ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

জাবি ভিসির অপসারণের দাবিতে পদযাত্রা

জাবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৫ অক্টোবর, ২০১৯, ৬:৩৮ পিএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে অপসারণের দাবিতে পদযাত্রা ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে আন্দোলনকারী শিক্ষক শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার দুপুরে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদ থেকে পদযাত্রাটি শুরু হয়। পদযাত্রাটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক সমূহ প্রদিক্ষণ করে নতুন প্রশাসনিক ভবনের সামনে এক প্রতিবাদ সমাবেশের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়।

সমাবেশে ছাত্রফ্রন্ট জাবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শোভন রহমানের সঞ্চালনায় অধ্যাপক জহির রায়হান বলেন, ‘ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম ইতিমধ্যেই আমারা অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছি। আমরা ভিসির অপসারণ দাবি করে আচার্যকে চিঠি লিখেছিলাম। কিন্তু দুঃখের সঙ্গে বলছি আমাদের চিঠির পর আচার্য এখনো পর্যন্ত কোন উত্তর দেননি। বরং আমাদের চিঠির বিপরীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ অফিস থেকে প্রতিউত্তর করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ অফিস নিয়মিতভাবে তার যা কাজ নয় সেটা করে যাচ্ছে, আমরা তাদের এই ব্যাখার উত্তর দিবো। ভিসিকে রক্ষার জন্য নতুন করে একটি সংগঠন গড়ে তোলা হচ্ছে। এই সংগঠন করার উদ্দেশ্য হলো তারা যে অন্যায় করছে সেগুলোকে ঢেকে দেওয়া। এরা সবাই ভিসিপন্থী এবং এই কারণেই তার দুর্নীতি, অনিয়ম, স্বেচ্ছাচারকে সমর্থন দেবে।’

ছাত্রফ্রন্ট (মার্ক্সবাদী) জাবি শাখার সভাপতি মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, ‘ভিসি ভারপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়কে ভারাক্রান্ত করে তুলছেন। এই ভারপ্রাপ্ত করে রাখার কারণ হলো স্বৈরাচারী কায়দায় বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা করা।’

তিনি বলেন, জনগণের অর্থে পরিচালিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ে দুর্নীতিবাজ ভিসি আর এক মুহুর্তের জন্য থাকতে পারেন না। রাষ্ট্রকে বলতে চাই এই দুর্নীতিবাজ ভিসিকে অপসারণ করুন। অন্যথা আরো কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে এবং ভিসির অপসারণ নিশ্চিত করা হবে।’

এর আগে গত ৩ অক্টোবর ভিসির অপসারণের দাবিতে সপ্তাহব্যাপী নানা কর্মসূচির ঘোষণা দেন দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর ব্যানারে আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। কর্মসূচির অংশ হিসেবে ক্যাম্পাসে এই পদযাত্রা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এছাড়া বুধবার দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল, ১৭ অক্টোবর সংহতি সমাবেশ এবং ১৯ অক্টোবর মশাল মিছিল অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। 

 

Rvwe wfwmi Acmvi‡Yi `vwe‡Z c`hvÎv

Rvwe msev``vZv:

Rvnv½xibMi wek¦we`¨vj‡qi wfwm Aa¨vcK dviRvbv Bmjvg‡K Acmvi‡Yi `vwe‡Z c`hvÎv I cÖwZev` mgv‡ek K‡i‡Q Av‡›`vjbKvix wk¶K wk¶v_©xiv| g½jevi `ycy‡i Ô`yb©xwZi weiæ‡× Rvnv½xibMiÕ e¨vbv‡i wek¦we`¨vj‡qi mgvRweÁvb Abyl` ‡_‡K c`hvÎvwU ïiæ nq| c`hvÎvwU ¸iæZ¡c~Y© moK mg~n cÖw`¶Y K‡i bZzb cÖkvmwbK fe‡bi mvg‡b GK cÖwZev` mgv‡e‡ki g‡a¨ w`‡q †kl nq|

mgv‡e‡k QvÎd«›U Rvwe kvLvi mvsMVwbK m¤úv`K †kvfb ingv‡bi mÂvjbvq Aa¨vcK Rwni ivqnvb e‡jb, Ôwfwm Aa¨vcK dviRvbv Bmjvg BwZg‡a¨B Avgviv AevwÃZ †NvlYv K‡iwQ| Avgiv wfwmi AcmviY `vwe K‡i AvPvh©‡K wPwV wj‡LwQjvg| wKš‘ `yt‡Li m‡½ ejwQ Avgv‡`i wPwVi ci AvPvh© GL‡bv ch©šÍ †Kvb DËi †`bwb| eis Avgv‡`i wPwVi wecix‡Z wek¦we`¨vj‡qi Rbms‡hvM Awdm †_‡K cÖwZDËi Kiv n‡q‡Q|

wek¦we`¨vj‡qi Rbms‡hvM Awdm wbqwgZfv‡e Zvi hv KvR bq †mUv K‡i hv‡”Q, Avgiv Zv‡`i GB e¨vLvi DËi w`‡ev| wfwm‡K i¶vi Rb¨ bZzb K‡i GKwU msMVb M‡o †Zvjv n‡”Q| GB msMVb Kivi D‡Ïk¨ n‡jv Zviv †h Ab¨vq Ki‡Q †m¸‡jv‡K †X‡K †`Iqv| Giv mevB wfwmcš’x Ges GB Kvi‡YB Zvi `yb©xwZ, Awbqg, †¯^”QvPvi‡K mg_©b †`‡e|Õ

QvÎd«›U (gv·©ev`x) Rvwe kvLvi mfvcwZ gvnvw_i †gvnv¤§` e‡jb, Ôwfwm fvicÖvß e¨w³‡`i w`‡q wek¦we`¨vjq‡K fvivµvšÍ K‡i Zzj‡Qb| GB fvicÖvß K‡i ivLvi KviY n‡jv ‰¯^ivPvix Kvq`vq wek¦we`¨vjq cwiPvjbv Kiv|Õ

wZwb e‡jb, RbM‡Yi A‡_© cwiPvwjZ GB wek¦we`¨vj‡q `yb©xwZevR wfwm Avi GK gyû‡Z©i Rb¨ _vK‡Z cv‡ib bv| ivóª‡K ej‡Z PvB GB `yb©xwZevR wfwm‡K AcmviY Kiæb| Ab¨_v Av‡iv K‡Vvi Av‡›`vjb M‡o †Zvjv n‡e Ges wfwmi AcmviY wbwðZ Kiv n‡e|Õ

Gi Av‡M MZ 3 A‡±vei wfwmi Acmvi‡Yi `vwe‡Z mßvne¨vcx bvbv Kg©m~wPi ‡NvlYv †`b `yb©xwZi weiæ‡× Rvnv½xibMi e¨vbv‡i Av‡›`vjbKvix wk¶K-wk¶v_©xiv| Kg©m~wPi Ask wn‡m‡e K¨v¤úv‡m GB c`hvÎv I mgv‡ek AbywôZ n‡q‡Q| GQvov eyaevi `ycy‡i we‡¶vf wgwQj, 17 A‡±vei msnwZ mgv‡ek Ges 19 A‡±vei gkvj wgwQj AbywôZ n‡e e‡j Rvwb‡q‡Qb Av‡›`vjbKvixiv|

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন