ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

মুরগিচোরের পুকুরে ঝাঁপ এলো পুলিশ, অবশেষে পুকুরে নেমে আটক করল ফায়ার সার্ভিস

রাউজান (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২১ নভেম্বর, ২০২০, ৫:৪৩ পিএম

চট্টগ্রামের রাউজানে চোর ধরতে এক লঙ্কাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে! তাও আবার মুরগি চোর। এ মুরগি চোরকে ধরতে এলো পুলিশ, পুকুরে নামল ফায়ার সার্ভিস। জনগণের ধাওয়ায় পুকুরে ঝাঁপ দেয় ওই চোর। তাকে ওঠাতে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ও পুলিশকে ডাকতে হয়। আজ শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটেছে উপজেলার পূর্ব গুজরা ইউনিয়নের আধার মানিক গ্রামের অলিমিয়া হাটে। 

বাজারের ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা জানান, আজ সকাল ৭টায় অলিমিয়া হাটের মো. বশরের দোকানে ৮টি সোনালী মুরগি বিক্রি করতে আসেন পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ছিটিয়াপাড়ার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে জিসান। প্রায় সময় তিনি মুরগি বিক্রি করতে বাজারে আসতেন। শনিবার সকালে মুরগি নিয়ে আসায় সন্দেহ হয় বশরের। এসময় তিনি জিসানকে মুরগি কোথা থেকে এনেছে জিজ্ঞাসা করলে তিনি মুরগি ফেলে দৌড়ে পালান। এক পর্যায়ে ওই ব্যবসায়ী ও স্থানীয় জনতা তাকে পাকড়াও করার চেষ্টা করলে তিনি বাজারের পার্শ্ববর্তী স্থানীয়ভাবে পরিচিতি জাইম্যা পুকুর নামের একটি পুকুরে ঝাঁপ দেন। স্থানীয় জনতা তাকে পুকুর থেকে ওঠানোর চেষ্টা করলেও তা সম্ভব হয়নি।
পরে পূর্ব গুজরা পুলিশ ফাঁড়ি (তদন্ত) কেন্দ্রের পুলিশকে খবর দেয়া হয়। এরপর এএসআই হাসানের নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে। পুলিশের ডাকে জিসান পুকুর থেকে না উঠলে পরে রাউজান ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড ডিফেন্স সার্ভিসের কর্মীদের খবর দেয়া হয়। তারা আসার প্রায় আড়াই ঘণ্টা পরও জিসান পুকুরেই ছিলেন। অবশেষে ফায়ার সার্ভিসের ৮ কর্মীর মধ্যে ৬ কর্মী পুকুরে নেমে তাকে তুলে আনেন।
স্থানীয় ইউপি সদস্য দিদারুল আলম বলেন, পুকুর থেকে ওঠানোর পর চোর জিসানকে স্থানীয় পূর্ব গুজরা পুলিশ ফাঁড়ি (তদন্ত) কেন্দ্রের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, জিসান আরো কয়েকটি মুরগি চুরি করেছেন বলে তার বাড়ি ছিটিয়াপাড়ার লোকজনের কাছে জানতে পেরেছি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন