বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯, ১৬ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ইমরান খানের হুমকিতে বেসামাল পাকিস্তানের সরকার, শর্ত ছাড়াই আলোচনায় রাজি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ ডিসেম্বর, ২০২২, ১:৫৭ পিএম

অবিলম্বে নির্বাচন ঘোষণা না হলে দু’দু’টি প্রদেশে সরকার ভেঙে দেয়ার হুমকি দিয়েছিলেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এই অবস্থায় তার দল পাকিস্তান তেহেরিক-ই ইনসাফ বা পিটিআই-কে আলোচনার জন্য ডেকে পাঠাল পাকিস্তানের সরকার। তবে সেখানে কোনও ‘শর্ত’ রাখা যাবে না বলে জানিয়েছেন শাহবাজ শরিফ সরকার।

শনিবার এ ইস্যুতে সাংবাদিক সম্মেলনে করেন পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ। সেখানে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের দিন ঘোষণা নিয়ে বিরোধীদল পিটিআই-র সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসা উচিত। আর এক্ষেত্রে সরকারের কোনও আপত্তি নেই। তবে হুমকি আর আলোচনা একসঙ্গে চলতে পারে না।’ তাই কোনও রকম শর্ত ছাড়াই আলোচনা হতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। এই খবর প্রকাশিত হওয়া পর্যন্ত এই নিয়ে পিটিআই-র তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়া হয়নি।

২০২৩-র এপ্রিলে পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু চলতি বছরে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে যাওয়ার পরই নির্বাচন এগিয়ে আনার জন্য চাপ দিচ্ছিলেন ইমরান খান। সরকারের উপর চাপ বাড়াতে ইসলামাবাদ পর্যন্ত বিরাট মিছিলও করেছেন তিনি। সেই মিছিলে ইমরান গুলিবিদ্ধ হওয়ায় চাপ পড়ে যায় শাহবাজ শরিফ সরকার। এই আবহে শুক্রবার পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান ঘোষণা করে দেন, অবিলম্বে নির্বাচনের দিন ঘোষণা না হলে তার দলের সমস্ত বিধায়করা গণইস্তফা দেবেন। পাকিস্তানের পাঞ্জাব এবং খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে ইমরানের দলের সরকার রয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের দাবি, পিটিআই-র বিধায়করা গণইস্তফা দিলে পাকিস্তানে রাজনৈতিক সঙ্কট তৈরি হবে। সেক্ষেত্রে দু’দু’টি প্রদেশে পড়ে যাবে সরকার। সেই কারণে এরকম বাধ্য হয়েই ইমরানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চাইছে শাহবাজ শরিফ সরকার। শনিবার এই নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে পাকিস্তানের রেলমন্ত্রী খোয়াজা সাদ রফিক বলেন, ‘সমঝোতা রাজনীতির অঙ্গ। জটিল সমস্যা সমাধানে এই পদ্ধতি বারবার ব্যবহার করা হয়েছে। তবে ইমরানের দলকে এবার ঠিক করতে হবে, তারা কখন কথা বললেন এবং কী নিয়ে কথা বলবেন। আলোচনার টেবিলে এসে গুটিয়ে গেলে চলবে না। আমরাও খোলা মনে সবটা বুঝে নিতে চাই।’

শনিবার পাকিস্তানের নতুন সেনাপ্রধান জেনারেল আসিম মুনিরকে রাজনৈতিক আক্রমণ না করার জন্য দলের নেতা-কর্মী ও সোশাল মিডিয়া টিমকে নির্দেশ দেন ইমরান খান। তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন জেনারেল মুনির পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-র ডিরেক্টর জেনারেল পদে ছিলেন। ওই সময় মাত্র ৮ মাসের মাথায় ইমরান খানই সরিয়ে দিয়েছিলেন তাকে। সূত্র: টিওআই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন