সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১১ জিলক্বদ ১৪৪৫ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বিধিনিষেধ মানাতে আজ থেকে পাড়া-মহল্লায় বিশেষ অভিযান

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ জুলাই, ২০২১, ১:২৪ পিএম

করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধ মানাতে পাড়া-মহল্লায়ও কঠোর অভিযান পরিচালনার কথা জানিয়েছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

আজ শনিবার দুপুর ১২টায় রাজধানীর রাসেল স্কয়ারে বিধিনিষেধে র‍্যাবের কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কামান্ডার খন্দকার আল মঈন। তিনি বলেন, ‘কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেও যারা বাইরে বের হচ্ছেন তাদের অনেকেই সঠিকভাবে মাস্ক পরিধান করছেন না। তাদেরকে সচেতনতার পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে আমরা শাস্তিমমূলক ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

‘বিধিনিষেধ মানাতে র‍্যাব এখন পর্যন্ত দেশব্যাপী চার শতাধিক মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছে, আর জরিমানা করেছে চার লক্ষাধিক টাকা। দেশজুড়ে নিয়মিত টহল ও চেকপোস্টের বাইরে চার শতাধিক অতিরিক্ত চেকপোস্ট পরিচালনা করে যারা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন তা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘পাড়া-মহল্লায় টহল পরিচালনা করার সময় দেখেছি, অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। বিভিন্ন স্টলে-দোকানে গণজমায়েত দেখা গেছে। তাই সবার প্রতি অনুরোধ পরিবারের কথা বিবেচনা করে হলেও এই কটা দিন করোনার ঝুঁকিপূর্ণ সময়টাতে ঘরে থাকুন। অন্যথায় আমরা মোবাইর কোর্টের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেব।’

এক প্রশ্নের জবাবে র‍্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘আমি এখানে আসার আগে ১০টি চেকপোস্ট পরিদর্শন করেছি, পাড়া-মহল্লায় গিয়েছি। আপনারা যথার্থই বলেছেন, পাড়া-মহল্লায় অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। আজ থেকে পাড়া-মহল্লায় স্পেশাল অভিযান পরিচালনা করা হবে। সম্মানিত নাগরিকদের অনুরোধ করবো পাড়া-মহল্লায় আপনারা জমায়েত হবেন না।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ৩ জুলাই, ২০২১, ৩:০৪ পিএম says : 0
পাড়া মহল্লায় শহরের গ্রামগঞ্জের অলিগলি রাস্তায় হাটে বাজার মানুষের উপস্থিতি সমাগম ভিড় কখনো নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবেনা।এটি বাংলাদেশের মানুষের নৈতিক চরিত্র নেশা পেশা অভ‍্যাস পরি ণত হয়েছে। একমাত্র বিকল্প কারফিউ কারফিউ অর্ডার দেখা মাত্র ফাইনাল খেলা। কঠিন কঠোর নির্দেশ একমাত্র সমাদান। আজকে বাজারে গিয়ে মানুষের শৃংখলার চরমভাবে অবহেলা চুখে পড়লো । ইচ্ছামতো যার যার খুশী মতো চলাপেরা দেখলাম এটি চট্টগ্রামে চকবাজারের চিত্র।লকডাউন মানুষের চলাফেরা বন্ধ করার কারণ অদৃশ্য ভাইরাস প্রতিরোধ মুলক কঠিন ব‍্যবস্থা যাতে ভাইরাস একথেকে আরেক জনের শরীর ছড়াতেনা পারে ভাইরাসের লাগাম টেনে ধরা। মানুষ মানছেনা স্বাস্থ্যবিধি মুখে মাক্সনেই। দোকান দার কর্মচারী কাষ্টমার সবাই উদাসীনতার মাঝে।দেশে দিন দিন আক্রান্ত মৃত্যুর মিছিল বড় হচ্ছে ভাইরাস নিযন্ত্রনের কোন লক্ষন দেখা যাচ্ছেনা। দেশের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়ে ছিলেন কঠোর শাডডাউনের। আন্তর্জাতিক ভাবে ভাইরাস নিযন্ত্রনের একমাত্র পথ লকডাউন। দিল্লিতে কারফিউ দিয়ে সুফল পেয়েছেন। বাংলাদেশে কারফিউ ছাড়া বিকল্প কি আছে জানিনা। বিধি নিষেধ কার স্বার্থের বিষয়।জনগণের জানমালের নিরাপত্তা মানুষের জীবনের নিরাপত্তা সর্বস্তরের মানুষের জন্যে র‍্যাব পুলিশ সেনাবাহিনীর রাজপথে অবস্থান।ব‍্যার্থ হলে কিহবে উত্তর সুজা। বাংলাদেশ কবরস্থানে পরিণত হবে। সরকারের নিকট বিনীতভাবে অনুরোধ এটি মানুষের জীবন মৃত্যুর বিষয় শৃংখলার জন্যে কঠিন কঠিন শাসনব্যবস্থা মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্যে অনিবার্য হয়ে পড়েছে। জনস্বার্থে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন