বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কাফনের কাপড় পরে ভিসি হঠাও আন্দোলনে শাবির শিক্ষার্থীরা

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২২ জানুয়ারি, ২০২২, ৫:৪২ পিএম

একটু নড়ছেন না শাবি ভিসি প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। নানা কর্মসূচীতে তার বিরুদ্ধে হঠ্ওা আন্দোলন তীব্রতর করছে শিক্ষার্থীরা। তিন দফা দাবির আন্দোলন এখন পরিণত হয়েছে উপাচার্যের পদত্যাগের এক দফা আন্দোলনে। তৃতীয় দিনের মতো আজ (শনিবার) অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। তার পদত্যাগেই শান্তির:নিশ্বাস ছড়াবে শাবিতে। সর্বশেষ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা কাফনের কাপড় পরে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে মিছিল করেছেন শাবি ক্যাম্পাসে। শনিবার (২২ জানুয়ারি) বিকাল ৩ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্ত্বরে অনুষ্ঠিত এ মিছিলে অংশগ্রহণ করেন ৩ শতাধিক আন্দোলনকারী। কাফন মিছিলে অংশ নেয়া সাদিয়া আফরিন বলেন, আমরন অনশনের প্রায় ৭৪ ঘন্টা অতিবাহিত হওয়ার পরও' ভিসি পদত্যাগ' আমাদের দাবি মেনে নেওয়া হয়নি। তাদের স্বাস্থ্য ক্রমাগত অবনতির দিকে যাচ্ছে এবং তারা ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে। আমরা আমাদের সহযোদ্ধাদের কোনোভাবেই একা মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিতে পারি না। পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন আমাদের এই এক দফা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলনের মঞ্চ থেকে এক পাও নড়ব না। এই উপাচার্যের জন্য যদি এক জনেরও মৃত্যু হয় তাহলে মৃত্যুর জন্য প্রস্তত আছি আমরা সবাই। এদিকে, আমরণ অনশনে থাকা শিক্ষার্থীদের মধ্যে এ পর্যন্ত ১৫ জন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাদের ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। অসুস্থদের মধ্যে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তিন শিক্ষার্থী আবারও ক্যাম্পাসে এসে অনশনে যোগ দিয়েছেন। হাসপাতালে এখন চিকিৎসাধীন আছেন ১২ শিক্ষার্থী। তারা অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন সেখানেই। গত বুধবার বিকাল থেকে অনশন শুরু করেন ২৪ শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে একজনের বাবা হার্ট অ্যাটাক করায় চলে যান তিনি । এখন উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অনশনে আছেন ১১ জন। তাদেরও শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে। সবার শরীরে স্যালাইন চলছে। অনশনরত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসাসেবা দিচ্ছে ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রলীগের একটি দল। এই দলের সদস্য নাজমুল ইসলাম বলেন, তাদের অনেকের শ্বাসকষ্ট দেখা দিয়েছে। জ্বরও আসছে। এ ছাড়া পানিশূন্যতা দেখা দিয়েছে।’ এ অবস্থায় শুক্রবার বিকেলে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের ঢাকায় এসে আলোচনা করার আহ্বান জানান। শিক্ষার্থীরা প্রথমে রাজি হলেও পরে ঢাকায় যেতে সম্মত হননি। শিক্ষামন্ত্রীকে সিলেটে আসার অথবা ভার্চুয়ালি আলোচনা করার প্রস্তাব দেন শিক্ষার্থীরা। তবে আলোচনা করতে ঢাকায় গেছেন শিক্ষকদের একটি প্রতিনিধি দল। শুক্রবার রাতে তারা ঢাকায় যান। শনিবার বিকেলে বা সন্ধ্যায় শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে তারা আলোচনায় বসতে পারেন বলে জানা গেছে। প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে রয়েছেন শাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক তুলসী কুমার দাস। তিনি শনিবার বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে আলোচনায় যেতে শিক্ষামন্ত্রী আমাদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা ঢাকায় আসতে রাজি হননি। আমরাই এসেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি নিয়ে আমরা উনার (শিক্ষা মন্ত্রীর) সঙ্গে কথা বলব।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন