রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১, ০৭ মুহাররম ১৪৪৬ হিজরী

মহানগর

গুলশান, বনানী ও বাড়িধারা লেকে মাছ চাষ করা হবে: মেয়র আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশের সময় : ১০ নভেম্বর, ২০২২, ৪:০১ পিএম

রাজধানীর গুলশান, বনানী ও বাড়িধারা লেকের দূষণ রোধ করে মাছ চাষ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার মৎস্য অধিদপ্তর আয়োজিত জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২২ এর সমাপ্তি উপলক্ষ্যে রাজধানীর কুড়িল লেকে মাছের অবমুক্তকরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে ডিএনসিসি মেয়র কুড়িল লেকে মাছের পোনা অবমুক্ত করেন। রুই, কাতলা, কালিবাউশ, মৃগেল এই চার প্রজাতির মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়। কুড়িল লেকে প্রাকৃতিক পরিবেশে বড়ো হবে এগুলো।


আতিকুল ইসলাম বলেন, আমরা নিয়মিত লেক পরিষ্কার করছি, খাল ও ড্রেন পরিষ্কার করছি। কিন্তু বাসা-বাড়ির পয়ঃবর্জ্যের লাইন খালে গিয়ে প্রতিনিয়ত খালের পানিকে দূষিত করছে। দূষণের ফলে খালে মাছের চাষ করতে পারছি না, সেখানে মশার চাষ হচ্ছে। এটি আর হতে দেয়া যাবে না।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, শুধু কুড়িল লেকে নয়। পর্যায়ক্রমে সবগুলো লেকে মাছ চাষ করা হবে। গুলশান, বনানী, বাড়িধারা ও নিকেতন এলাকার লেকগুলোতে মাছ চাষ করার বিষয়ে মৎস্য অধিদপ্তরের সাথে কথা বলেছি। অধিদপ্তর আমাকে জানিয়েছে এসব লেকের পানি দূষিত। এগুলো মাছ মারা যাবে। অতএব লেকের পানি দূষণ থেকে রক্ষা করতে হবে। পয়ঃবর্জ্যের লাইন লেকে দেয়া যাবে না। বাসা-বাড়িতে অ্যাট সোর্সে পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনা করতে হবে। আমাদের সিটি কর্পোরেশনের টিম বাড়ি বাড়ি গিয়ে পয়ঃবর্জ্যের লাইন পরিদর্শন করছে। পয়ঃবর্জ্যের লাইন ড্রেনে বা খালে পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মেয়র আতিক বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একদিকে যেমন পদ্মাসেতু ও বঙ্গবন্ধু টানেলের মতো মেগা প্রকল্প নির্মাণ করছেন অন্যদিকে পশুপালন, মৎস্য চাষ ও কৃষির উন্নয়ন করে চলেছেন। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। সবাইকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মেনে পশুপালন, মৎস্য চাষ ও কৃষির প্রতি গুরুত্বারোপ করতে হবে। চাষযোগ্য জমিতে চাষ করতে হবে। জলাশয়, লেক, পুকুরে মাছ চাষ করতে হবে।

শহরের জলাধার ভরাট করে ভবন নির্মাণ করতে দেয়া হবে না উল্লেখ করে মেয়র বলেন, কুড়িল ফ্লাইওভার সংলগ্ন জলাধার ভরাট করে পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণ কাজ শুরু হলে আমি জনগনকে সঙ্গে নিয়ে সেটি বন্ধ করে দেই। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে লাউতলা খাল উদ্ধার করে পানির প্রবাহ নিশ্চিত করেছি। শহরে জলাধার, লেক ভরাট করে ভবন নির্মাণ করতে দেয়া হবে না। রাতের আধারে জলাধারে বালু ভরাট করে ভবন নির্মাণ করলে জনগণ সেটি মানবে না। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য জলাধার ও লেকগুলোকে বাঁচাতে হবে।

ডিএনসিসি মেয়র আরও বলেন, 'শহরকে বাঁচাতে হলে সবাইকে সচেতন হতে হবে। শহরকে, দেশকে মনে প্রাণে ভালোবাসতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারনে নভেম্বর মাসেও ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়েছে। ড্রেন বা নর্দমার পানিতে কিন্তু এডিস মশার জন্ম হয় না। জমে থাকা স্বচ্ছ পানিতেই এডিসের লার্ভা জন্মায়। নিজেদের বাসাবাড়িতে ফুলের টব, অব্যবহৃত টায়ার, ডাবের খোসা, চিপসের খোলা প্যাকেট, বিভিন্ন ধরনের খোলা পাত্র, ছাদ কিংবা অন্য কোথাও যেন পানি জমে না থাকে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। জমে থাকা স্বচ্ছ পানি ফেলে দিন।

কুড়িল মোড় এলাকায় স্থান নির্বাচন করে একটি কমিউনিট সেন্টার ও খেলার মাঠ নির্মাণ করা হবে বলেও জানান ডিএনসিসি মেয়র আতিক।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
hassan ১০ নভেম্বর, ২০২২, ৫:০০ পিএম says : 0
এতদিন মাছ চাষের কথা মনে ছিল না কেন যখনই ইলেকশন আসে তার আগে কত ধরনের ধান্দাবাজি কথা আরম্ভ হয়ে যায় ইসলামী ইলেকশন নেই ইসলামে হয় সিলেকশন যে যত কোরআন হাদিস জানবে এবং ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স জানবে তাকেই বাংলাদেশের ইমাম বানানো হবে এবং সে কোরআন দিয়ে দেশ শাসন করবে তাহলে দেশ উন্নত হবে চোর বাটপার আর এ দেশ চালাতে পারবে না এ দেশ ছেড়ে পালিয়ে যাবে আরজে চোরকে আমাদের টাকা পয়সা লুটপাট করেছে সব টাকা পয়সা ফেরত নিয়ে আসবো
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন