ঢাকা, বুধবার ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, ২২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

পুলিশ ধর্ষণ করে ভেন্টিলেটর দিয়ে নিক্ষেপ করল

আরো শিকার ২ আটক ৪ : পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ মে, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

ধর্ষণের পর স্কুলছাত্রীকে ঘরের ভেন্টিলেটর দিয়ে বাইরে ফেলে দিয়েছে পুলিশের এক সদস্য। এতে ধর্ষণের শিকার মেয়েটির হাড় ভেঙে গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে মাদারীপুর পৌরসভার টিবি ক্লিনিক সড়কে। এছাড়া রাজশাহীর দুর্গাপুরে এক গৃহবধূ ও মুন্সীগঞ্জে পাঁচ বছর বয়সী এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এদিকে নরসিংদীর রায়পুরায় ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনায় একজনসহ বিভিন্ন স্থানে চারজনকে আটক করেছে আইন শৃঙ্খলাবাহিনী।
মাদারীপুর : মাদারীপুরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মোক্তার হোসেন নামের এক পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এই ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লাকে প্রধান করে দুই সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। নির্যাতিত স্কুলছাত্রীকে রোববার রাতে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
জানা গেছে, মাদারীপুর পৌরসভার টিবি ক্লিনিক সড়কে এক স্কুলছাত্রীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে মোক্তার হোসেন নামের এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় নির্যাতিত স্কুলছাত্রীকে গত রোবাবর রাতে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাদারীপুর পুলিশ লাইনের পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন দীর্ঘদিন থেকে শহরের টিবি ক্লিনিক সড়কে ভাড়া থাকেন। কয়েক দিন আগে মোক্তারের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী গ্রামের বাড়ি চলে যান। এই সুযোগ রোববার রাতে শহরের টিভি ক্লিনিক সড়কের প্রতিবেশী এক স্কুলছাত্রীকে ঘরে ডেকে নেন। এসময় দরজা বন্ধ করে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেন। পরে পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন স্কুলছাত্রীকে পেছনের ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দেন। এতে করে স্কুলছাত্রীর গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।
নির্যাতিত স্কুলছাত্রী ভাষ্যমতে, ‘ মোক্তার হোসেন আমাকে তার ঘরে ডেকে নিয়ে দরজা বন্ধ করে আমার সাথে খারাপ কাজ করেছে। পরে স্থানীয়রা টের পেয়ে বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দিলে আমাকে তিনি ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দেন। এতে আমার পায়ের হার ভেঙে গেছে। এর আগে তিনি আমাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়েছেন।’ মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক শশাঙ্ক ঘোষ বলেন, ‘ধর্ষণের অভিযোগে একটি মেয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।’
অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমাকে শুধু শুধু স্থানীয়রা ঘরের বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দিয়েছিল।’ মাদারীপুরের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, ‘এই ঘটনায় দুই সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
রায়পুরা (নরসিংদী) : নরসিংদীর রায়পুরায় পূবেরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত মুজিবুর রহমানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই তিনি আত্মগোপনে ছিলেন।
গতকাল সোমবার সকালে সিলেট থেকে ফেরার পথে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার হাঁটুভাঙা রেলস্টেশন থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। পরে পুলিশ জানায়, মুজিবর রহমান এতোদিন সিলেট, মৌলভীবাজার ও সুনামগঞ্জের বিভিন্নস্থানে আত্মগোপনে ছিলেন।
জানা গেছে, বাড়ির পাশের সবজি ক্ষেতে করলা তুলতে যায় ওই ছাত্রী। এ সময় ওই ছাত্রীকে জমির পাশে নির্জন একটি ঝোপে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এ সময় মেয়েটির চিৎকার শুনে আশপাশের কৃষকরা ছুটে এলে ঘটনাস্থল থেকে মজিবুর পালিয়ে যান। ঘটনার পরদিন রাতে ধর্ষিতার মা হনুফা বেগম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে জোরপূর্বক ধর্ষণের দায়ে মজিবুরকে আসামি করে রায়পুরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
মুন্সীগঞ্জ : মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বালুয়াকান্দি ইউনিয়নের বড়রায় পাড়া গ্রামে পাঁচ বছর বয়সী এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এই ঘটনায় ঐ গ্রামের বাসিন্দা কিশোর ইসমাইলকে আটক করেছে পুলিশ। গত রোববার দুপুর আনুমানিক আড়াইটার সময় এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে গজারিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন।
আমতলী, (বরগুনা) : বরগুনার আমতলী উপজেলায় হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর রাওঘা গ্রামে তিন সন্তানের জনক কালাম মুন্সী (৪৫) নামে এক ব্যক্তিকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনা সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার রাতে শিশুটির মা বাড়িতে না থাকায় তার ছোট ভাইকে নিয়ে বাসায় ছিল সে। এ সুযোগে কালাম মুন্সী শিশুটির সঙ্গে লুডু খেলতে বসে। কিছুক্ষণ পর তার ভাই ঘুমিয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে অভিযুক্ত কালাম মুন্সী শিশুটিকে জাপটে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা চেলায়। শিশুটি তার পাশবিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে চিৎকার করলে এলাকার লোকজন এগিয়ে আসলে কালাম মুন্সী ঘটনাস্থান থেকে পালিয়ে যায়। এ বিষয়ে আমতলী মডেল থানার ওসি মো. আবুল বাশার জানান, শিশুটির জবানবন্দি অনুযায়ী মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং আসামি কালাম মুন্সীকে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।
রাজশাহী : রাজশাহী দুর্গাপুরে এক ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গত শুক্রবার দুপুরে উপজেলার বহ্মপুর পুর্বপাড়া গ্রামে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। গত রোববার রাতে ধর্ষণের শিকার নারী (২২) নিজে বাদী হয়ে দুর্গাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে ধর্ষক জাহাঙ্গীর আলমকে (৩৫) একমাত্র আসামি করা হয়েছে। মামলার পেক্ষিতে পুলিশ ধর্ষক জাহাঙ্গীর আলমকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। দুর্গাপুর থানার (ওসি) আব্দুল মোতালেব জানান, ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
SB Biplob ২১ মে, ২০১৯, ১:১৭ এএম says : 0
বাংলাদেশ থেকে মুক্তি চাই আল্লাহ আমাকে অন্য দেশে চলে যাওয়ার তৌফিক দান করুন
Total Reply(0)
Rashel Miaji ২১ মে, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
রক্ষক যখন বক্ষক!!! এই সকল জানোয়ারদের জন্য দেশে আজ এই অবস্থা।জনসস্মুখে এর বিচার দাবি করছি।।।
Total Reply(0)
M H Motalab Khan ২১ মে, ২০১৯, ১:১৬ এএম says : 0
হক না সে পুলিশ । একজন চরিত্রহীন পুলিশের জন্যে সমস্ত পুলিশ বাহিনী কেন দুর্নাম বহন করবেন । কঠিন শাস্তির ব্যবস্হা করুন । চাকরি থেকে সরিয়ে দিন । তার ফান্ড থেকে টাকা কেটে ক্ষতিগ্রহস্ত মেয়েটির পরিবার কে দেয়া হক ।
Total Reply(0)
Mujibur Rahman ২১ মে, ২০১৯, ১:১৭ এএম says : 0
অনন্তকাল ধরে তদন্ত চলতেই থাকবে চলতেই থাকবে ফলাফল শূন্য ইহজগতে এই তদন্ত থামার কোন লক্ষণ নেই।
Total Reply(0)
Ghosh Uzzal ২১ মে, ২০১৯, ১:১৭ এএম says : 0
খাদ্যে এত ভেজাল তবুও ধর্ষণ করার মত এত পাওয়ার পাচ্ছে কোথা থেকে এ দেশের লোক।
Total Reply(0)
Nazrul Kabir ২১ মে, ২০১৯, ১:১৪ এএম says : 0
যদি সত্যিই ধর্ষণ হয় আমি অবশ্যই এই পুলিশ সদস্যের উপযুক্ত বিচার চাই। কারণ এ ধরণের গুটি কয়েক পুলিশ সদস্যের জন্য আজ আমরা পুরো বাহিনী প্রশ্নবিদ্ধ। তবে নিউজটা পড়ে যতটুকু বুঝলাম, একটা এসএসসি পরীক্ষার্থী মেয়েকে একজন পুরুষ নিরালায় ডাকলো, আবার মেয়েটিও গেলো, দরজা বন্ধ করলো, অনেক্ষণ ধরে তারা ভিতরে অবস্থান করছিলো। মেয়েটার কোনো আওয়াজ নাই। দীর্ঘক্ষণ ভিতরে থাকার ফলে বাহিরের লোকের সন্দেহের ভিত্তিতে তারা তালা লাগিয়ে দেয়। তখনো মেয়েটার কোনো শব্দ নাই। মেয়েটা কিন্তু এসএসসি পরীক্ষার্থী। এখন সন্দেহ হচ্ছে সত্যি কি এটা ধর্ষণ? নাকি দুজনের সম্মতিতে কাজ! পাড়ার মানুষ টের পাওয়ার কারণে ঘরের পিচন দিয়ে লাফিয়ে পড়ে পাঁ ভেঙ্গে ধরা পড়ে এখন ধর্ষণ বলে চালিয়ে যাওয়া। সুতরাং এটা ধর্ষণ না হলেও ইসলামী রাষ্ট্র হিসেবে অপরাধ। অতএব, সঠিক ঘটনা তদন্ত করে তাদের উভয়ের শাস্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। মানুষ মাত্রই ভুল, আর ভুল হলে আমায় ক্ষমা করবেন ভাই।
Total Reply(0)
Md Mehedi Hasan Shawon ২১ মে, ২০১৯, ১:১৪ এএম says : 0
মেয়েটাও সাধু না।ওকে ঘরের ভীতরে ধর্ষণ করছে তো সে আশেপাশের মানুষকে চেঁচিয়ে ডাকেনি কেন? নাকি সম্মতিতে আকাম করে এখন ধরা পড়ে সেটা ধর্ষণ বলে চালিয়ে দিচ্ছে সেটা তদন্ত করা উচিত।
Total Reply(0)
Mgr Babu ২১ মে, ২০১৯, ১:১৬ এএম says : 0
ক্লোজ নামক এই সহজ পদ্ধতী ব্যবহার করে, অপরাধী সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারী কে রক্ষা করার এই সনাতন পদ্ধতী ছেড়ে দিন। অপরা্ধী অপরাধ যেখানে করেছে সেখানে রেখে, তার বিচারের ব্যাবস্থা করুন । কারন কয়দিন আগেই আমরা দেখেছি রাফা ধর্ষন ও হত্যা মামলার প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত ওসি কে তড়িঘড়ি ভাবে ক্লোজ করে বিচার হচ্ছে হবে বলে জনগনকে ধোকা দিয়ে বোকা বানিয়ে রেখে। গোপনে তাকে রংপুর এলাকায় বদলি করা হয়, এই নিয়ে গোটা রংপুর এলাকা ফুঁসে উঠলে, এলাকার আইন সৃঙ্খলা পরিস্থিতি হুমকির মুখে পড়ে। তার মানে এখন দেখা যাচ্ছে সরকারী কর্ম কর্তা কর্মচারী যতবড়ই অপরাধ করুক, তাকে ক্লোজ নামক নাটকের মাধ্যোমে শ্বসন্মানে সেখান থেকে সরিয়ে নিয়ে, ঐ অপরাধী সরকারী চাকুরেকে, অন্যত্র প্রতষ্ঠিত করাই তার সাজা। আসুন আমরা সমবেত ভাবে আওয়াজ তুলি ক্লোজ নামক অপরাধীকে রক্ষার নাটক বন্দ করা, অপরাধী সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারি অপরাধের বিরুদ্ধ তদন্ত চলা কালে বা বিচার চলা কালে তাকে কোন প্রকার বেতন ভাতা, বা সরকারী সকল প্রকার কাজ থেকে বিরত রা্খ। বিচারে ঐ সরকারী কর্মচারী মুক্ত না হওয়া প্রযন্ত তাকে কোথাও পোষ্টিং করা চলবে না। সরকারী কর্মচারীদের বিচার দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের মাধ্যোমে করতে হবে ।
Total Reply(0)
Muktadir Islam ২১ মে, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
অধিকতর তদন্ত শেষে এই সাহসী ভাইটি নিশ্চয়ই পদোন্নতি পাবে
Total Reply(0)
আকাশ ২১ মে, ২০১৯, ৩:৩১ এএম says : 0
রক্ষক যেখানে ভক্ষক। উপযুক্ত বিচার হোক
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন