সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ০৪ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

চিলমারীতে রাস্তার কাজে অনিয়মের অভিযোগ

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ এপ্রিল, ২০২২, ১২:০৪ এএম

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে রাস্তা মেরামত ও ড্রেন নির্মাণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ড্রেনের ছলিংয়ে নিম্নমানের পুরাতন ইট বিছিয়ে বালুর পরিবর্তে ভিটি মাটি দিয়ে ফিলিংসহ রাবিশ খোয়া ও পরিমানে কম সিমেন্ট দিয়ে কাজ করছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

জানা যায়, কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপদ বিভাগের তত্ত্বাবধানে উপজেলার রমনা রেলস্টেশন থেকে কলেজ মোড় হয়ে গোলাম হাবিব মহিলা ডিগ্রি কলেজ পর্যন্ত ১ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা চুক্তিমূল্যের ২কি.মি রাস্তা সংস্কার ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু হয়। নওগাঁস্থ আমিনুল হক নামে একজন ঠিকাদার কাজটি পায় যা বাস্তবায়ন করছেন মোস্তাফিজার রহমান সাজু নামে কুড়িগ্রামের ঠিকাদার।
এরমধ্যে চিলমারী সরকারি কলেজ মোড় কবরস্থান থেকে ড্রেনের কাজ শুরু করা হয়েছে। সেখানে ড্রেনের ছলিং এ নিম্নমানের পুরাতন ইট বিছিয়ে বালুর পরিবর্তে ভিটি মাটি ও পানি দিয়ে ফিলিং করা হয়। এ অনিয়মের জন্য গত শনিবার স্থানীয়রা কাজে বাধা দিলে কিছুক্ষনের জন্য কাজ বন্ধ থাকে। এসময় স্থানীয় মাসুম, হিমু,আপনসহ এলাকাবাসী অনেকেই জানান, পুরাতন নিম্নমানের ইটের ছলিং বিছিয়ে তার ওপরে ভিটি মাটি দিয়ে পানি দিচ্ছে তাতে ছলিং এ কাদা জমে থাকছে। এভাবে কাজ করলে অল্প দিনের মধ্যে ড্রেন নষ্ট হয়ে যাবে।
পরে ওই দিনই বিকেলে নিম্নমানের রাবিশ খোয়া দিয়ে সিসি ঢালাই শুরু করেন তারা। একই এলাকার সবুজ, পলাশ, সাজু, ফারুকসহ অনেকে জানান, রাস্তার এক পাশ্বে ড্রেন দিলেও অপর পাশ্বে কত পরিমান জায়গা ব্যাবহার করা হবে সে বিষয়ে কোন সমাধান না করেই তরিঘড়ি করে দায়সাড়াভাবে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে ড্রেনের কাজ শুরু করা হলেও কর্তৃপক্ষের নজরদারী নেই। তারা আরও বলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ করলেও সড়ক ও জনপদ বিভাগের কোন তত্বাবধান নেই। এলাকাবাসীর কথার মুখে দায় এড়াতে গত রোববার দুপুরের পর রফিকুল ইসলাম নামের একজন কার্যসহকারীকে পাঠানো হলেও তিনি কাজ সম্পর্কে কিছুই জানেন না। নিম্নমানের পুরাতন ইটের বিষয়ে কাজটি দেখভালের দায়িত্বে থাকা সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফয়সাল আহমেদ বলেন, ওই ইট বাদ রেখে নতুন ইটে কাজ করতে বলা হয়েছে।
সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী তানভির হামিদ জানান, রাস্তা থেকে উঠানো ইট কাজের উপযোগী হলে তা দিয়ে কাজ করার প্রভিশন রয়েছে। তবে কাজ দেখভালের দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারী প্রকৌশলী আছেন তিনি সবকিছু দেখবেন।
কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম বলেন, নতুন ইট দিয়ে কাজ করতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে এসডিই সাহেবের সাথে কথা বলার পরামর্শ দেন তিনি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps