ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি চরমে -খেলাফত মজলিস

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

 খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, দেশে ঘুষ দুর্নীতি আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি চরমে পৌঁছেছে। দেশে খুন হত্যা ধর্ষণ নারী-শিশু নির্যাতন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। মানুষের জান মাল ইজ্জতের ন্যূনতম নিরাপত্তা নেই। প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যা শিশু ধর্ষণ গণধর্ষণ পরীক্ষার হলে আগুন দিয়ে হত্যা বিচারকের এজলাসে ছুরি মেরে হত্যার মত ঘটনা ঘটছে। ঘরে-বাইরে কোথায়ও মানুষ নিরাপদ নয়। এহেন দু:শাসন ও দুর্বিষহ অবস্থা থেকে জাতিকে মুক্ত করতে হবে। খেলাফত মজলিসে কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার অধিবেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

গতকাল শুক্রবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টস্থ সীগাল রেস্টুরেন্টে আমীরে মজলিস মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাকের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদেরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত অধিবেশনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের নায়েবে আমীর মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, শেখ গোলাম আসগর, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ডাঃ আবদুল্লাহ খান, মাওলানা ফরিদ আহমদ সিদ্দিকী, অধ্যাপক আলী রেজা, ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল হালিম, এডভোকেট মিজানুর রহমান, অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, হাজী নূর হোসেন, অধ্যাপক কে এম আলম, মাওলানা নুরুজ্জামান খান।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সেক্যুলার শিক্ষা নীতির কারণে দেশে অনৈতিকতার সয়লাব চলছে। এর মধ্যে ডারউইনের বিতর্কিত বিবর্তনবাদ বাংলাদেশের বিভিন্ন শ্রেনীর পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভূক্তি করে নতুন প্রজন্মকে নাস্তিক্যবাদের দিকে ধাবিত করা হচ্ছে। ৯২ ভাগ মুসলিম অধ্যুষিত বাংলাদেশে নাস্তিক্যবাদের শিক্ষা কোন ভাবেই বরদাস্ত করা যায় না। চট্টগ্রামের ৩০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইসকনের উদ্যোগে সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীদের প্রসাদ খাইয়ে হিন্দু ধর্মীয় মন্ত্র পাঠ করানোর ঘটনা মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে মারাত্মকভাবে আঘাত হেনেছে। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। সেক্যুলার শিক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন দরকার, অবিলম্বে পাঠ্যসূচী থেকে ডারউইনের বিতর্কিত নাস্তিক্যবাদী বিবর্তনবাদ শিক্ষা বাতিল করতে হবে।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন