ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

কারফিউ ভেঙে জুমার পর রাস্তায় নেমে আসুন

কাশ্মীরের জনতার প্রতি মুক্তিকামী নেতাদের আহ্বান : কাশ্মীর নিয়ে মোদির সাথে কথা বলবেন ট্রাম্প তিনি কি বিশ্বের চৌধুরী : ওআইসি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

অধিৃকত কাশ্মীরে মুক্তিকামী নেতারা আগামীকাল শুক্রবার জুমার নামাজের পরে কারফিউ ভেঙে পদযাত্রায় যোগ দেয়ার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকার এই অঞ্চলের স্বায়ত্তশাসন প্রত্যাহার করার পরে এই প্রথম এমন আহ্বান করা হল। কঠোর অবরোধের কারণে ক্ষোভ প্রকাশ করতে না পারলেও সমগ্র উপত্যকা ভেতরে ভেতরে ফুঁসছে। শত শত রাজনৈতিক নেতা ও কর্মী, তাদের মধ্যে বেশিরভাগই মুক্তিকামী যারা ভারত থেকে কাশ্মীরের স্বাধীনতা চেয়েছিলেন, তাদের কারাগারে আটক করা হয়েছে। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদের জন্য এই অঞ্চলের রাজধানী শ্রীনগরে রাতারাতি লাগানো পোস্টারের মাধ্যমে জনগণের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে।
পোস্টারে লেখা হয়, ‘সকল যুবক এবং বৃদ্ধ, পুরুষ ও মহিলা সবাইকে শুক্রবারের নামাজের পর পদযাত্রা করার আহ্বান জানানো হচ্ছে। পোস্টারটি ছেপেছে যৌথ বিরোধী নেতৃত্ব, যারা প্রধান মুক্তিকামী গোষ্ঠীগুলোর প্রতিনিধিত্ব করে। পদযাত্রাটি শ্রীনগরে জাতিসংঘের সেনা পর্যবেক্ষণ কার্যালয়ে যেয়ে শেষ হবে। ১৯৪৯ সালে কাশ্মীর নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে প্রথম যুদ্ধের পরে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

কাশ্মীর নিয়ে মোদির সাথে কথা বলবেন ট্রাম্প
ডন জানায়, কাশ্মীরের ‘উত্তেজনাপূর্ণ ও জটিল’ পরিস্থিতি সামলাতে যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি পরমাণবিক শক্তিসমৃদ্ধ ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে ফের মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়ে এই কথা বলেন।

ট্রাম্প বলেন, চলতি সপ্তাহের শেষে তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে এই ইস্যু নিয়ে আলোচনা করবেন। সে সময় ফ্রান্সের বিয়ারিটজে জি ৭ শীর্ষ সম্মেলনে তাদের পার্শ্ব-বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। কাশ্মীর নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ট্রাম্প বলেন, ‘কাশ্মীর একটা খুব জটিল জায়গা। যেখানে হিন্দু আছে, মুসলিমও আছে। কিন্তু তারা এক সঙ্গে খুব একটা ভাল আছে এমনটা বলতে পারি না। তবে মধ্যস্থতা করার জন্য আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করব।’ ট্রাম্প ভারত-পাকিস্তানের সম্পর্কের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, দু’দেশের মধ্যে দীর্ঘকাল ধরে একটা বৈরিতার সম্পর্ক রয়েছে। ফলে পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তেজনাপূর্ণ হয়ে উঠছে। ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে কেন সম্পর্ক সহজ হচ্ছে না, সে ব্যাখ্যাও দিয়েছেন তিনি। সাংবাদিকদের এ প্রসঙ্গে ট্রাম্প বলেন, ‘ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে মধুর সম্পর্ক গড়ে না ওঠার অন্যতম প্রধান কারণ ধর্ম।’ আমেরিকা এই সম্পর্ককে সহজ করতে চাইছে। তার জন্য মধ্যস্থতার প্রয়োজন। আর সেটাই তিনি চান বলে জানিয়েছেন ট্রাম্প।

এর আগে ট্রাম্প গত ২২ জুলাই পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সাথে হোয়াইট হাউসের সংবাদ সম্মেলনে কাশ্মীর নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যস্থতার প্রথম প্রস্তাব দিয়েছিলেন। ইমরান খান তৎক্ষণাৎ এই প্রস্তাবটি স্বাগত জানিয়ে বলেছিলেন, ট্রাম্প যদি সহায়তা করেন তবে একশ’ কোটি মানুষ আমেরিকার জন্য প্রার্থনা করবে। তবে ভারত এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, কাশ্মীর বা অন্য কোনো বিষয়ে পাকিস্তানের সাথে আলোচনার জন্য তারা কোনও বাহ্যিক সহায়তা চায় না।

গত সোমবার পোস্ট করা একটি টুইটে ট্রাম্প বলেছেন, তিনি কাশ্মীরে উত্তেজনা হ্রাস করতে তার ‘ভাল বন্ধু’ ভারত ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সাথে যোগাযোগ করেছেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চিরবৈরী দেশ দু’টি যারা একে অপরের সাথে কথা বলতে রাজি নয়, তাদের মধ্যে মধ্যস্থতা করার ভ‚মিকা শুরু করে দিলেও মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের এক সিনিয়র কর্মকর্তা জানান, প্রেসিডেন্ট মধ্যস্থতা করছেন না, তবে উভয় পক্ষ রাজি থাকলে তিনি সহযোগিতা করার প্রস্তাব দিয়েছেন। তবে ভারত পাকিস্তানের সাথে তার বিরোধ নিষ্পত্তি করতে কোন বাহ্যিক সহায়তা গ্রহণ করতে অস্বীকার করে বলেছে, ‘কাশ্মীর সমস্যা দ্বিপাক্ষিক বিষয়। এখানে তৃতীয় পক্ষের মধ্যস্থতা মেনে নেয়া হবে না।’

পররাষ্ট্র দফতর স্বীকার না করলেও গত শুক্রবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ফোন দিয়ে অধিকৃত কাশ্মীরের পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত করার পর থেকেই তিনি মধ্যস্থতার জন্য পদক্ষেপ নেয়া শুরু করেন। এরপর গত সোমবার মোদি ট্রাম্পকে ফোন দিয়ে ৩০ মিনিট কথা বলেন। ট্রাম্পের কাছে তিনি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, অঞ্চলটি তারাই অস্থিতিশীল করছে। এক ‘ভালো বন্ধু’ ভারতের কথা শোনার পরেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট তার আরেক ‘ভালো বন্ধু’ পাকিস্তানকে ফোন দিয়ে বলেন, উত্তেজনা কমানোর জন্য তাদেরকে সংযত হতে। হোয়াইট হাউসের বিবৃতি অনুসারে, ট্রাম্প উভয় পক্ষকে ‘সংঘাত এড়িয়ে শান্ত থাকতে এবং সংযম প্রদর্শন করতে আহবান জানান।

গত ৫ আগস্টের পর থেকে ইমরান খানের সাথে ট্রাম্প সর্বমোট তিনবার কাশ্মীর নিয়ে ফোনালাপ করেছেন। যখন ভারত তাদের সংবিধানিক ধারা বাতিল করে অধিকৃত জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয়। তারপর থেকেই সেখানে কারফিউ আরোপ করা হয়েছে, যা ঈদুল আজহার ছুটিতেও অব্যাহত ছিল এবং এখনো তোলা হয়নি।

‘ডোনাল্ড ট্রাম্প কি বিশ্বের চৌধুরী’
এনডিটিভি জানায়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কি সমগ্র বিশ্বের চৌধুরী (শক্তিশালী ব্যক্তি) হয়েছেন যে, তাকে সবকিছুতেই হস্তক্ষেপ করতে হবে। কাশ্মীর ইস্যুতে মঙ্গলবার ভারতের নিউজ এজেন্সি এএনআইকে দেয়া বক্তব্যে হায়দরাবাদের এমপি আসাউদ্দিন ওয়াইসি এ মন্তব্য করেন।

ওয়াইসি বলেন, কাশ্মীর ইস্যুতে ফোনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির কথা বলায় আমি আশ্চর্য এবং চরমভাবে মর্মাহত হয়েছি। কেন ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলতে হবে। তিনি কি সমগ্র বিশ্বের পুলিশের দায়িত্ব নিয়েছেন। নাকি তিনি কোনো চৌধুরী হয়েছেন।

প্রসঙ্গত ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার উত্তেজনা অবসানে মধ্যস্থতা করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিপ্রায়ের কথা জানান তিনি।

কাশ্মীরে প্রথম বন্দুকযুদ্ধ : ১ পুলিশ ও এক কাশ্মিরী নিহত
ইয়াহু নিউজ জানায়, কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধে দুজন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে একজন স্বাধীনতাকামী কাশ্মীরি ও অপরজন পুলিশ সদস্য। কাশ্মীরে স্বায়ত্তশাসন বিলোপের পর এটাই প্রথম বন্দুকযুদ্ধ। পুলিশ কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতা করা প্রস্তাবের মধ্যেই এই হামলা চালানো হলো। ওই ঘটনায় এক ভারতীয় সেনা নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরো ৪ জন। (কাশ্মীর বিষয়ক আরো খবর পৃষ্ঠা ৬)

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (14)
Roni Joader ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
অভিভাবক হিসেবে আল্লাহই যথেষ্ট এবং সাহায্যকারী হিসেবেও আল্লাহই যথেষ্ট [আন-নিসাঃ৪৫]
Total Reply(0)
Md Rimon Rahman ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
অনেক দিন পর ওআইসির হুংকার শুনলাম
Total Reply(0)
Mizanur Rahaman Chowdhury ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১:৪২ এএম says : 0
get ready.
Total Reply(0)
Tarequl Islam ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১:৪২ এএম says : 0
Wite ! GOP god tusunami nytime
Total Reply(0)
মোঃ আজহার রুবেল ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১:৪৪ এএম says : 0
সাব্বাস, কারফিউ ভেঙে সকলকে একযোগে রাস্তায় নেমে আসতে হবে। তাহলে ভারতীয় বাহিনী পালানোর পথ পাবে না।
Total Reply(0)
জহির আল যাবের ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১:৪৪ এএম says : 0
স্বাধীনতার ডাক দেওয়ার সময় চলে এসেছে । দ্রুত সাধীন দেশ হিসেবে কাশ্মির দেখতে চাই।
Total Reply(0)
প্রিন্স আপন ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৯:৪৪ এএম says : 0
কাশ্মীরে ভয়াবহ গণহত্যা চলছে মানবতা ঘুমিয়ে আছে
Total Reply(0)
MD Anwar Hossain ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৯:৪৭ এএম says : 0
ইনশাহ্ আল্লাহ্
Total Reply(0)
Imran Hossain ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৯:৪৭ এএম says : 0
মহান সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ্ সারা বিশ্বের মুসলিমদের একত্র হওয়ার তৌফিক দান করুন। আমিন
Total Reply(0)
Bhuiyan Saiful Azim ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৯:৪৮ এএম says : 0
বিবৃতি একটা দেওয়া খুবই সহজ | আমরা এরকম বিবৃতির আশা করছি না | আমরা চাই একটা দায়িত্ববান পদক্ষেপ ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে |
Total Reply(0)
asif ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১০:৪৬ এএম says : 0
তোদের এত্ত হিংসা কেন রে .......... নিজেদের দেশের কথা ভাব না .... বেশি হিংসে শরীরের পক্ষে ভালো নয়
Total Reply(0)
anisul ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১১:০১ এএম says : 0
ভারতে সন্ত্রাসবাদের জন্য প্রত্যক্ষভাবে সবসময় পাকিস্তান দায়ী। সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম হয় না। যথেষ্ট প্রমান সত্ত্বেও কোনোদিনও পাকিস্তান কখনো স্বীকার করে নি। ভারতের অর্থনৈতিক, সামাজিক, আন্তজার্তিক দায়ীত্ত্ব পাকিস্তান থেকে অনেক বেশি। যেখানে পার্লামেণ্টে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানি বিদেশমন্ত্রী ভারতে ফিদাইন হামলা করবেন বলে শাষাচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী ভারতে নিউক্লিয় মিসাইল ব্লাস্ট করবে, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী সর্বসমক্ষে আরো সন্ত্রাসী পাঠাবেন বলে উষ্কানিমূলক ভাষন দিচ্ছেন সেখান থেকে কিন্তু ভারতের নেতৃত্ত্ব যথেষ্ট সংযত।
Total Reply(1)
Muhammad Saidur Rahman ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১১:১৬ এএম says : 1
you are nothing but a stupid. when indian army is committing rape , oppression etc , you are supporting them. first learn the meaning of ' terrorism' then comment.....
anisul ২২ আগস্ট, ২০১৯, ১২:১৪ পিএম says : 0
@ Saidur so you mean entire army is involve with rape, oppression, murder, cruelty etc. etc. .... you bloody idiot first enhance your knowledge about India and Indian army. For a small example, when flood came to Kashmir, the one and only Indian army came between them and rescued. Obviously, if some of the brainwashed , orthodox people start throwing stones on you, I don;t think you'll give a worm welcome with garland :) Why you never talk about Lashkar-e-Taiba, Mumbai Attack, Indian parliament attack, ISIS, Talibaan etc. etc. If I start talking it will be infinity. You can realize if you get neighbor like Pakistan, the worst country in this world with full of terrorists, where ministers supports them to make their chair safe, openly they threat about nuclear attack. Pakistan will be vanished if Indian Army come to their activity with free arms. One more information, Kashmir is getting 10 per cent of all Central grants with only 1% of population, where Uttar Pradesh makes up about 13 per cent of the country’s population but receive only 8.2 per cent of Central grants. This is enough explanation to focus what India is doing for our Kashmiri brothers.
Total Reply(0)
Mir ২২ আগস্ট, ২০১৯, ৮:৫৫ পিএম says : 0
Anisul tumi king gaja khaw
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন