ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

সারা বাংলার খবর

থানায় কাটলো নব দম্পতির বাসর রাত

রাজবাড়ী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ আগস্ট, ২০১৯, ৭:১৯ পিএম

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ ঘাট থানায় কাটলো দুই নব দম্পতির বাসর রাত। একদিকে বাবা-মা হারা এতিম মো. রাসেল মোল্লা (১৯) ও মামাতো বোন সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী মোছা: স্মৃতি আক্তার (১৪)।

এই নব দম্পতির থানা পুলিশ হেফাজতে বাসর রাত কাটলেও অবশেষে ভেঙ্গে গিয়েছে তাদের বাল্যবিয়ে। ঘটনাটি ঘটেছে গোয়ালন্দ উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড হাউলি কেউটিল গ্রামে। বাল্য বিয়েতে আবদ্ধ হাউলি কেউটিল গ্রামের মৃত আনিচ মোল্লার ছেলে মো. রাসেল মোল্লা এর সাথে একই গ্রামের বাসিন্দা মো. সহিদ শিকদার (রাসেলের মামা) মেয়ে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী মোছা: স্মৃতি আক্তার।

জানা গেছে, রবিবার রাত পৌনে ১১টার দিকে হাউলি কেউটিল গ্রামের এক কৃষকের মেয়ে (১৪) কে কোর্ট এ্যাফিডেফিট করে স্থানীয় মৌলবী দিয়ে একই এলাকার মৃত আনিছ মোল্লার ছেলে রাসেল মোল্লা (১৯) এর সাথে বিয়ে পড়ানো হয়। বিয়ের ঘন্টা খানেক পর গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ খবর পেয়ে ওই কৃষকের বাড়ীতে হাজির হয়ে মেয়ের বাবা-মাসহ বর-কনেকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। সোমবার তাদেরকে গোয়ালন্দ উপজেলা ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করা হলে আদালত বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৮ ধারা মোতাবেক মেয়ের বাবাকে ৪ হাজার টাকা জরিমানা করে এবং ভবিষ্যতে বয়স পূর্ন না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে বিবাহ না দেয়ার লিখিত অঙ্গিকার দিলে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

মেয়েটির বাবা জানান, মেয়েটি ২ বছর আগে উপজেলার চৌধুরী মাহবুব হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী ছিল। তার দরিদ্রতার কারনে মেয়েটির লেখা-পড়া বন্ধ হয়ে যায়। সংসারে অভাব অনটনের কারনে তার আপন এতিম ভাগিনা রাসেলের সাথে রাজবাড়ী নোটারী পাবলিকে কোর্ট এফিডেফিট করে রবিবার রাতে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তির উপস্থিতিতে স্থানীয় মৌলবী দিয়ে বিবাহ পড়ানো হয়। বিবাহের কিছুক্ষন পরই পুলিশ এসে তাদের সবাইকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। সারারাত থানায় আটক রাখার পর থানা পুলিশ সকালে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করে। এরপর ভ্রাম্যমান আদালতে ৪ হাজার টাকা জরিমানা এবং ভবিষ্যতে মেয়ের বয়স পূর্ন হওয়ার বিয়ে না দেয়ার শর্তে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

এ বিষয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা ভ্রম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্টেট ও সহকারী সহকারী কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, যেহেতু মেয়েটির বিয়েতে কোন কাবিন নামা করা হয়নি তাই এ বিবাহ বৈধ নয়। এ ছাড়া যেহেতু মেয়েটির বয়স পূর্ন হয়নি। তাই মেয়েটির বিয়ে বন্ধ করে তার বাবাকে ২০১৭ সালের বাল্য বিয়ে নিরোধ আইনে ৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভবিষ্যতে বয়স পূর্ন না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে না দেয়ার অঙ্গীকার নামা রেখে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন