ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

আরও সাড়ে ২৮ একর জমি পাচ্ছে মেট্রোরেল

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ এপ্রিল, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে মেট্রোরেলের কাজ। ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের (এমআরটি লাইন-৬) প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট প্ল্যনের অধীনে আরও ২৮ দশমিক ৬১৭ একর ভূমি বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। মেট্রোরেল প্রকল্পের ট্রানজিট ওরিয়েন্টেড ডেভেলপমেন্ট (টিওডি) এবং স্টেশন প্লাজা নির্মাণের জন্য এ জমি ব্যবহার করা হবে। এজন্য রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) কাছে সংস্থাটির উত্তরা তৃতীয় পর্বের উত্তরা সেন্টার স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় এ পরিমাণ জমি চাওয়া হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এমআরটি লাইন-৬-এর পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এনকেডিএম অ্যাসোসিয়েশনের পরামর্শ অনুযায়ী মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষের আবেদনের পর রাজউক ভূমি বরাদ্দের প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এরই মধ্যে রাজউকের সার্ভেয়ার সরেজমিন পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দাখিল করেছেন।
জানা গেছে, প্রকল্পের প্রস্তাবিত নকশা অনুযায়ী এরিয়া ‘এ’-এর আয়তন এক দশমিক ৮৩২ একর। যা উত্তরা সেন্টার সংলগ্ন অ্যাভিনিউ-২ বা এমআরটি লাইন-৬-এর পূর্বপাশে অবস্থিত। রাজউক অনুমোদিত লে-আউট নকশায় এটি বাণিজ্যিক হিসেবে চিহ্নিত রয়েছে।
এরিয়া ‘বি’-এর আয়তন ৫ দশমিক ২০ একর। যা এমআরটি লাইন-৬ বা উত্তরা সেন্টার সংলগ্ন অ্যাভিনিউ-২-এর পশ্চিম পাশে অবস্থিত। এই অংশের উত্তর পাশে রাজউক উত্তরা তৃতীয় পর্বের সাইট অফিসের জন্য সংরক্ষিত ১ দশমিক ৬৬ বিঘা, দক্ষিণ পাশে রাজউক বরাদ্দকৃত প্রাতিষ্ঠানিক প্লট সিমেক ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির নামে বরাদ্দ শূন্য দশমিক ৮৫ বিঘা জমি রয়েছে। এ প্লটটির সব টাকা পরিশোধিত এবং দখল কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বাকি ২ দশমিক ৫১ বিঘা জমি বাণিজ্যিক হিসেবে চিহ্নিত রয়েছে।
এছাড়া এরিয়া ‘সি’ উত্তরা সেন্টার প্লাজা হিসেবে চিহ্নিত। প্রস্তাব অনুযায়ী এতে ২১ দশমিক ৭৬৫ একর জমি রয়েছে। সব মিলিয়ে এ তিনটি অংশে ২৮ দশমিক ৬১৭ একর জমি অধিগ্রহণের প্রস্তাব করা হয়েছে। গত ১২ মার্চ রাজউকের চারজন সার্ভেয়ার সরেজমিন পরিদর্শন করে রাজউকের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

 

 

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন