ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

শিক্ষাদিক্ষা

জাবিতে তিন হিন্দু ছেলেকে শিবির সন্দেহে ছাত্রলীগের মারধর!

জাবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:৩৬ পিএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনজন হিন্দু ছাত্রকে শিবির সন্দেহে পিটানোর অভিযোগ উঠেছে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণের দাবিতে আন্দোলনরতদের ওপর ছাত্রলীগের হামলায় ৩৫ জনের মত আহত হন। হামলার সময় ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা তিনজন হিন্দু ছাত্রকেও শিবির বলে পিটিয়েছে। সেই তিন হিন্দু ছাত্র হলো- সৌমিক বাগচি, সুদীপ্ত দে ও অমর্ত্য রায়।

আজ বুধবার অনুষ্ঠিত সংহতি সমাবেশে বক্তারা এই তথ্য তুলে ধরেন।

এ বিষয়ে সৌমিক বাগচি বলেন, তারা আমাকে লক্ষ করে বলতে থাকে এ শিবির করে। তারপর আমরা উপর চড়াও হয়ে এলোপাতাড়ি মারতে থাকে।

এ বিষয়ে আন্দোলনের মুখপাত্র অধ্যাপক রায়হান রাইন বলেন, শিবির ট্যাগ দিয়ে আন্দোলন দমানো পুরোনো কৌশল। কিন্তু আমরা শিক্ষক, সাংস্কৃতিক জোট ,প্রগতিশীল ছাত্রজোট মিলে আন্দোলন পরিচালনা করছি।এখানে শিবিরের কোন ঠাই নাই।

আন্দোলনকারীরা জানান, আন্দোলনে যারা নেতৃত্ব দিচ্ছে তাদের পরিকল্পিতভাবে শিবির ট্যাগ দিচ্ছে। গতকাল তারা এই তিন জন হিন্দু ছেলেকে লক্ষ করে বলেন,‘ধর ধর এরা শিবির করে ,এদের মারো। তারপর তাদের উপর ছাত্রলীগ কর্মীরা চড়াও হয়ে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। পরবর্তীতে তারা মেডিকেলে চিকিৎসা নিয়েছে সুস্থ বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে অপসারণের দাবিতে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় সাংবাদিকসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (12)
আহসান হাবীব। ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৯:২৯ পিএম says : 0
শিবির সন্দেহ করে বিশ্বজিৎকে হত্যা করা হয়েছে,এভাবে আর কতকাল শিবির সন্দেহ নিরপরাধ মানুষকে মারা হবে,এখানে দেখতে হবে সবাই মানুষ, কে শিবির, কে ছাত্রলীগ,কে ছাত্রদল এইসব না দেখে ভাবতে হবে, আমরা সবাই মানুষ। সবার রক্তই লাল ।
Total Reply(0)
আহসান হাবীব। ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৯:২৯ পিএম says : 0
শিবির সন্দেহ করে বিশ্বজিৎকে হত্যা করা হয়েছে,এভাবে আর কতকাল শিবির সন্দেহ নিরপরাধ মানুষকে মারা হবে,এখানে দেখতে হবে সবাই মানুষ, কে শিবির, কে ছাত্রলীগ,কে ছাত্রদল এইসব না দেখে ভাবতে হবে, আমরা সবাই মানুষ। সবার রক্তই লাল ।
Total Reply(0)
Shohedul Islam Khan ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:০৬ পিএম says : 0
সন্দেহ করে কাউকে ধরার ক্ষমতা একমাত্র পুলিশের ছাত্রলীগের নয়
Total Reply(0)
Abdus Salam ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:০৬ পিএম says : 0
কেনো এরাও কি সবাইকে নামাজের জন্য ডাকত।
Total Reply(0)
নীল গিরি ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:০৭ পিএম says : 0
ছাত্র লীগের কাছে হিন্দুরাও নিরাপদ নয়।
Total Reply(0)
Joshim Uddin ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:০৮ পিএম says : 0
জায়গা মত লাগছে!! কাল হয়তো খবর হতেও পারে ; শিবির সন্দেহে ছাত্রলীগের কুনো নেতাকে মেরে ফেলেছে ছাত্রলীগ? মনে রাখা উচিত শিবির মারার অধিকার সংবিধানে নাই। শিবির বলে কারো গায়ে হাত উঠানো ফৌজদারি অপরাধ! এদেশেতো পাকিস্তানীরা এসে শিবির করেনা ; এদেশের লোক এদেশেটাকে পাকিস্তান বানাইতে চাইবেনা নিশ্চয়? এদেশটাকে ইসলামের আলোয় আলোকিত বাংলাদেশ চায় ইসলামী দলগুলো! আর মুসলিমরাতো তাই চায় ; এই মুসলিম প্রধান দেশটা একদিন ঐ ফ্রেমেই বাঁধা পরবে!
Total Reply(0)
Md Reazul Islam ৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:০৮ পিএম says : 0
এদেরকে থামানো উচিৎ। বুঝিনা একটা ভার্সিটিতে প্রশাসন কি করে!তার দায় দায়িত্ব কি সেটা প্রশাসন জানে??দেশের প্রচলিত আইন কানুন কি নাই??
Total Reply(0)
রুহুল আমিন ৭ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:২০ এএম says : 0
শিবির কে এরা এত বেশি ভয় পাই কেন।
Total Reply(0)
রুহুল আমিন ৭ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:২০ এএম says : 0
শিবির কে এরা এত বেশি ভয় পাই কেন।
Total Reply(0)
মুহাম্মদ হাফিজুর রহমান ৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:১৮ এএম says : 0
উত্তম কাজ, এভাবেই চলতে দেয়া উচি, কারণ শিবির যেহেতু কোনো মানবীয় পদার্থ না, তাদের যেহেতুবে-হিসাব মারা যায়, অতএব নির্লিপ্ত এ জাতির সবারই এটা প্রাপ্য
Total Reply(0)
mobinul karim ৭ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:৫০ এএম says : 0
চেতনার কারনে ওনাদের হিতাহিত
Total Reply(0)
mashud ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৩:৫৫ পিএম says : 0
এ কেমন বর্বরতা, শিবির হলো একটা সংগঠনের অংগ সংগঠন, এখানে সন্দেসের কি আছে ? তারাও এদেশের মানুষ, এ বৈরীতা দূর করা হউক l
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন