সোমবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯, ০৭ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

জাতীয় সংবাদ

মিছিল-সমাবেশ নিষিদ্ধের বিধান কেন সংবিধান পরিপন্থি নয়

হাইকোর্টের রুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

সভা-সমাবেশ বা মিছিল নিষিদ্ধে পুলিশ কমিশনারের ক্ষমতা প্রয়োগের বিধান কেন অবৈধ ও সংবিধান পরিপন্থি ঘোষণা করা হবে না Ñএই মর্মে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।
রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে গতকাল রোববার বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া এবং বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সচিব, আইনমন্ত্রণালয়ের সচিব, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারসহ ৪ জনকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট আব্দুল মোমেন চৌধুরী। সরকারপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অরবিন্দ কুমার রায়।

গত ২০ অক্টোবর পুলিশ কমিশনারের সমাবেশ বা মিছিল নিষিদ্ধ করার ক্ষমতা সংক্রান্ত বিধান চ্যালেঞ্জ করে জনস্বার্থে এ রিট ফাইল করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের ৫ আইনজীবীর পক্ষে রিট ফাইল করেন অ্যাডভোকেট আব্দুল মোমেন চৌধুরী। মামলার বাদীদের মধ্যে রয়েছেন, অ্যাডভোকেট কেএম জাবির, অ্যাডভোকেট সেলিম আকবর, শাহ নূরুজ্জামান ও মোহাম্মদ ইয়াসিন। গত ২৭ অক্টোবর রিটটির শুনানির তারিখ ধার্য করা হয়। সে অনুযায়ী গতকাল রিটের ওপর শুনানি হয়। রিটে মিছিল-সমাবেশ নিষিদ্ধ করার ক্ষমতা সংক্রান্ত পুলিশ আইনের ২৯ ধারার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা হয়। বলা হয়, পুলিশ আইনের ২৯ ধারা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এ কারণে এই ধারা সংবিধান পরিপন্থি।

রিটে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ অর্ডিন্যান্স ১৯৭৬ এর সেকশন ২৯ ও ১০৫ এর পাশাপাশি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (সভা, সমাবেশ, মিছিল এবং আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ) রুলস, ২০০৬ এর বৈধতাও চ্যালেঞ্জ করা হয়।
শুনানিতে অ্যাডভোকেট আব্দুল মোমেন চৌধুরী বলেন, পুলিশ কমিশনারের সমাবেশ বা মিছিল করার ক্ষমতা সংক্রান্ত পুলিশ আইন ১৯৭৬ এর ধারা ২৯-এ বলা হয়েছে, ‘জনসাধারণের শান্তি বা নিরাপত্তা রক্ষার জন্য পুলিশ কমিশনার যখনই প্রয়োজন মনে করবেন এবং যতদিনের প্রয়োজন বিবেচনা করবেন লিখিত আদেশ দ্বারা কোনো জনসমাবেশ বা মিছিল নিষিদ্ধ করতে পারবেন। তবে শর্ত থাকে যে, অনুরূপ কোনো নিষেধাজ্ঞা সরকারের অনুমতি ছাড়া ৩০ দিনের বেশি বলবৎ থাকবে না।’ সমাবেশের স্বাধীনতা সংক্রান্ত সংবিধানের ৩৭ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, জনশৃঙ্খলা বা জনস্বাস্থ্যের স্বার্থে আইনের দ্বারা আরোপিত যুক্তিসঙ্গত বাধা নিষেধ-সাপেক্ষে শান্তিপূর্ণভাবে ও নিরস্ত্র অবস্থায় সমবেত হওয়ার এবং জনসভা ও শোভাযাত্রায় যোগদান করার অধিকার প্রত্যেক নাগরিকের থাকবে।

অ্যাডভোকেট আবদুল মোমেন চৌধুরী বলেন, অধ্যাদেশের সেকশন ২৯ সংবিধানের ৩৭ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এটি নাগরিক মৌলিক অধিকারের পরিপন্থি। সংবিধান বলছে, আইনের দ্বারা আরোপিত যুক্তিসঙ্গত বাধা নিষেধ-সাপেক্ষে সমাবেশ করার কথা। আর অধ্যাদেশে পুলিশ কমিশনারকে দেয়া হয়েছে নিষিদ্ধ করার ক্ষমতা। দু’টি ভিন্ন জিনিস। তাই এটি সাংঘর্ষিক।

শুনানিতে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ৩৭ অনুচ্ছেদ অনুসারে এটা (সভা-সমাবেশ) নিয়ন্ত্রিত অধিকার। আইনের দ্বারা আরোপিত বিধি-নিষেধ সাপেক্ষে। এটি কোনো চূড়ান্ত ক্ষমতা নয়। সংবিধানের ২১ অনুচ্ছেদ অনুসারে, সংবিধান ও আইন মান্য করা, শৃঙ্খলা রক্ষা করা, নাগরিক দায়িত্ব পালন করা এবং জাতীয় সম্পত্তি রক্ষা করা প্রত্যেক নাগরিকের কর্তব্য। তিনি বলেন, শৃঙ্খলা রক্ষা করবে পুলিশ। অধ্যাদেশের ২৯ সেকশন হচ্ছে শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে।

আদালত তখন বলেন, আবেদনকারী বলতে চাইছেন, ২৯ সেকশনে পুলিশকে বেশি ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, না। বেশি ক্ষমতা দেয়া হয়নি। জনশৃঙ্খলা বা জনস্বাস্থ্যের স্বার্থে ঢাকায় নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়। যেমন মহানগরের বাইরে ১৪৪ ধারা দেয়া হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
Shuhydul Mohammed ৩১ অক্টোবর, ২০২২, ৭:২৩ এএম says : 0
সংবিধানে স্পষ্ট ভাবে বলা আছে কোন পুলিশের হাতে এই ক্ষমতা নেই
Total Reply(0)
Nizam Shaikh ৩১ অক্টোবর, ২০২২, ৭:২৩ এএম says : 0
পুলিশের কাজ হলো নিরাপত্তা দেওয়া।। পুলিশ কেন ওয়াজ মাহফিল সভা সমাবেশে বাধাগ্রস্ত করবে বা দিবে।। পুলিশের কাছ থেকে কেন অনুমতি নিতে হবে।।
Total Reply(0)
Harunur Rashid ৩১ অক্টোবর, ২০২২, ১:১৮ এএম says : 0
Bangladesh need a new constitution period. Current one has flows. Need a presidential system with term limit and clan limit. Supreme court judges must be a life time appointment so these judges can do their job without fear of replacing them by tyrant ruler. Only an elected members of the people has the power over all law enforcement and arm forces. Tyrant parties and ruler can not change laws to their benefit.
Total Reply(0)
Alamgir Noor ৩১ অক্টোবর, ২০২২, ৭:২১ এএম says : 0
অনেক দিন পরে ভোটারবিহীন সরকারের বিদায়লগ্নে মহামান্য হাইকোর্টের বোধোদয় হয়েছে!
Total Reply(0)
Md Shaid ৩১ অক্টোবর, ২০২২, ৭:২২ এএম says : 0
বাকশাল নিপাত যাক গণতন্ত্র মুক্তি পাক জনগণের দাবী
Total Reply(0)
Shahed Ahmed ৩১ অক্টোবর, ২০২২, ৭:২২ এএম says : 0
১লক্ষ ৬হাজার মামলা নিয়ে ৩৬ লক্ষ নেতা কর্মীরা ১৪ বছর ধরে মাথা উঁচু করে দাড়িয়ে থাকা দলটির নাম বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন