ ভারতের একটি অংশ। সেখানে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সফরের অধিকার আছে। অরুণাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর আমন্ত্রণে সম্প্রতি তাওয়াং সফরে যান ভারতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড বর্মা। চীনের দাবি, মার্কিন দূত ভারতীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে কিছু স্পর্শকাতর এলাকায় গিয়েছিলেন। ওইসব এলাকাগুলো নিয়ে ভারত এবং চীনের মধ্যে মতভেদ আছে। অরুণাচল প্রদেশের ৯০ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকাকে নিজেদের বলে দাবি করে চীন। তাদের দাবি, ওই এলাকা দক্ষিণ তিব্বতের অংশ। অন্যদিকে, ভারতের দাবি চীন বেআইনিভাবে ভারতের ১৪ হাজার ৬০০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা দখল করে রেখেছে। এসব নিয়ে মতবিরোধের মধ্যেই মার্কিন রাষ্ট্রদূতের অরুণাচল প্রদেশ সফরকে কেন্দ্র করে চীনের আপত্তি প্রকাশ্যে এল। দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন