শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

রাজকীয় খেতাব ও সামরিক পদবী হারালেন প্রিন্স অ্যান্ড্রু

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

ব্রিটিশ প্রিন্স অ্যান্ড্রুর রাজকীয় খেতাব ও সামরিক পদবী রাণী ফিরিয়ে নিচ্ছেন বলে বাকিংহাম প্যালেস জানিয়েছে। ৬১ বছর বয়সী ডিউক অফ ইয়র্ক আনুষ্ঠানিকভাবে তার ‘হিজ রয়্যাল হাইনেস’ পদবী ব্যবহার করা বন্ধ করবেন, একটি রাজকীয় সূত্র জানিয়েছে।
এই বিষয়টি সামনে আসে যখন তিনি যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মার্কিন নাগরিক পদক্ষেপের মুখোমুখি হয়েছেন – তবে এই অভিযোগ দাবি তিনি ক্রমাগত অস্বীকার করেছেন। ডিউকের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে যে, তিনি নিউইয়র্কে ভার্জিনিয়া জিওফ্রের আনা মামলার বিরুদ্ধে ‘আত্মরক্ষা চালিয়ে যাবেন’। তবে উৎসটি জোর দিয়ে বলেছিল যে, বুধবার বিচারকের দেয়া রায়ে দেওয়ানী পদক্ষেপটি এগিয়ে যেতে পারে তবে ওই রায় কোনভাবেই ‘মিসেস জিওফ্রের অভিযোগের সত্যতা মূল্যায়ন করে না।’ বাকিংহাম প্যালেস একটি বিবৃতিতে বলেছে, ‘রানির অনুমোদন এবং চুক্তির সাথে, ডিউক অফ ইয়র্কের সামরিক খেতাব এবং রাজকীয় পৃষ্ঠপোষকতা রাণীকে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে।’ ‘ইয়র্কের ডিউক কোন পাবলিক দায়িত্ব পালন না করা অব্যাহত রাখবে এবং একজন সাধারণ নাগরিক হিসাবে ব্যক্তিগতভাবে এই মামলাটি লড়বেন।’ প্রিন্স অ্যান্ড্রুর সমস্ত ভূমিকা অবিলম্বে রানীর কাছে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে এবং রাজপরিবারের অন্যান্য সদস্যদের কাছে সেই দায়িত্ব পুনরায় বিতরণ করা হবে, একটি সূত্র জানিয়েছে। সূত্রটি জানিয়েছে, রাজপরিবারের সাথে বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। হ্যারি এবং মেগানের মতো, প্রিন্স অ্যান্ড্রু তার ‘হিজ রয়্যাল হাইনেস’ উপাধি বজায় রেখেছেন তবে এটি কোনও অফিসিয়াল ক্ষমতায় ব্যবহার করবেন না। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন যে, ডিউকের সামরিক খেতাবগুলি রানীর কাছে হস্তান্তর করার বিষয়ে তাদের কোনও মন্তব্য নেই এবং এটি প্রাসাদের বিষয়।
বৃহস্পতিবার, রাজতন্ত্র বিরোধী চাপ গ্রুপ রিপাবলিক দ্বারা প্রকাশিত ও ১৫০ জনেরও বেশি রয়্যাল নেভি, আরএএফ এবং আর্মি ভেটেরান্স দ্বারা স্বাক্ষরিত একটি চিঠি প্রকাশিত হয়েছিল, যাতে রানীকে প্রিন্স অ্যান্ড্রুর আটটি ব্রিটিশ সামরিক খেতাব ছিনিয়ে নিতে বলা হয়েছিল। লেফটেন্যান্ট স্টুয়ার্ট হান্ট, যিনি ১ম রয়্যাল ট্যাঙ্ক রেজিমেন্টে কাজ করেছিলেন এবং চিঠিতে স্বাক্ষর করেছিলেন, রাজকুমারকে তার সামরিক খেতাব হারানোকে স্বাগত জানিয়েছিলেন কিন্তু পরামর্শ দিয়েছিলেন যে, বিষয়টির দ্রুত সমাধান করা উচিত ছিল।
উল্লেখ্য, এর আগে গত বুধবার আদালতের কাছে মামলা খারিজের আবেদন করেন প্রিন্স অ্যান্ড্রু। কিন্তু তার আবেদন প্রত্যাখ্যান করে আদালত বলেন, জিওফ্রের মামলা চলবে। যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে করা মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, জিওফ্রে যৌনদাসী পাচার চক্রের খপ্পরে পড়েছিলেন। অভিযুক্ত যৌন নিপীড়ক জেফ্রি এপস্টিন তাকে ব্যবহার করেছেন। এই লোকের সঙ্গে প্রিন্স অ্যান্ড্রু সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। জিওফ্রে দাবি করেন, এপস্টিন অন্য ক্ষমতাবান লোকদের কাছে তাকে ধার দিতেন। এই বিলিয়নিয়ার পরে তাকে প্রিন্স অ্যান্ড্রুর শয্যাসঙ্গী হতে বিক্রি করে দেন। তখন তার বয়স ছিল মাত্র ১৭ বছর। প্রিন্স তাকে তিনবার যৌন নিপীড়ন করেছেন। এসব ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে। যুক্তরাষ্ট্রের আইন অনুযায়ী তখন তিনি অপ্রাপ্তবয়স্ক। সূত্র : বিবিসি নিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন