ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

ইসলামী বিশ্ব

কুটনীতিক হত্যার প্রতিশোধ নেবে তুরস্ক

নিষেধাজ্ঞা সত্তেও সাইপ্রাস উপকূলে নৌমহড়া চালাবে আঙ্কারা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১২:১৬ এএম

ইরাকের স্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস্তান অঞ্চলের রাজধানী ইরবিলের একটি রেস্তোরাঁয় গুলি করে এক তুর্কি কূটনীতিককে হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েপ এরদোগান। তুরস্ক ছাড়াও এ হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে ইরান ও ইরবিলের কুর্দি কর্তৃপক্ষ। তুর্কি সরকার এ হামলার প্রতিশোধ নেয়ার হুমকি দিয়ে জানিয়েছে, এরই মধ্যে হামলাকারীদের চিহ্নিত করা ও ধরার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। খবর বিবিসির। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগানের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন টুইট করে বলেছেন, ‘এ হামলায় জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তি দেয়া হবে।’ তবে এখন পর্যন্ত এ হামলার দায় স্বীকার করেনি কোনো গোষ্ঠী। তুরস্কে বহু দশক ধরে লড়াই করা কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এ হামলার সঙ্গে তাদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। তুরস্কের সীমান্তবর্তী ওই এলাকায় স্থানীয় সময় বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে ওই হামলা হয়। তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভাসোগলু জানান, বুধবার ইরবিলের তুর্কি কনস্যুলেটের উপপ্রধান হাক্কাবাজ নামে একটি রেস্তোরাঁয় দুপুরের খাবার খাচ্ছিলেন। হঠাৎ তিন বন্দুকধারী তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়ে পালিয়ে যায়। এতে তুর্কি কূটনীতিক ও একজন ইরাকি নাগরিক নিহত হন, আহত হন আরেক ইরাকি নাগরিক। এদিকে তুর্কি কূটনীতিক নিহত হওয়ার ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছে ইরান। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইয়েদ আব্বাস মুসাভি এক বিবৃতিতে ওই হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। অপর এক খবরে বলা হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা সত্তে¡ও সাইপ্রাস উপকূলে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান এবং নৌমহড়া অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক। মঙ্গলবার তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, ইইউর পদক্ষেপ পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে হাইড্রোকার্বন কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার জন্য আমাদের দেশের দৃঢ় সঙ্কল্পকে সামান্যতম প্রভাবিত করবে না। তুরস্কের বিরুদ্ধে ইউরোপীয় ইউনিয়নের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা সাইপ্রাস উপকূলে তেল ও গ্যাস অনুসন্ধান অব্যাহত রাখতে বাধা হয়ে দাঁড়াবে না বলেও আঙ্কারার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। সাইপ্রাসের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে ইইউর ব্যর্থতার বিষয়টি তুরস্ক স্পষ্ট করেছে দাবি করে পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের ওই বিবৃতিতে বলা হয়, সাইপ্রাসের ব্যাপারে ইইউর সিদ্ধান্ত পক্ষপাতমূলক এবং একতরফা। প্রসঙ্গত, সাইপ্রাস উপকূলে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান এবং নৌমহড়ার অব্যাহত রাখার বিষয়ে তুরস্কের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। সোমবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা তুরস্কের সঙ্গে উচ্চপর্যায়ের রাজনৈতিক বৈঠক বাতিল, বিমান চুক্তি নিয়ে আলোচনা স্থগিত এবং তুরস্কের জন্য নির্ধারিত ইইউর সহায়তা তহবিল হ্রাস করতে সম্মত হন। এ ছাড়া সাইপ্রাসসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৮টি সদস্য রাষ্ট্রের মন্ত্রীরা তুরস্কের ঋণদান কার্যক্রম বিশেষ করে সার্বভৌম-সমর্থিত ঋণের বিষয়ে পর্যালোচনা করার জন্য ইউরোপীয়ান ইনভেস্টমেন্ট ব্যাঙ্ককে আহŸান জানিয়েছেন। আনাদোলু, রয়টার্স।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন