ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

চিলাহাটি থেকে পরীক্ষামূলক বাংলাদেশের রেলইঞ্জিন ভারতে ট্রায়াল

নীলফামারী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ অক্টোবর, ২০২০, ৫:৪৩ পিএম

নীলফামারীর চিলাহাটি ও ভারতের হলদিবাড়ী রেলপথ সংযোগের স্থাপন কাজ শেষ করেছে দুই দেশ। মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশের রেলওয়ের বিশেষজ্ঞ দল একটি রেল ইঞ্জিন নিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে ট্রায়ালের জন্য বাংলাদেশ সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে যান।
গত ৮ অক্টোবর বেলা ১১টার দিকে ভারতের রেলওয়ের বিশেষজ্ঞ দল একটি রেল ইঞ্জিন পরীক্ষামূলকভাবে ভারত সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে নিয়ে আসে। কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা করে ১০ মিনিট অবস্থানের পর আবার তারা ফিরে যায়।
রেলের পশ্চিমাঞ্চল জোনের প্রকল্প পরিচালক আব্দুর রহিম জানান, মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বাংলাদেশ থেকে একটি বিশেষজ্ঞ দল ট্রেনের একটি ইঞ্জিন নিয়ে ভারতীয় সীমান্ত এলাকা ডাঙ্গাপাড়ার ৭৮২ মেইন পিলারের সাব পিলার-৭৮২/৩-এস পিলারের পাশ দিয়ে হুইসেল বাজাতে বাজাতে ভারতে দিকে রওনা হন। এসময় বাংলাদেশের রেলইঞ্জিনটি নানা রংয়ে সাজানো ছিল।
এসময় ভারতের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন উত্তর-পূর্ব রেলওয়ের প্রধান প্রকৌশলী জেপি শিং, উপ-প্রধান প্রকৌশলী ভিকেমিনা, নির্বাহী প্রকৌশলী পিকেজে, ভারতীয় ডেপুটি চিফ ইঞ্জিনিয়ার সন্দ্বীপ কুমার , প্রকল্প পরিচালক তপন দাস প্রমূখ। বাংলাদেশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, নীলফামারী জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চেীধুরী, নীলফামারী ৫৬ বিজিবির লে.কর্নেল.মামুনুল হক মামুন, বাংলাদেশ রেলওয়ের চিফ ইঞ্জিনিয়ার আল ফাত্তাহ্ মোহাম্মদ মাসউদুর রহমান, বাংলাদেশ রেলওয়ের পাকশি ডিভিশনের প্রকল্প পরিচালক মোঃ আব্দুর রহিম এবং ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স লিমিটেডের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ।
সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এ লাইনে ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করবেন। ৫৫ বছর পর আবারও এই রেললাইন দিয়ে ট্রেন চলাচলের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে যোগাযোগের নব দিগন্তে সূচনা হবে।

রেলওয়ে সূত্রমতে, ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট পাক-ভারত বিভক্তের পরও এপথে রেল চলাচল চালু ছিল। সে সময়ে এ পথে দুই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চলাচল করত যাত্রী ও মালবাহী ট্রেন। ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের পর বন্ধ হয় দুই দেশের মধ্যে রেল চলাচল। পরিত্যক্ত রেলপথটি চালুর উদ্যোগ নেন শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি সরকার। রেলপথটি চালু করতে ৮০ কোটি ১৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প হাতে নেয় বর্তমান সরকার। ২০১৯ সালের ২১ সেপ্টেম্বর চিলাহাটি রেল স্টেশন চত্বরে প্রকল্পটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন রেলপথমন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম সুজন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন