ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

দুই পুত্রকে নিয়ে স্ত্রী শাওন আমেরিকায়

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

বাংলা সাহিত্যের বরপুত্র হুমায়ূন আহমেদের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী গতকাল পালিত হয়েছে। রাজধানী ঢাকায় বিভিন্ন সংগঠন নানান অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দিবসটি পালন করে। মূল অনুষ্ঠান হয় গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে। সেখানে মিলাদ, কোরআন খতম, দোয়া মাহফিল ও পুষ্পস্তবক অর্পণসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে মরহুম কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়।
গতকাল শুক্রবার সকাল থেকেই শ্রদ্ধা জানাতে হুমায়ূন আহমেদের পরিবারের সদস্য, হিমু পরিবহনের সদস্য, সাংবাদিক, ভক্তবৃন্দসহ বিভিন্ন সংগঠন ও শ্রেণিপেশার মানুষ নুহাশ পল্লীতে হাজির হন।
বেলা সোয়া ১০টার দিকে হুমায়ূনের কবর জিয়ারত করেন তার ছোট ভাই কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব, বোন সুফিয়া খাতুন, রোকসানা আহমেদ, আহসান হাবীবের স্ত্রী আফরোজা আমীনসহ পরিবারের সদস্যরা। এসময় তারা হুমায়ূন আহমেদের কবরে পুস্পস্তবক অর্পণ এবং ফাতেহা পাঠ ও মোজানাত করেন। এর কিছুক্ষণ আগে হুমায়ূন আহমেদের কবর জিয়ারত ও দোয়া মাহফিলে অংশ নেন হুমায়ুন আহমেদের দ্বিতীয় স্ত্রী অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওনের বাবা ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলী, অভিনেতা সৈয়দ হাসান সোহেল, নুহাশ পল্লীর কর্মচারী ও আশপাশের মাদরাসার কয়েকশ শিক্ষার্থী।
বড় ভাইয়ের স্মৃতিচারণ করে আহসান হাবীব বলেন, হুমায়ূন আহমেদের অনেক স্বপ্ন ছিলো। আর বেঁচে থাকা অবস্থায় তিনি অনেক স্বপ্নই পূরণ করে গেছেন। তার একটা স্বপ্ন ছিলো ক্যান্সার হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা। এটা তিনি পূরণ করে যেতে পারেননি। তিনি ইন্তেকাল করেছেন। আমরা যারা আছি, এটা নিয়ে কাজ করছি। ক্যান্সার হাসপাতালও ইনশাল্লাাহ হবে। তিনি আরো বলেন, হুমায়ূন আহমেদের সব লেখাই প্রকাশিত হয়েছে। তার কোনো অপ্রকাশিত লেখা নেই। এখন যেটা করা হচ্ছে, সেটা হলো-তাঁর সমস্ত লেখা যাতে নির্ভুলভাবে বের হয় সেই চেষ্টাটা করা হচ্ছে। একটা আর্কাইভ করা হয়েছে। সেই আর্কাইভে তাঁর লেখাগুলো নির্ভুলভাবে সংরক্ষিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৫০ ভাগ হয়ে গেছে। এটা যখন পুরোটা সংরক্ষিত হবে, যারা হুমায়ুন আহমেদকে নিয়ে পিএইচডি করেন/করবেন তাদের জন্য এটা বিরাট সুবিধা হবে।
হুমায়ূন আহমেদের শ্বশুর ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলী জানান, শাওন চলচ্চিত্র বিষয়ক ছয় মাস ব্যাপী একটি প্রশিক্ষণ নিতে দুই সন্তান নিষাদ ও নিনিতকে নিয়ে আমেরিকায় গেছেন। এর জন্য তারা নুহাশ পল্লীর কর্মসূচিতে যোগ দিতে পারেননি। তবে সেখানে হুমায়ুন আহমেদের একটি স্বরণসভায় শাওন যোগ দিয়েছেন। উল্লেখ বাঙলা সাহিত্যের বরপুত্র খ্যাতিমান কথাশিল্পী ও চলচ্চিত্রকার হুমায়ূন আহমেদ ২০১২ সালের এই দিনে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন