রোববার ২৭ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

৫ বছর পরও রাশিয়ার ওপরে নির্ভরশীল থাকবে ইউরোপ

উৎপাদন কমিয়েছে ওপেক প্লাস, ফের বাড়ল তেলের দাম নিষেধাজ্ঞা বাতিল না করা পর্যন্ত ইউরোপে গ্যাস প্রবাহ বন্ধ রাখবে রাশিয়া হ এশিয়ায় তেল রফতানি আরও বাড়াবে রাশিয়া

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

২০২৭ সালেও ইউরোপ খুব সম্ভবত রাশিয়ান গ্যাসের উপরে নির্ভরশীলতা থেকে বেরিয়ে আসতে পারবে না। এ মন্তব্য করেছেন রুশ জ্বালানি মন্ত্রী নিকোলাই শুলগিনভ। এদিকে, তেলের দাম বাড়াতে ওপেক প্লাসের সদস্যরা প্রতিদিন ১ লাখ ব্যারেল তেলের উৎপাদন কমিয়ে দিতে সম্মত হয়েছে। এর ফলে সোমবার তেলের দাম প্রায় ৩ শতাংশ বেড়েছে।

সোমবার ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরামের সময় দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শুলগিনভ বলেন, ‘ইউরোপকে অবশ্যই আত্মবিশ্বাসী হতে হবে যে, তারা ২০২৭ সালের মধ্যে এটি করতে সক্ষম হবে। স্পট মূল্যের পরিস্থিতি প্রমাণ করে যে, বিষয়টি এত সহজ নয়। ইউরোপ খুব কমই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া অন্য কারো উপর নির্ভর করতে পারে, যারা এলএনজি উৎপাদন বাড়াচ্ছে,’ শুলগিনভ বলেছেন। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি আসন্ন শীতই দেখাবে যে, রাশিয়ান গ্যাস প্রত্যাখ্যান করার সম্ভাবনার বিষয়ে তাদের বিশ্বাস কতটা বাস্তব। এটি আসলে রাসায়নিক শিল্প এবং গ্যাস-চালিত বিদ্যুৎ উৎপাদন সহ শিল্পকে থামিয়ে দেবে।’ ‘সেক্ষত্রে ইউরোপীয়দের জন্য এটি হবে একেবারে নতুন জীবন। আমি বিশ্বাস করি, সম্ভবত তারা রাশিয়ান গ্যাস পরিত্যাগ করতে পারবে না, এটা তাদের জন্য খুবই কঠিন হবে,’ তিনি যোগ করেন।

তেলের উৎপাদন কমিয়েছে ওপেক প্লাস : ওপেক প্লাসের সদস্যরা প্রতিদিন ১ লাখ ব্যারেল তেলের উৎপাদন কমিয়ে দিতে সম্মত হয়েছে। এর ফলে সোমবার ব্রেন্ট ক্রুড ফিউচার তেলের দাম ২.৭২ ডলার বেড়ে ৯৫.৭৪ ডলার প্রতি ব্যারেল হয়েছে। অর্থাৎ, এটি ২.৯২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এর আগেও তেলের দাম ব্যারেল প্রতি প্রায় ৪ ডলার বৃদ্ধি পেয়েছিল। তখন হোয়াইট হাউস জানিয়েছিল যে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জ্বালানির সরবরাহ বৃদ্ধি এবং দাম কমানোর জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত পদক্ষেপ নিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। মার্কিন অশোধিত তেল ব্যারেল প্রতি ২ ডলার বেড়ে ৮৮.৮৫ ডলার হয়েছে, যা আগের সেশনে ০.৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছিল।
অর্গানাইজেশন অফ দ্য পেট্রোলিয়াম এক্সপোর্টিং কান্ট্রিজ (ওপেক) এবং এর সহযোগীদের (ওপেক প্লাস) দ্বারা প্রতিদিন ১ ব্যারেল তেল উৎপাদন কমানো হয়েছে। যা বৈশ্বিক চাহিদার মাত্র ০.১ শতাংশ। গ্রুপটি সম্মত হয়েছে যে, তারা ৫ অক্টোবর পরবর্তী নির্ধারিত বৈঠকের আগে উৎপাদন সামঞ্জস্য করতে যে কোনও বৈঠক করতে পারে। শীর্ষ ওপেক উৎপাদক সউদী আরব গত মাসে তেলের দামের পতন ঠেকাতে উৎপাদন হ্রাসের ইঙ্গিত দিয়েছিল। রাশিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রী আলেকজান্ডার নোভাক বলেছেন, মস্কো এবং তার ওপেক মিত্রদের তেল উৎপাদন কমানোর সিদ্ধান্তের পিছনে দুর্বল বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির প্রত্যাশা ছিল।

নিষেধাজ্ঞা বাতিল না করা পর্যন্ত ইউরোপে গ্যাস প্রবাহ বন্ধ রাখবে রাশিয়া : রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত ইউরোপে গ্যাস প্রবাহ শুরু হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে মস্কো। ক্রেমলিন থেকে বলা হয়েছে, পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে নর্ড স্ট্রিম পাইপলাইনের নিচে গ্যাস প্রবাহ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
সোমবার ক্রেমলিন বলেছে যে, পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞাই রাশিয়ার নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইন বন্ধ করার সিদ্ধান্তের একমাত্র কারণ। মস্কো প্রাথমিকভাবে বলেছে, এটি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ইউরোপে গ্যাস সরবরাহকারী পাইপলাইনটি বন্ধ করে দিচ্ছে। ইন্টারফ্যাক্স নিউজ এজেন্সির বরাত দিয়ে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভকে উদ্ধৃত করে বলেছেন, আমাদের দেশের বিরুদ্ধে এবং জার্মানি এবং যুক্তরাজ্য সহ পশ্চিমা রাষ্ট্রগুলির বেশ কয়েকটি কোম্পানির বিরুদ্ধে আরোপিত নিষেধাজ্ঞার কারণে [গ্যাস] পাম্পিং সমস্যা দেখা দিয়েছে। অন্য কোন কারণ নেই, যা এই পাম্পিং সমস্যার কারণ হতে পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন। নিষেধাজ্ঞাগুলি যা ইউনিটগুলিকে সার্ভিস দেওয়া থেকে বাধা দেয়, যা তাদের যথাযথ আইনি গ্যারান্টি ছাড়াই স্থানান্তর করা থেকে বাধা দেয়। পশ্চিমা রাষ্ট্রগুলির দ্বারা আরোপিত এই নিষেধাজ্ঞাগুলিই পরিস্থিতিকে এখানে নিয়ে এসেছে যা আমরা এখন দেখছি বলে পেসকভ উল্লেখ করেন।

এশিয়ায় তেল রফতানি আরও বাড়াবে রাশিয়া : তেলের মূল্য নির্ধারনের বিষয়ে ইউরোপের সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়া হিসাবে এশিয়ায় তেল সরবরাহ আরও বৃদ্ধি করবে রাশিয়া। গতকাল ভøাদিভোস্টকের ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরামে রুশ জ্বালানি মন্ত্রী নিকোলাই শুলগিনভ এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘মূল্যের সীমা আরোপ করার যেকোনো পদক্ষেপ (প্রবর্তক দেশগুলির) নিজস্ব বাজারে ঘাটতির দিকে নিয়ে যাবে এবং দামের অস্থিরতা বাড়াবে।’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, ইতালি, জাপান, গ্রেট ব্রিটেন, ফ্রান্স এবং কানাডার অর্থমন্ত্রীরা ইউক্রেনের আক্রমণের প্রতিক্রিয়ায় মস্কোর রাজস্ব কমাতে রাশিয়ান অপরিশোধিত তেলের দাম কমানোর প্রস্তাবে গত সপ্তাহে অনুমতি দিয়েছেন। ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সি অনুসারে, রাশিয়া ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে কয়েক হাজার সৈন্য পাঠানোর আগে, রাশিয়ার অশোধিত এবং পেট্রোলিয়াম পণ্য রপ্তানির প্রায় অর্ধেক ইউরোপে গিয়েছিল। সূত্র : রয়টার্স, দ্য গার্ডিয়ান, আল জাজিরা, তাস।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
salahuddin Mr ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১০:৩২ এএম says : 0
welcome both
Total Reply(0)
salahuddin Mr ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১০:৩২ এএম says : 0
hum
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন