ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

অভ্যন্তরীণ

ছাতকের নোয়ারাই ইউপির গ্রামীণ সড়কগুলো যেন মরণফাঁদ

প্রকাশের সময় : ৩ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

এএফএম ফারুক চান মিয়া, ছাতক (সুনামগঞ্জ) থেকে

ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নের বিভিন্ন কাঁচা-পাকা রাস্তা-ঘাট, পুল-কালভার্ট এখন ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে উঠেছে। ফলে যাতায়াতের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন থেকে চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছেন গোটা ইউনিয়নবাসী। জানা যায়, সুরমা নদীর উত্তর পাড়ে নোয়ারাই ইউনিয়নের অবস্থান। এখানে কাঁচা-পাকা রাস্তা-ঘাট থাকলেও এগুলো দীর্ঘদিন থেকে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। অনেক রাস্তায় নেই পুল-কালভার্ট। আবারো অনেক স্থানে ব্রিজ-কালভার্ট থাকলেও ভরাট করা হয়নি এগুলোর অ্যাপ্রোচের মাটি। জানা গেছে, নোয়ারাই-বাংলাবাজার সড়কের লাফার্জ সংলগ্ন ফাতেমা মসজিদ-চাঁনপুর-মানিকপুর (চৌমুহনী)-বালিউরা-দোয়ারাবাজার ও লাফার্জ সংলগ্নœ ফাতেমা মসজিদ-জয়নগর-শারফিন-চাঁনপুর-কালিউরী গ্রোথ সেন্টার-রংপুর-দোয়ারাবাজার পর্যন্ত সড়কে কয়েকটি ব্রিজ-কালভার্ট না থাকায় যাতায়াতের ক্ষেত্রে সীমাহীন ভোগান্তি পোহাচ্ছেন এলাকাবাসী। এরাস্তায় কালিউরি ব্রিজ, শারফিননগরের মাগুরা নদীর ব্রিজ, গোয়ালপইড়ও গোয়ালদাইড় ব্রিজ না থাকায় পায়ে হেঁটেও চলাচল করতে পারছেন না তারা। এদিকে জয়নগর গ্রামের জ্ঞানবাবুর বাড়ির সামনের ব্রিজের অ্যাপ্রোচ না থাকায় এলাকার বৃহত্তর জনগোষ্ঠী যাতায়াত করতে পারছেন না। নোয়ারাই-বাংলাবাজার সড়কের বালিউরা পর্যন্ত ও নোয়ারাই-লক্ষèীবাউর-দোয়ারাবাজার সড়কের লক্ষèীবাউর পর্যন্ত নোয়ারাই ইউনিয়নে থাকলেও দীর্ঘদিন সংস্কার হচ্ছে না। এভাবে জোড়াপানি-বন্দরগাঁও-সিংগেরকাচ-নরসিংপুর, বেতুরা-চানপুর-বালিউরা, ছনখাইড়-রাজারগাঁও গ্রামের ভেতরের একাধিক রাস্তা, চৌমুহনী-বালিউরা রাস্তাসহ ইউনিয়নের অন্যান্য রাস্তাগুলো এখন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে উঠেছে। এছাড়া ছাতকের লেচুর গ্রাম বলে সর্বমহলে পরিচিত মানিকপুরসহ কয়েকটি গ্রামের মৌসুমী লিচু পরিবহনে অত্যন্ত সহজ মাধ্যম ছিল চানপুর-ছাতক সড়ক। কিন্তু রাস্তাটি ব্রিজ-কালভার্ট ও মেরামত না করায় লিচুর মৌসুমে মালামাল নিয়ে চলাচল চরম দুর্ভোগের কারণ হয়ে উঠে তাদের। এব্যাপারে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান জানান, ফাতেমা মসজিদ থেকে চানপুর পর্যন্ত ৫ কি.মি. সড়কের মধ্যে কয়েকটি খালে ব্রিজ-কালভার্ট নেই। অনেক ব্রিজ-কালভার্টের অ্যাপ্রোচে নেই মাটি ভরাট। যা এলাকাবাসীর যাতায়াতে দুর্ভোগের কারণ হয়ে দেখা দিয়েছে। এব্যাপারে ইউপি সদস্য মনির উদ্দিন, আনোয়ার খান মকন, মকন মিয়া, আকলুছ আলী, সাবেক মেম্বার আব্দুর রহমান, ইন্তাজ আলী, সমাজসেবী সফিক মিয়া, জমির আলী ইউনিয়নের রাস্তা-ঘাটগুলো মেরামতের জন্য সরকারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। ইউপি চেয়ারম্যান দেওয়ান আব্দুল খালিক রাজা জানান, সবগুলো রাস্তাই যেন মরণফাঁদ। দীর্ঘদিন থেকে সংস্কার ও মেরামত না করায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। বিগত ইউপি চেয়ারম্যানরা প্রকল্পগুলোর বরাদ্দ নিয়ে কোথায় কাজ করেছেন এনিয়ে তিনি বিস্ময় প্রকাশ করেন। কারণ এখনো নোয়ারাই ইউপি উপজেলার মধ্যে অবহেলিত হিসেবে রয়ে গেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন