ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বালাগাল উলা বিকামালিহি কাসাফাদ্দোজা বিজামালিহি

এ. কে. এম ফজলুর রহমান মুনশী | প্রকাশের সময় : ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ১২:০১ এএম

মহান রাব্বুল আলামীন তাকিদপূর্ণ সম্বোধন- ‘আরসালনাকা’যোগে পিয়ারা নবী মোহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ (সা:)-কে আল কুরআনে তের বার আহবান করেছেন। অন্য কোনো নবী ও রাসূলের ক্ষেত্রে এমনটি ঘটেনি। এটা মহানবী (সা:)-এর জন্য শ্রেষ্ঠত্ব ও মর্যাদার ক্ষেত্রে একটি বিরল প্রাপ্তি, তা সহজেই অনুধাবন করা যায়। আসুন, এবার আল কুরআনের আহবানগুলোর প্রতি নজর দেয়া যাক। ১. ইরশাদ হয়েছে : নিশ্চয়ই আমি আপনাকে সত্য ধর্মসহ সুসংবাদদাতা ও ভীতি প্রদর্শনকারীরূপে প্রেরণ করেছি। আপনি দোজখবাসীদের সম্পর্কে জিজ্ঞাসিত হবেন না। (সূরা বাকারাহ : আয়াত-১১৯)। ২. ইরশাদ হয়েছে : আপনার যে কল্যাণ হয়, তা হয় আল্লাহর পক্ষ হতে, আর আপনার যে অকল্যাণ হয়, সেটা হয় আপনার নিজের কারণে। আর আমি আপনাকে প্রেরণ করেছি মানুষের প্রতি আমার পয়গামের বাহক হিসেবে। আর আল্লাহ সাক্ষ্য দানকারী হিসেবে যথেষ্ট। (সূরা নিসা : আয়াত-৭৯)।

৩. ইরশাদ হয়েছে : যে লোক রাসূলের হুকুম মান্য করল, সে আল্লাহরই হুকুম মান্য করল। আর যে লোক বিমুখতা অবলম্বন করল, আমি আপনাকে হে মোহাম্মাদ (সা:)! তাদের জন্য রক্ষণাবেক্ষণকারী নিযুক্ত করে পাঠাইনি। (সূরা নিসা : আয়াত-৮)।

৪. ইরশাদ হয়েছে : এমনিভাবে আমি আপনাকে একটি উম্মতের মধ্যে প্রেরণ করেছি। তাদের পূর্বে অনেক উম্মত অতিক্রান্ত হয়েছে। যাতে আপনি তাদের ঐ নির্দেশ শুনিয়ে দেন, যা আমি আপনার নিকট প্রেরণ করেছি। তথাপি তারা দয়াময় আল্লাহকে অস্বীকার করে। বলুন : তিনিই আমার পালনকর্তা, তিনি ছাড়া কোনো উপাস্য নেই। আমি তাঁর ওপরই ভরসা করেছি এবং তাঁর দিকেই আমার প্রত্যাবর্তন। (সূরা রায়াদ : আয়াত-৩০)।

৫. ইরশাদ হয়েছে : আপনার পালনকর্তা তাদের সম্পর্কে ভালোভাবে জ্ঞাত আছেন, তিনি যদি চান, তোমাদের প্রতি রহমত করবেন কিংবা যদি চান, তোমাদের আযাব দিবেন। আমি আপনাকে তাদের সকলের তত্ত্বাবধায়ক করে প্রেরণ করিনি। (সূরা বনী ই¯্রাঈল : আয়াত-৫৪)।

৬. ইরশাদ হয়েছে : আমি সত্যসহ এ কোরআন নাজিল করেছি এবং সত্যসহ এটা নাজিল হয়েছে। আমি তো আপনাকে শুধু সুসংবাদদাতা ও ভয় প্রদর্শক করেই প্রেরণ করেছি। (সূরা বনী ইসরাঈল : আয়াত ১০৫)।
৭. ইরশাদ হয়েছে : আমি আপনাকে বিশ্ববাসীর জন্য রহমত স্বরূপই প্রেরণ
করেছি। (সূরা আম্বিয়া : আয়াত ১০৭)।

৮. ইরশাদ হয়েছে : আমি আপনাকে সুসংবাদদাতা ও সতর্ককারীরূপেই প্রেরণ করেছি। (সূরা ফুরকান : আয়াত ৫৬)।
৯. ইরশাদ হয়েছে : হে নবী মোহাম্মাদ (সা:)! আমি আপনাকে সাক্ষী, সুসংবাদদাতা ও সতর্ককারীরূপে এবং আল্লাহর অনুমতিক্রমে তাঁর দিকে

আহবানকারীরূপে এবং উজ্জ্বল প্রদীপরূপে। (সূরা আহযাব: আয়াত ৪৫, ৪৬)।

১০. ইরশাদ হয়েছে : আমি আপনাকে সমগ্র মানবজাতির জন্য সুসংবাদদাতা, ও সতর্ককারীরূপে প্রেরণ করেছি; কিন্তু অধিকাংশ মানুষ তা জানে না। (সূরা সাবা : আয়াত ২৮)।

১১. ইরশাদ হয়েছে : আমি আপনাকে সত্য ধর্মসহ সুসংবাদদাতা ও সতর্ককারীরূপে প্রেরণ করেছি। (সূরা ফাতির : আয়াত ২৪)।

১২. ইরশাদ হয়েছে : যদি তারা মুখ ফিরিয়ে নেয়, তবে আপনাকে আমি তাদের রক্ষক করে প্রেরণ করিনি। আপনার কর্তব্য কেবল প্রচার করা। (সূরা শোরা : আয়াত ৪৮)।

১৩. ইরশাদ হয়েছে : আমি আপনাকে প্রেরণ করেছি সাক্ষ্যদাতারূপে, সুসংবাদদাতা ও ভয় প্রদর্শনকারীরূপে। (সূরা ফাতহ : আয়াত ৮)।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
Hasan ahamed ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ২:১৯ এএম says : 1
Valo laglo
Total Reply(0)
Md reza ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ২:২১ পিএম says : 0
ইয়া আল্লাহ আপনি আমাদের সবাইকে রাসুলুল্লাহ সাঃ এর আদশ অনুযায়ী চলার তাওফিক দান করুন আমিন।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন