বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ০৫ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

১৪০টিরও বেশি সামরিক স্থানে রাশিয়ার হামলা

২৫০ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত বেসামরিকদের উপর ইউক্রেনের গোলাবর্ষণ নিয়ে বিদেশী মিডিয়া নীরব রয়েছে : পুতিন যুদ্ধ করতে অস্বীকার করছে বেশিরভাগ ইউক্রেনীয় সেনা প্যাট্রিয়ট সহ ইউক্রেনকে ১৮০ কোটি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

রাশিয়ার সৈন্যরা গত দিনে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযানের সময় ১৪০টিরও বেশি এলাকায় ইউক্রেনের জনশক্তি এবং সামরিক সরঞ্জাম এবং ৬০টিরও বেশি শত্রু আর্টিলারি ইউনিট নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট-জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ মঙ্গলবার রিপোর্ট করেছেন। ‘রাশিয়ান অপারেশনাল-কৌশলগত বিমান, ক্ষেপণাস্ত্র সৈন্য এবং আর্টিলারি লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিকের নেভসকোয়ে বসতির কাছে ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীর একটি গোলাবারুদ ডিপো, গুলি চালানোর অবস্থানে থাকা ৬৪টি আর্টিলারি ইউনিট এবং ১৪৩টি এলাকায় জনশক্তি এবং সামরিক হার্ডওয়্যার ধ্বংস করেছে,’ মুখপাত্র বলেছেন।
তিনি রিপোর্ট করেছেন, গত দিনে কুপিয়ানস্ক এলাকায় রাশিয়ার সেনাবাহিনীর বিমান ও কামান প্রায় ৩০ ইউক্রেনীয় সেনাকে ধ্বংস করেছে। পাশাপাশি, ক্র্যাসনি লিমান এলাকায় ইউক্রেনীয় জনশক্তিকে আক্রমণ করেছে এবং তিনটি শত্রু বিধ্বংসী গোষ্ঠীকে নির্মূল করেছে। ‘গত ২৪-ঘন্টা সময়ের মধ্যে সেই এলাকায় শত্রুদের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৫০ জন সৈন্য, দুটি যুদ্ধের সাঁজোয়া যান এবং তিনটি পিকআপ ট্রাক,’ তিনি উল্লেখ করেছেন। রাশিয়ান বাহিনী ডোনেৎস্ক এলাকায় তাদের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রেখেছে, গত দিনে ১০০ জনেরও বেশি ইউক্রেনীয় সেনাকে নির্মূল করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন, তারা দুটি ইউক্রেনীয় সেনা ব্রিগেডের স্থাপনা ধ্বংস করেছে। ‘গত ২৪ ঘন্টায়, সেই এলাকায় শত্রুদের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৭০ ইউক্রেনীয় কর্মী নিহত ও আহত হয়েছে, তিনটি যুদ্ধের সাঁজোয়া যান এবং দুটি পিকআপ ট্রাক,’ কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন।

তিনি বলেন, রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী গত দিনে ইউক্রেনের পাঁচটি চালকবিহীন আকাশযান ধ্বংস করেছে এবং রাশিয়ান মহাকাশ বাহিনীর যুদ্ধবিমান গত দিনে ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের দুটি মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান এবং ইউক্রেনীয় বিমান বাহিনীর একটি এমআই-৮ হেলিকপ্টার ভূপাতিত করেছে। রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী উগলেদার শহরের কাছে গত দিনে একটি সু-২৫ গ্রাউন্ড অ্যাটাক প্লেন এবং ইউক্রেনের বিমান বাহিনীরেআরেকটি এমআই-৮ হেলিকপ্টার গুলি করে ভূপাতিত করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন, রাশিয়ান বাহিনী গত দিনে ডোনেটস্ক পিপলস রিপাবলিকের ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর একটি মার্কিন তৈরি কাউন্টার-ব্যাটারি রাডার ধ্বংস করেছে। এছাড়াও, ডিপিআর-এ ইউক্রেনকার এলাকায়, মধ্য ইউক্রেন থেকে পুনরায় স্থাপন করা ইউক্রেনীয় এস-৩০০ সারফেস-টু-এয়ার মিসাইল সিস্টেমের দুটি রাডার স্টেশন উন্মোচিত এবং ধ্বংস করা হয়েছে, জেনারেল যোগ করেছেন।

সব মিলিয়ে, ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনী ৩৪৭টি ইউক্রেনীয় যুদ্ধবিমান, ১৮৬টি হেলিকপ্টার, ২,৬৮৯টি মনুষ্যবিহীন আকাশযান, ৩৯৮টি সারফেস টু এয়ার মিসাইল সিস্টেম, ৭,১৬৮টি ট্যাঙ্ক এবং যুদ্ধের অন্যান্য সাঁজোয়া যান, ৯৩১টি মাল্টিপল রকেট লঞ্চার, ৩,৬৯৩টি ফিল্ড আর্টিলারি ও মর্টার এবং ৭,৬৭৪টি বিশেষ সামরিক মোটর যান ধ্বংস করেছে, কোনাশেনকভ রিপোর্ট করেছেন।
বেসামরিকদের উপর ইউক্রেনের গোলাবর্ষণ নিয়ে বিদেশী মিডিয়া নীরব রয়েছে : বিদেশী মিডিয়া এবং মানবাধিকার সংস্থাগুলো ডোনেৎস্কে বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে ইউক্রেনের গোলাবর্ষণ হামলার বিষয়ে নীরব রয়েছে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন মঙ্গলবার ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিক (ডিপিআর) এর ভারপ্রাপ্ত প্রধান ডেনিস পুশিলিনের সাথে আলোচনার সময় বলেছেন। ‘আমি এই বিষয়টির প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করছি যে, একটিও বিদেশী মিডিয়া আউটলেট বা মানবাধিকার সংস্থা এই বিষয়ে নীরবতা ভঙ্গ করেনি,’ ডোনেৎস্কে তীব্র গোলাবর্ষণের আক্রমণের বিষয়ে মন্তব্য করে পুতিন বলেছেন। এ বিষয়ে পুশিলিন বলেছিলেন যে, পরিস্থিতি ২০১৪ সাল থেকে পরিস্থিতি এমনই ছিল।

‘আসুন সত্যের মুখোমুখি হই: ডনবাস শান্তিপূর্ণভাবে সংঘাতের সমাধান করতে চেয়েছিল, এবং রাশিয়াও করেছিল, যারা একটি গ্যারান্টার জাতি হিসাবে তার ক্ষমতার মধ্যে সবকিছুই করছিল এবং আরও অনেক কিছু। যদি আমরা কেবল তখনই ভবিষ্যদ্বাণী করতে পারি - আমরা যা দেখেছি তার উপর ভিত্তি করে আলোচনা - যে ইউরোপ এবং পশ্চিমকে বিশ্বাস করা যায় না,’ পুশিলিন বলেছেন, সাবেক জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলের সাম্প্রতিক স্বীকারোক্তিতে তিনি হতবাক হয়েছিলেন। ‘তারা বলেছে যে, তারা কোনো প্রতিশ্রুতিকে সম্মান করার পরিকল্পনা করছে না, তারা শুধুমাত্র কালক্ষেপণ করার জন্য, (এবং) ইউক্রেনকে পুনরায় অস্ত্র দেয়ার জন্য নথিতে স্বাক্ষর করেছে,’ পুতিন বলেছিলেন।

যুদ্ধ করতে অস্বীকার করছে বেশিরভাগ ইউক্রেনীয় সেনা : ‘আখমত’ বিশেষ বাহিনী ইউনিটের কমান্ডার এবং দ্বিতীয় এলপিআর পিপলস মিলিশিয়া আর্মি কর্পসের ডেপুটি হেড অপটি আলাউদিনভ বলেছেন, ইউক্রেনীয় সেনারা যুদ্ধ করতে এবং ব্যাপকভাবে সামনের সারিতে থাকতে অস্বীকার করে।

‘আমরা এমন একটি পরিস্থিতি লক্ষ্য করছি যেখানে শত্রুরা যুদ্ধ করতে এবং সম্মুখ সারিতে থাকতে অস্বীকার করতে শুরু করেছে। আমাদের কাছে ভিডিও ফুটেজে দেখা যাচ্ছে যে তারা তাদের যোদ্ধাদের নিয়ে যাচ্ছে যারা আক্রমণ করতে অস্বীকার করে এবং তাদের হত্যা করছে,’ আর্টিওমভস্ক এবং সোলেদারের কাছাকাছি পরিস্থিতি নিয়ে মন্তব্য করে মঙ্গলবার রাশিয়ান টিভিতে আলাউদিনভ বলেছেন। আলাউদিনভের মতে, রাশিয়ান বাহিনী পুরো যোগাযোগ লাইন জুড়ে অগ্রসর হচ্ছে, নতুন জেলা মুক্ত করছে। ‘ইয়াকভলেভকা সম্পূর্ণরূপে মুক্ত করা হয়েছে; সোলেদারে আমাদের খুব ভাল অগ্রগতি হয়েছে, আমরা একটি বড় অঞ্চল মুক্ত করেছি। পুরো যোগাযোগ লাইনটি একটি ভাল হারে চলছে। পুরো ফ্রন্ট লাইনটি টেকসই, স্থিতিশীল এবং প্রতিদিন অগ্রসর হচ্ছে, নতুন এলাকাগুলিকে মুক্ত করছে রুশ সেনা,’ আলাউদিনভ বললেন।

প্যাট্রিয়ট সহ ইউক্রেনকে ১৮০ কোটি ডলারের সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন কর্মকর্তা বলেছেন যে, প্রেসিডেন্ট বাইডেনের প্রশাসন শীঘ্রই কিয়েভের জন্য ১৮০ কোটি ডলারের সামরিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা করবেন, যার মধ্যে প্রথমবারের মতো একটি প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ব্যাটারি এবং ইউক্রেনের যুদ্ধবিমানগুলির জন্য গাইডেড মিসাইল অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

মার্কিন কর্মকর্তারা মঙ্গলবার নাম প্রকাশ না করার শর্তে সহায়তা প্যাকেজের বিশদ বর্ণনা করেছেন, অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস জানিয়েছে। এপির মতে, বিডেন কর্তৃক ঘোষিত ১৮০ কোটি ডলারের সহায়তা প্যাকেজটি রাশিয়ান ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ক্রমবর্ধমান ব্যারাজের বিরুদ্ধে দেশের বিমান প্রতিরক্ষাকে শক্তিশালী করতে ইউক্রেনকে যে ধরণের উন্নত অস্ত্র পাঠাচ্ছে তার সম্প্রসারণের ইঙ্গিত দেয়। এপি অনুসারে বুধবার ঘোষণা করা এই প্যাকেজটিতে পেন্টাগন স্টক থেকে প্রায় ১০০ কোটি ডলারের অস্ত্র এবং ইউক্রেন সিকিউরিটি অ্যাসিসটেন্স ইনিশিয়েটিভের মাধ্যমে আরও ৮০ কোটি ডলারের সহায়তা অন্তর্ভুক্ত থাকবে, যা অস্ত্র, গোলাবারুদ, প্রশিক্ষণ এবং অন্যান্য সহায়তা তহবিল দেয়।

প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা পাঠানোর বাইডেন প্রশাসনের সিদ্ধান্ত রাশিয়ান হুমকি সত্ত্বেও এসেছে যে এই ধরনের একটি উন্নত সারফেস-টু-এয়ার মিসাইল ব্যাটারি সরবরাহ করা একটি উত্তেজক পদক্ষেপ হিসাবে বিবেচিত হবে এবং সিস্টেম - এবং এর সাথে থাকা কোনও ক্রু মস্কোর সামরিক বাহিনীর বৈধ লক্ষ্য হবে। প্যাট্রিয়ট কখন ইউক্রেনে পৌঁছাবে তা অজানা এবং মার্কিন বাহিনীকে অবশ্যই ইউক্রেনীয়দের উচ্চ-প্রযুক্তি ব্যবস্থা ব্যবহার করতে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। এই প্রশিক্ষণে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে এবং জার্মানির গ্রাফেনউয়ার ট্রেনিং এরিয়াতে এটি গ্রহণ করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইউক্রেন বাহিনীর সমস্ত মার্কিন ও পশ্চিমা মিত্রদের প্রশিক্ষণ ইউরোপীয় দেশগুলিতে হয়েছে।

জেলেনস্কি এবং অন্যান্য ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা পশ্চিমা নেতাদেরকে আরো উন্নত অস্ত্র সরবরাহ করার জন্য চাপ দিয়েছেন, বিশেষ করে বিমান প্রতিরক্ষার জন্য, এবং প্যাট্রিয়ট হবে সবচেয়ে উন্নত সারফেস থেকে এয়ার মিসাইল সিস্টেম যা পশ্চিম ইউক্রেনকে রাশিয়ার বিমান হামলা প্রতিহত করতে সাহায্য করেছে। ওয়াশিংটন ইউক্রেনকে মার্কিন ফাইটার জেট দিতে নারাজ এবং মস্কো সতর্ক করেছে যে, উন্নত বিমানগুলিও উস্কানিমূলক বলে বিবেচিত হবে।

যুক্তরাষ্ট্র সফরে জেলনস্কি, ভাষণ দেবেন কংগ্রেসে : ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বুধবার হোয়াইট হাউসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সাথে দেখা করতে এবং কংগ্রেসে ব্যক্তিগতভাবে ভাষণ দেয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্র সফর করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। হোয়াইট হাউসে চারজন কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই কর্মকর্তারা জানিয়েছেন যে, পরিকল্পনাগুলি চূড়ান্ত নয় এবং পরিবর্তন হতে পারে। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক হামলা শুরুর পর এটি হবে প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির প্রথম বিদেশ সফর। নিরাপত্তা উদ্বেগের কারণে এ সফরের বিস্তারিত সরকারিভাবে এখনও প্রকাশ করা হয়নি। এ সফরে গুরুত্ব পাবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিশ্রুত প্যাট্রিয়ট মিসাইল সিস্টেম দেয়ার বিষয়টি। ছাড়া বিভিন্ন প্রতিরক্ষা সহায়তা প্যাকেজের বিষয়েও আলাপ হবে বলে জানানো হয়।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারা দুই প্রেসিডেন্টের মধ্যে বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করতে অস্বীকার করেন। ধারণা করা হচ্ছে, কংগ্রেসের একটি বিশেষ অধিবেশন আয়োজন করা হতে পারে। এর আগে মঙ্গলবার ক্যালিফোর্নিয়ার স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি হাউসের সমস্ত আইনপ্রণেতাদের কাছে একটি চিঠি পাঠিয়েছিলেন যাতে তারা বুধবার রাতের অধিবেশনে ব্যক্তিগতভাবে উপস্থিত থাকেন।

ইউক্রেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে উন্নত দূরপাল্লার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে আসছে, যা ব্যালিস্টিক এবং ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র আটকাতে অত্যন্ত কার্যকর। কেননা ইউক্রেনে হামলার জন্য রাশিয়া যেসব ক্ষেপণাস্ত্র এবং ড্রোন ব্যবহার করছে তা আটকাটে সক্ষম এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। এটি হবে দেশটিতে পাঠানো সবচেয়ে কার্যকর দূরপাল্লার প্রতিরক্ষামূলক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা। কর্মকর্তারা বলেছেন, এটি পূর্ব ইউরোপে ন্যাটো দেশগুলোর জন্য নিরাপদ আকাশপথ সুরক্ষা নিশ্চিত করবে। কতগুলো ক্ষেপণাস্ত্র লঞ্চার পাঠানো হবে তা এখনো স্পষ্ট নয়। সূত্র : তাস, নিউইয়র্ক টাইমস, সূত্র: আল-জাজিরা, বিবিসি নিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (9)
Shohel Ahmmed ২২ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:২৯ এএম says : 0
রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধে রাশিয়ার জয় হবে
Total Reply(0)
Shohel Ahmmed ২২ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:৩০ এএম says : 0
ইউক্রেনের উচিত এখনই যুদ্ধ বন্ধ করা। নয়তো তাদেরই সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হবে
Total Reply(0)
Ahmmed ২২ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:৩১ এএম says : 0
বিশ্ব শাষকদের উচিত এ যুদ্ধ বন্ধ করার ব্যবস্থা করা। এ যুদ্ধ বন্ধ হলে তাদেরসহ সারা বিশ্বেরই ভালো হবে
Total Reply(0)
aman ২২ ডিসেম্বর, ২০২২, ৮:৩২ এএম says : 0
মহান আল্লাহ যেন তাদেরকে ভালো বুঝ দান করেন
Total Reply(0)
Syed jahangir ali ২২ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:৩৬ পিএম says : 0
রাশিয়ার জয় কামনা করি۔
Total Reply(0)
Syed jahangir ali ২২ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:৩৬ পিএম says : 0
রাশিয়ার জয় কামনা করি۔
Total Reply(0)
Syed jahangir ali ২২ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:৩৬ পিএম says : 0
রাশিয়ার জয় কামনা করি۔
Total Reply(0)
মিশকাত ২৩ ডিসেম্বর, ২০২২, ৬:৫৭ এএম says : 0
রাশিয়ার সঙ্গে সকল মুসলিম শাসকদের সহযোগিতা করা উচিত
Total Reply(0)
মিশকাত ২৩ ডিসেম্বর, ২০২২, ৬:৫৭ এএম says : 0
রাশিয়ার সঙ্গে সকল মুসলিম শাসকদের সহযোগিতা করা উচিত
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন