বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

হুইল চেয়ারে সভা করতে চান মমতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ মার্চ, ২০২১, ১২:০২ এএম

এখনো হাসপাতালে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার ছয় সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানিয়েছে। তবে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর অবস্থা এখন আগের চেয়ে অনেকটাই ভালো। বৃহস্পতিবার হাসপাতাল থেকেই এক ভিডিওবার্তায় মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, দ্রুত তিনি প্রচারে যেতে চান। প্রয়োজনে হুইল চেয়ারে করে তিনি ঘুরতে চান। সে বিষয়েও শুক্রবার সিদ্ধান্ত নেবে মেডিক্যাল বোর্ড। অন্যদিকে, শুক্রবারই দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের কাছে বিজেপির একাধিক নেতার নামে অভিযোগ জানাতে জানাচ্ছে তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল।

ধবার নন্দীগ্রামে ভোটের মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে আহত হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, পাঁচ-ছয়জন তার গাড়ির উপর হামলে পড়ে। তখনই দুর্ঘটনা ঘটে। ওই দিনই মমতাকে নিয়ে আসা হয় কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে। সেখানেই তার চিকিৎসা চলছে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথমেই ২৯১টি কেন্দ্রে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে দিয়েছেন। পাহাড়ের তিনটি আসন ছেড়ে দিয়েছেন শরিক গোর্খা জনমুক্তি মোর্চাকে। বিজেপি ও বাম জোট প্রথম দুই দফার প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছে। এক্ষেত্রে তিনি বাকিদের থেকে এগিয়ে রইলেন।
মুখ্যমন্ত্রীর চিকিৎসক তথা এসএসকেএম-এর প্রধান মণিময় বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, মমতার বাঁ পায়ে গুরুতর আঘাত আছে। এছাড়াও বাঁ কাঁধ এবং হাতেও চোট আছে। মুখ্যমন্ত্রী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত দৃশ্যত কাহিল ছিলেন। তার মাথায় ব্যথা এবং শ্বাসকষ্ট ছিল। তবে শুক্রবার সকালে তিনি অনেকটাই ভালো আছেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন ওষুধে কাজ হচ্ছে। তবে এখনই তাকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে কি না, তা এখনো স্পষ্ট নয়। মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য আহত অবস্থাতেই সভা করতে চাইছেন।

মুখ্যমন্ত্রীর আঘাত নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে নানা রাজনীতি শুরু হয়ে গেছে। কোনো কোনো রাজনীতিবিদ যেমন তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন, তেমনই কেউ কেউ বিষয়টিকে ‘নাটক’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। তৃণমূল অবশ্য গোড়া থেকেই এর পিছনে বিজেপির চক্রান্ত আছে বলে দাবি করছে। নন্দীগ্রামে ঠিক কী ঘটেছিল, তা নিয়ে পরস্পরবিরোধী তথ্যও সামনে আসছিল। তবে বৃহস্পতিবার রাতে একটি ভিডিও সামনে এসেছে। তাতে স্পষ্টই দেখা যাচ্ছে, মমতার গাড়ি ঘিরে ধস্তাধস্তি চলছে।

সম্প্রতি ব্রিগেডে সভা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে তিনি বলেছিলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্কুটার নন্দীগ্রাম পৌঁছে কোনো দুর্ঘটনায় পড়লে বিজেপি তার দায় নেবে না। দিলীপ ঘোষ এবং বিজেপি যুব মোর্চার বর্তমান সভাপতি সৌমিত্রও খাঁ-ও একই ধরনের মন্তব্য করেছিলেন। সেই মন্তব্যগুলির ভিডিও ক্লিপিং নিয়ে শুক্রবার দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশ জানাতে যাচ্ছে তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল। তৃণমূলের দাবি, প্রধানমন্ত্রী এবং রাজ্য সভাপতির বক্তব্যের পরেই নন্দীগ্রামে আক্রান্ত হয়েছেন মমতা। ফলে এর পিছনে যে চক্রান্ত আছে, তা স্পষ্ট। বিজেপি অবশ্য এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। সূত্র : পিটিআই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন