শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৩ মুহাররম ১৪৪৪

সারা বাংলার খবর

নৌবাণিজ্যে মোংলা বন্দর নেতৃত্ব দেবে : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ মার্চ, ২০২২, ৯:০৪ পিএম

মোংলা বন্দরে বিদেশি জাহাজ আগমন ও নির্গমনকারী সব জাহাজের সেইফটি ও সিকিউরিটি নিশ্চিতকরণ, চ্যানেলের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ, দুর্ঘটনাকবলিত পরিস্থিতিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে সহায়তার লক্ষ্যে ‘ভেসেল ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম (ভিটিএমআইএস)’ প্রবর্তন করা হয়েছে।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি আজ (১৬ মার্চ) মোংলা বন্দরে ‘ভিটিএমআইএস’ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী দিনে নৌবাণিজ্যে মোংলা বন্দর নেতৃত্ব দেবে। এ লক্ষ‍্যে সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। বঙ্গোপসাগর থেকে মোংলা বন্দর পর্যন্ত ১৩০ কিলোমিটারের নৌ-চ‍্যানেলে সাড়ে ৯মিটার ড্রাফটের জাহাজ আনয়নের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মোংলা বন্দরের আপগ্রেডেশনের লক্ষ‍্যে ৬ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। বন্দর পর্যন্ত রেললাইন সংযোজন করা হয়েছে। ছয় লেনের রাস্তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। পদ্মা সেতু এবং রেল লাইন চালু হলে বন্দরের গতি আরও বেড়ে যাবে। রিজিওনাল কানেক্টিভিটি বেড়ে যাবে। সে লক্ষ‍্যে আমাদের ভিশনারি লিডার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করছেন। শেখ হাসিনা শুধু বর্তমান নয়, ভবিষ‍্যত নিয়ে চিন্তা করে পদক্ষেপ নেন। তার রাজনীতি ভবিষ্যতে মানুষ কোথায় কীভাবে থাকবে, তা নিয়ে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, স্বাধীনতার সাড়ে তিন বছরে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে অনেক ধরনের কটাক্ষ করা হয়েছিল বঙ্গবন্ধুকে খাটো করার জন্য। বঙ্গবন্ধুকে খাটো করতে পারলে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করা যাবে, এ জন্য অনেকেই কটাক্ষ করতেন। ’৭৫-এর ১৫ আগস্টের পর দেশকে অন্ধকারে ঠেলে দেওয়ার জন্য জিয়া, এরশাদ, খালেদা জিয়া যা যা করা দরকার তা করেছে। গত ১৩ বছরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ অন্ধকার থেকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে মোংলা বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা, প্রকল্প পরিচালক মো. মামনুর রশিদ উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া, ভিটিএমআইএস প্রবর্তনের আরও উদ্দেশ্য হলো মোংলা বন্দরকে আধুনিকায়ন, বন্দর সীমানায় আগত সমুদ্রগামী জাহাজসমূহ মনিটরিং করাসহ দক্ষতার সঙ্গে হ্যান্ডলিং করার মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার মান উন্নীত করা। বন্দর এলাকায় দুর্ঘটনা পরবর্তীতে তদন্তকরণ ও সে অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণসহ জাহাজ সমূহের গতিবিধি মনিটরিং করার লক্ষ্যে আইএমও কনভেনশেনের আলোকে ইন্টারন্যাশনাল শিপ পোর্ট সিকিউরিটি কোড বাস্তবায়ন করা। বন্দর এলাকায় দুর্ঘটনা পরবর্তীতে তদন্তকরণ ও তদনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণসহ জাহাজ সমূহের গতিবিধি মনিটরিংসহ উক্ত ঘটনাবলি সংরক্ষণ করা।

মোংলা বন্দরে ইতোপূর্বে কোনো ভিটিএমআইএস ছিল না। ফলে বিদেশি জাহাজের সঙ্গে ‘ভেরি হাই ফ্রিকোয়েন্সি (ভিএইচএফ)’-এর মাধ্যেমে যোগাযোগ করা হতো। বর্তমানে ভিটিএমআইএসএর মাধ্যমে যোগাযোগ অব্যাহত আছে। মোংলা বন্দর আর্ন্তজাতিক বন্দর হিসেবে ভিটিএমআইএসের মাধ্যমে বিদেশি জাহাজের আগমন ও নির্গমন নিরাপত্তার সঙ্গে নিশ্চিত করা হচ্ছে। বন্দরের নিরাপত্তা নিশ্চিতের কারণে জাহাজের আগমন বৃদ্ধি পেয়েছে; যা দেশের অর্থনীতির উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন