শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

বসে নেই বিদ্রোহীরাও

প্রকাশের সময় : ১ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা : ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে আগামী ৪ জুন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলা ৯টি ইউনিয়ন থেকে নৌকা ৯ জন, ধানের শীষ ৯ জন দলীয়ভাবে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে লড়ছেন। এছাড়া চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী)সহ ৩০ প্রার্থী নির্বাচনে লড়ছে। সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯টি ইউনিয়নে ৮৭ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ২৬৮ জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে। উপজেলায় প্রতীক বরাদ্দ শেষে চলছে পোস্টার টাঙ্গানো ও লিফলেটের ছড়াছড়ি। প্রতীকি লিফলেট নিয়ে প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারের বাড়ি বাড়ি। প্রার্থীরা নাওয়া-খাওয়া ছেড়ে রোদ-বৃষ্টি উপেক্ষা করে একাধিকবার ভোটারদের দ্বারস্থ হচ্ছে। নিচ্ছে তাদের খোঁজ-খবর, দিচ্ছেন নানান প্রতিশ্রুতি। ছোট ছোট দল গঠন করে প্রার্থীরা প্রতিটি ওয়ার্ডের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের মন জয় করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ভোটাররাও নির্বাচনী আমেজে দিন কাটাচ্ছে। স্থানীয় চায়ের দোকানগুলোতে চলছে দিন-রাত চা বেচা-কেনার ধুম। স্থানীয় পুরুষ ভোটারদের বেশিরভাগ চায়ের দোকানে ভিড় দেখা যায়। দলীয় প্রতীকে ইউপি নির্বাচন হওয়ায় প্রার্থীদের ব্যস্ততা একটু বেশি দেখা যায়। নির্বাচনের সময় বেশি দিন না থাকায় চেয়ারম্যান-মেম্বাররা তড়িঘড়ি করে চালিয়ে যাচ্ছে নির্বাচনী প্রচরণা। নির্বাচনী এলাকায় চলছে মাইকিং, দলবেঁধে সেøাগান, প্রার্থীদের ডাকে সাড়া দিচ্ছে ভোটাররা, বিরক্ত করছে না বরং আনন্দ উপলব্ধি করছে মাত্র। উপজেলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ হলে ভোটারদের উপস্থিতি বেশি দেখা যাবে মনে করছে সাধারণ মানুষ। উপজেলা নির্বাচন অফিসার আলামিন বলেন, প্রতিটি ইউনিয়নে র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি, আনছার বাহিনী মোতায়েন থাকবে। থাকবে ভ্রাম্যমাণ মোবাইল টিম। প্রতিটি কেন্দ্রে কেন্দ্রে কড়া নিরাপত্তা দেয়া হবে যাতে করে ভোটাররা শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দিতে পারে। ধানের শীষ ও বিদ্রোহী প্রার্থীরা একটু সংশয়ের মধ্যে আছেন নির্বাচনের দিন কি থেকে কি হয়ে যায়। শান্তিপূর্ণভাবে ভোটাররা যাতে ভোট দিতে পারে সরকারের কাছে প্রার্থীদের প্রত্যাশা।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps