রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

পুলিশসহ আহত ৩০

রূপগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ীদের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৬ জুলাই, ২০২১, ১২:০১ এএম

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মাদক ব্যবসায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মাদক ব্যবসায়ীদের দুই গ্রুপের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে ৭ পুলিশ সদস্যসহ উভয়পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বেশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করেন। এক গ্রুপ আরেক গ্রুপের বাড়িঘরে হামলা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটিয়েছে।

এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো, চনপাড়া ৮নং ব্লক এলাকার সিরাজুল ইসলামের ছেলে মামুন ও ৪নং ব্লক এলাকার মিন্টুর ছেলে নাঈম। গত রোববার রাতে উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের চনপাড়া পুনর্বাসন কেন্দ্রে ঘটে এ সংঘর্ষের ঘটনা।

এদিকে, পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক পরেশ বাগচি বাদী হয়ে উভয় গ্রুপের মাদক ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদীন, শাহিন ওরফে সিটি শাহিনসহ ২১ জনের নাম উল্লেখ করে রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

জানা গেছে, জয়নাল আবেদীন ও শাহিন ওরফে সিটি শাহিনের নেতৃত্বে চনপাড়া পূনর্বাসন কেন্দ্র এলাকায় দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন ধরনের মাদক ব্যবসা চলে আসছিলো। মাদক ব্যবসার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে জয়নাল আবেদীন গ্রুপের সঙ্গে শাহিন গ্রুপের বিরোধ চলছে। শাহিন গ্রুপের রবিন নামে মাদক ব্যবসায়ী চনপাড়া পূনর্বাসন কেন্দ্রের ৬নং ব্লক এলাকায় মাদকের স্পট দিয়ে বসে। ৬নং ব্লক এলাকাটি জয়নাল আবেদিনের নিয়ন্ত্রণে। এতে বাধা দেয় জয়নাল আবেদিন গ্রুপ। গত রোববার সন্ধ্যার পর এ নিয়ে জয়নাল আবেদীনসহ তার লোকজনের সঙ্গে শাহিনসহ তার লোকজনের বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। রাত ৯টার দিকে উভয়গ্রুপের লোকজন রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে রূপগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেন।

এসময় ৭ পুলিশ সদস্য আহত হন। এছাড়া মাদক ব্যবসায়ীদের দুই গ্রুপের অন্তত ২৩ জন আহত হয়েছেন। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৭২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করেন। এ ঘটনায় পুলিশ মামুন ও নাঈম নামের দুইজনকে গ্রেফতার করে।

এ বিষয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম সায়েদ বলেন, ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পুলিশের উপর হামলাকারীসহ অন্যায়কারী কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। উভয় গ্রুপের অভিযুক্তদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন