শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯, ২৪ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

জাতিসংঘের রিপোর্ট প্রত্যাখ্যান তালেবানের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১২:০৪ এএম

আফগান তালেবান সোমবার জাতিসংঘের (ইউএন) একটি প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে। ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, গোষ্ঠীটি যুদ্ধ-বিধ্বস্ত দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পরে প্রায় ১০০ জন সাবেক সরকারী কর্মকর্তাকে হত্যা করেছে।

প্রতিবেদনে জাতিসংঘ বলেছে যে, তালেবান এবং তাদের সহযোগীরা মার্কিন নেতৃত্বাধীন সেনা প্রত্যাহারের পর থেকে সাবেক সরকারী কর্মকর্তা এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য এবং আন্তর্জাতিক সামরিক দলের সাথে কাজ করা লোকদের হত্যা করেছে। এর প্রতিক্রিয়ায় অন্তর্র্বতীকালীন আফগান সরকারের ডেপুটি মুখপাত্র বিলাল করিমি একটি ভিডিও বিবৃতিতে বলেছেন যে, কর্তৃপক্ষ কাউকে ‘সাবেক সরকারি কর্মচারী বা চাকুরীজীবীদের বাড়িতে অপহরণ, নির্যাতন বা অভিযান’ করার অনুমতি দেয়নি। তিনি আরও বলেন, সরকার কঠোরভাবে তার ‘ক্ষমা করার ডিক্রি মেনে চলছে এবং আদেশ লঙ্ঘন করে কাউকে এই ধরনের নৃশংসতা চালানোর অনুমতি দেয়া হবে না’।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে তালেবান ক্ষমতায় আসার পর মার্কিন নেতৃত্বাধীন বিদেশী সৈন্যরা চলে যাওয়া এবং আন্তর্জাতিক দাতারা সমালোচনামূলক আর্থিক সহায়তা বন্ধ করার পর ত্বরান্বিত হওয়া মানবিক ও অর্থনৈতিক সঙ্কট সম্পর্কে জাতিসংঘের প্রধান জারি করেছেন এমন একাধিক সতর্কবার্তার মধ্যে এই প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়েছে। জাতিসংঘের সভাপতি গুতেরেস একটি নতুন মানবাধিকার পর্যবেক্ষণ ইউনিট গঠন সহ পরিস্থিতি মোকাবেলায় জাতিসংঘ মিশনের পুনর্গঠন অনুমোদনের জন্য কাউন্সিলকে সুপারিশ করেছিলেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাতিসংঘ মিশন ‘হত্যা, জোরপূর্বক গুম এবং অন্যান্য লঙ্ঘনের বিশ্বাসযোগ্য অভিযোগ পেয়েছে’। সাবেক কর্মকর্তা, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য এবং যারা মার্কিন নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক সামরিক দলে কাজ করেছেন তালেবান কর্তৃক সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করা সত্ত্বেও তাদের বিরুদ্ধে দমন অভিযান চালানো হচ্ছে। মিশনটি বিশ্বাসযোগ্য রিপোর্ট হিসাবে নির্ধারণ করেছে যে, গত বছরের ১৫ আগষ্ট থেকে এখন অবধি ১০০ জনেরও বেশি ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়েছে - তাদের মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশেরও বেশি তালেবান বা তাদের সহযোগীদের হাতে নিহত হয়েছেন।
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ইসলামিক স্টেট জঙ্গি গোষ্ঠীর স্থানীয় শাখার সাথে জড়িত সন্দেহে অন্তত ৫০ জনের বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের বিশ্বাসযোগ্য অভিযোগ রয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ‘মানবাধিকার রক্ষক এবং গণমাধ্যম কর্মীরা আক্রমণ, ভয়ভীতি, হয়রানি, নির্বিচারে গ্রেফতার, দুর্ব্যবহার এবং হত্যার শিকার হচ্ছেন।’ সূত্র : ট্রিবিউন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps