ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭, ১৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

জনতার জাগরণ সৃষ্টি হলে স্বৈরশাসকের পতন অনিবার্য -ডা. জাফরুল্লাহ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ মার্চ, ২০১৮, ৫:৫৫ পিএম

বর্তমান সরকার যত চেষ্টাই করুক না কেন তাদের অবৈধ ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, সরকার ‘ঘুষ’ দিয়ে ক্ষমতায় টিকে আছে, শুধু ঘুষ দিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না। জনতার জাগরণ সৃষ্টি হলে সকল স্বৈরশাসকের পতন অনিবার্য। বর্তমান সরকার যত চেষ্টাই করুক না কেন তাদের অবৈধ ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে পারবে না। আওয়ামী লীগের চরম ব্যর্থতার কারণে আজকে দেশের মানুষ মুক্তি চায়।

রোববার তোপখানাস্থ শিশুকল্যাণ মিলনায়তনে বিশিষ্ট কমিউনিস্ট নেতা কমরেড আলাউদ্দিন আহমেদের ১৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।‘জনগণের মুক্তি : চলমান সংকট ও আলাউদ্দিন আহমেদ’ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করে স্বপন স্মৃতি পরিষদ।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, প্রতি মুহূর্ত মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে মুখে ফেনা তুললেও মুক্তিযুদ্ধে চেতনা বাস্তবায়নে সরকার ব্যর্থ। সরকার ৩০ লক্ষ শহীদের তালিকা করতে পারে নাই, রাজাকারের তালিকা করতে পারে নাই, এমনকি মুক্তিযোদ্ধাদেরও একটি সঠিক তালিকা তারা প্রণয়ন করতে পারে নাই। পারে নাই সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে।

২০ দলীয় জোট নেতাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বেগম জিয়ার জেলের সাথে নির্বাচনের সম্পর্ক নাই। বেগম জিয়াকে মুক্তি না দিলেও বিএনপি ও ২০ দলের নির্বাচনে অংশগ্রহণের ঘোষণা দেয়া উচিত। মনে রাখতে হবে হবে সরকার ভিতর থেকে দুর্বল হয়ে পড়েছে। জনতার জাগরণ সৃষ্টি হলে অসমতল সমতল হয়ে যাবে। জনজোয়ারে কোনো ষড়যন্ত্র টিকে থাকে না।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ ও ভারতীয় ‘র’, বিএনপি ও ২০ দল যাতে নির্বাচনে না আসে সেই পথই সৃষ্টি করছে। সুতরাং আওয়ামী লীগের ছলনায় ধরা দেয়া যাবে না। আওয়ামী লীগ বা ‘র’ এর তৈরি পথে হাঁটলে সমূহ বিপদের সম্ভাবনা রয়েছে।

তিনি বলেন, কমরেড আলাউদ্দিন ছিলেন মাটি মানুষের নেতা। মওলানা ভাসানীর নেতৃত্বে তিনি গণমানুষের মুক্তির জন্য আজীবন লড়াই করে গেছেন। আমাদের স্বার্থে, আগামী প্রজন্মের স্বার্থেই মওলানা ভাসানী-অলি আহাদ-ভাষা মতিন-কমরেড আলাউদ্দিনদের স্মরণ করতে হবে।

সংগঠনের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মো. শহীদুননবী ডাবলু'র সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন পিডিবি মহাসচিব এহসানুল হক সেলিম, বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, কমরেড আলাউদ্দিনের জ্যেষ্ঠ কন্যা কবি আফরোজা অদিতি, লেবার পার্টি মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, নাজিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খান, কল্যাণ পার্টি ভাইস চেয়ারম্যান সাহিদুর রহমান তামান্না, ন্যাপ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভূঁইয়া, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Mohammed Shah Alam Khan ২৬ মার্চ, ২০১৮, ১০:৫৮ পিএম says : 0
গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী তিনি বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী তাই তিনি বার বার বিএনপি দলকে বিভিন্ন উপদেশ দিয়ে থাকেন পত্রিকা মাধ্যমে। আমার দৃষ্টিকোন থেকে তার উপদেশ খুবই গ্রহণযোগ্য উপদেশ হবার পরও খালেদা জিয়া ওনার কোন উপদেশ নেন না। তারপরও তিনি বার বার তার কথা বলে যাচ্ছেন এটা আমার কাছে খুবই ভাল লাগে এই ভেবে যে তিনি তার নীতিতে অটল। কেহ তার কথা শুনল কিংবা শুনল না এটা তার যায় আসেনা তিনি ভাল কথা বলেই যাবেন সেটা উলুবনে মুক্ত ছড়ানোই হউক না কেন তাই না?? একই ভাবে আজও তিনি কিছু বলার সুযোগ পেয়েই খুবই সত্য কথা বলেছেন বিএনপির উদ্দেশ্যে, আমার বিশ্বাস বিএনপি তার কথা শুনলে অবশ্যই ওদের মঙ্গল হবে এটাই সত্য। আমি অবশ্য জানি এসব কথা তিনি বার বার তার কথা না শুনার পরও তিনি কেন বলে যাচ্ছেন। আমার জাফরুল্লাহ চৌধুরীর জন্য সত্যই দুঃখ হয়। শেষ বয়সে এসেও এখনও তিনি বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের দরদী বা উপদেষ্টা হতে পারলেন না। .......... আল্লাহ আমাদের সবাইকে যার যার পথে আল্লাহর দেখানো সঠিক পথে সঠিক ভাবে চলার ক্ষমতা দান করুন। আমীন
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন