শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

লৌহজং ইউপি নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১০ ডিসেম্বর, ২০২১, ৯:২১ পিএম

আগামী ২৬ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনি দিন ঘনিয়ে আসায় এসব ইউনিয়নে জমে উঠেছে প্রার্থীদের ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা। উপজেলা জুড়ে প্রার্থীদের পোস্টারে ও স্টিকারে ছেয়ে গেছে নির্বাচনী এসব এলাকা। তবে এ ক্ষেত্রে মানা হচ্ছেনা নির্বাচন অফিসের দেওয়া বিধি নিষেধ। এমনকি বিধি নিষেধ প্রয়োগে নির্বাচন কমিশন সংশ্লিষ্টদের তৎপরতা চোখে পড়েনি।

সরজমিনে দেখা যায়, প্রচার-প্রচারণায় গাওদিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার প্রার্থী তোবারক ঢালী ফুটবল প্রতীক ও সিরাজ বেপারীর মোরগ প্রতীক প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় মানতে দেখা যায়নি বিধি নিষেধ। গাওদিয়া ১নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দেয়াল,ঘরের দেওয়াল, বিদ্যালয়ের প্রধান গেইট, শহীদ মিনার, ঘরের টিনসহ বিভিন্ন স্থানে ফুটবল ও মোরগ মার্কার পোস্টার ও স্টিকার লাগানো হয়েছে। সে সাথে সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে ব্যান্ডপার্টি ও মাইক দিয়ে মিছিলের মাধ্যমে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে গাওদিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য প্রার্থী তোবারক ঢালী (ফুটবল মার্কা) জানান, ভুল করে ফেলছি। রাতে মিছিল করাটা ঠিক হয়নি। সে সাথে পোষ্টারগুলো ভুলে লাগানো হয়েছে। আমি দেখিনি। ছেলে-পেলেরা লাগিয়েছে। দ্রুতই এগুলো উঠিয়ে ফেলার ব্যবস্থা করবো।

আরেক প্রার্থী সিরাজ বেপারী (মোরগ মার্কা) জানান, আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়টি আমার জানা রয়েছে। বিভিন্ন দেয়ালে যে সকল পোষ্টার লাগানো হয়েছে। সেগুলো আমার সমর্থনকারীরা অতি উৎসাহিত হয়ে ভুল করে লাগিয়ে ফেলেছে। আমি আর এ রকমভাবে বিধি নিষেধ অমান্য করবো না। আর যে সকল পোষ্টার লাগানো হয়েছে সেগুলো তুলে ফেলবো।

এবিষয়ে গাঁওদিয়া ১নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইব্রাহিম মোড়ল বলেন, আমরা গত বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার পরে বিদ্যালয় থেকে চলে যাওয়ার পরে কারা এই পোস্টার লাগিয়েছে আমরা দেখিনি। স্কুলে (ফুটবল মার্কা) তোবারক ঢালী ও মোরগ মার্কা সিরাজ ব্যাপারী পোস্টার লাগানো রয়েছে। এবিষয়ে স্কুল কমিটিকে জানানো হয়েছে।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রিয়াজ আহম্মেদ জানান, আমরা যে দিন প্রতীক দিয়েছি। সেদিন প্রার্থীদের আচরণবিধির বই দিয়েছি। আমি উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের পর্যবেক্ষণে রয়েছি। গাওদিয়ায় মেম্বার প্রার্থীদের আচরণবিধি লঙ্ঘনের ঘটনাটি সরজমিনে গিয়ে দেখবো। পাশাপাশি ঘটনার সত্যতা পেলে এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন