ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

ইসলামী জীবন

ইসলামী কর্মতৎপরতা

প্রকাশের সময় : ১৫ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইসলামী ঐক্য আন্দোলন
ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সাখাওয়াত হুসাইন বলেছেন, কুরআন চর্চায় কেবল সমাজকে অধ:পতন থেকে বাঁচাতে পারে। দেশের সামাজিক অবস্থা আইয়্যামে জাহেলিয়াতকেও হার মানাবে। তিনি বলেন, দেশ যখন সরকারের ভাষায় উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে, তখন আমাদেরকে সন্তান হারানো মায়ের, স্বামী হারানো স্ত্রীর, বাবা হারানো সন্তানদের আর্তচিৎকার শুনতে হচ্ছে। কোরআনের জ্ঞান না থাকার কারণে সমাজ আজ অধ:পতনের চরমসীমায় পৌঁছে গেছে, এমন কোনো পাপ নেই যা আমাদের দেশে হচ্ছে না। তিনি আরো বলেন, যে জাতি পাপকে পাপ মনে করে না তাদের পতন অনিবার্য। তিনি ঘরে ঘরে কোরআন চর্চার মাধেমে মাধ্যেমে সমাজ বিপ্লবের আহ্বান জানান। তিনি গত ২৫ অক্টোবর বিকেলে ইসলামী ঐক্য আন্দোলন ঢাকা মহানগরীর মতিঝিল থানা শাখার দায়িত্বশীলদের বৈঠকে একথা বলেন। থানা শাখার আমির আলহাজ মুস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে আরো বক্তব্য রাখেন থানা শাখার নায়েবে আমির শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল হক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক সাদেকুল হাসান প্রমুখ।
জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম
২১ অক্টোবর রোজ শুক্রবার জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নের উদ্যোগে আয়োজিত জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ-এর সিনিয়র সহ-সভাপতি মাসিক মদীনা সম্পাদক ফখরে মিল্লাত আল্লামা মুহিউদ্দীন খান রহ. ও ইউনিয়ন জমিয়তের সভাপতি মাও. সৈয়দ মুস্তাকিম আলী রহ.-এর জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে মাও. উবায়দুর রহমান খান নদভী বলেন পাশ্চাত্য সভ্যতা ও অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে দেওবন্দের আলিম উলামারা যে ব্যানারে কাজ করে গেছেন সে ব্যানারের নাম হলো জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম। ১৯১৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এ সংগঠনই ভারতের স্বাধীনতা অর্জন করে। জগন্নাথপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী গ্রাম সৈয়দপুর বাজারে অনুষ্ঠিত মাও. সিদ্দিক আহমদ হাসনুর সভাপতিত্বে মাও. রশিদ আহমদ-এর উপস্থাপনায় উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আল্লামা আব্দুর রব ইফসুফি, মাও. নুরুল ইসলাম খান, এড. শাহীনুর পাশা চেšধুরী, মাও. তাফাজ্জুল হক আজীজ, মাও. শায়খ আব্দুল বাছির, মাসিক মদীনা সম্পাদক আহমদ বদরুদ্দীন খান, হাফিজ সৈয়দ শামীম আহমদ, ছাত্রনেতা মুফতি নাসির উদ্দিন খান প্রমুখ।
সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্য
শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইন করে এ দেশ থেকে ইসলাম নিশ্চিহ্ন করা যাবে না। দেশের ঈমানদার তওহীদি ছাত্র-জনতা যে কোনো মূল্যে এই ইসলাম বিনাশী, নাস্তিক্যবাদী, হিন্দুত্ববাদী শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইন রুখে দেয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে ইনশাআল্লাহ। ২৮ অক্টোবর বাদ জুমা বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্যের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।
বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুর রহীম সাঈদের সভাপতিত্বে ও খেলাফত ছাত্র আন্দোলনের সেক্রেটারি জেনারেল মো. নেয়ামতুল্লাহর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন সর্বদলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্যের মুখপাত্র মুহাম্মাদ খোরশেদ আলম, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুল্লাহ আল মাসউদ খান, বাংলাদেশ জমিয়তে তালাবায়ে আরাবিয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুল কাদির, ছাত্র ঐক্যের সমন্বয়কারী আবদুর রহমান, ইসলামী ছাত্র খেলাফত বাংলাদেশের সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ আবুল হাশিম, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসমাজের মহাসচিব মুহাম্মাদ নুরুজ্জামান, ছাত্র ঐক্যের অর্থ সম্পাদক মো. সাইদুর রহমান সানী, ইশা ছাত্র আন্দোলনের সাংগঠনিক সম্পাদক হাসিবুল ইসলাম, খেলাফত ছাত্র আন্দোলনের সহ-সভাপতি ইয়াসিন আরাফাত, ইসলামী ছাত্র খেলাফত-এর কেন্দ্রীয় নেতা মো. তকদির হোসেন, ইসলামী ছাত্রসামজের কেন্দ্রীয় সদস্য মাহমুদুল হাসানসহ প্রমুখ ছাত্র নেতৃবৃন্দ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইন করে এদেশের ঈমানদার মানুষকে বেঈমান বানানোর চক্রান্ত করছে। সেই সাথে মুসলিম ছাত্রছাত্রীদেরকে জোরপূর্বক তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে পাঠ্যসূচি পড়ানো হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন