রোববার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১৯ আষাঢ় ১৪২৯, ০৩ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ধর্ষণের মামলা করতে যাওয়া কিশোরীকে ধর্ষণ করে পুলিশ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ মে, ২০২২, ১২:০৬ এএম

থানায় ধর্ষণের মামলা করতে যাওয়া এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে ভারতীয় এক পুলিশকে গ্রেপ্তার করা হয়ছে। ভারতের উত্তর প্রদেশে কয়েকদিন আগে ঘটা এ ঘটনায় দেশ জুড়ে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়। অভিযুক্ত ওই পুলিশকে আগেই বরখাস্ত করা হয়েছিল। তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলাও হয়েছে বলে জানান একজন জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, ১৩ বছরের ওই কিশোরী গত মাসে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছিল। কিশোরীর বাবার দায়ের করা এফআইআর-এ বলা হয়েছিল, চারজন লোক মেয়েটিকে গত ২২ এপ্রিল মধ্যপ্রদেশের ভোপালে নিয়ে যায়। সেখানে তারা তাকে চারদিন ধরে ধর্ষণের পর আবার উত্তর প্রদেশের ললিতপুরে তার গ্রামে তাকে ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। ফিরে আসার পরদিন মেয়েটি এক আত্মীয়াকে সঙ্গে নিয়ে স্থানীয় থানায় ধর্ষণের অভিযোগ জানাতে গেলে তাকে আবার থানার স্টেশন হাউস অফিসার ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ উঠে। অভিযোগ উঠা পুলিশ কর্মকর্তার নাম তিলকধারী সরোজ। অভিযোগ উঠার পর তিনি পালিয়ে গিয়েছিলেন। সংবাদমাধ্যমে এ খবর প্রকাশের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠে। রাজ্য কর্তৃপক্ষ এ ঘটনায় উচ্চ-পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দেন এবং ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলেন। দ্য ন্যাশনাল হিউম্যান রাইটস কমিশন থেকেও জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তাদের চার সপ্তাহের ভেতর প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছে। ললিতপুর জেলা পুলিশ প্রধান নিখিল পাঠক সাংবাদিকদের বলেন, দাতব্য সংস্থা ‘চাইল্ডলাইন’ মেয়েটিতে তার কার্যালয়ে নিয়ে এসেছিল। ‘‘মেয়েটি তার সঙ্গে যা ঘটছে তার সবটা আমাকে বলেছে। আমি সেসব জানার পর এ বিষয়ে একটি ফৌজদারি মামলা হওয়া নিশ্চিত করেছি।” বুধবার ওই পুলিশ কর্মকর্তা গ্রেপ্তার হন। এছাড়া, ঘটনার সময় ওই পুলিশ স্টেশনে দায়িত্বরত সব পুলিশকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। ডিআইজি পদমর্যাদার একজন পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনার তদন্ত করবেন এবং ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া কথা রয়েছে বলে জানায় এনডিটিভি। উত্তর প্রদেশের এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে কংগ্রেস পার্টির নেতা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী টুইটারে লেখেন, ‘‘যদি পুলিশ স্টেশন নারীদের জন্য নিরাপদ না হয়, তবে অভিযোগ জানাতে তারা কোথায় যাবে? ‘‘ইউপি সরকার কী সত্যি সত্যি পুলিশ স্টেশনে নারীদের নিয়োগ বাড়ানোর কথা ভাবছে, যাতে পুলিশ স্টেশন নারীদের জন্য নিরাপদ হয়ে উঠে?”এনডিটিভি, টিওআই।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps