রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

ইভ্যালি’র নতুন এমডি

আশা দিয়ে এখন নিজেই হতাশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ১২:০২ এএম

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি। প্রতিষ্ঠানটির গ্রাহকরা দীর্ঘদিন থেকে হতাশার মধ্যে আছেন। আর এতোদিন গ্রাহকদের হতাশ না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে আসা প্রতিষ্ঠানটির নতুন পরিচালনা বোর্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মাহবুব কবীর মিলন এখন নিজেই হতাশ। সাবেক অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবীর গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে পোস্ট দিয়ে নিজের হতাশা জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এখন কোম্পানিটি ছেড়ে দেয়া ছাড়া আমার আর কোনো উপায় নেই।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এই পোস্টে শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত ৯ হাজার ৭০০ জন ফেসবুক ব্যবহারকারী তাদের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। ফেসবুক পোস্টে মাহবুব কবীর লিখেছেন- ‘কোম্পানি রান করবে, না দেউলিয়া ঘোষিত হবে সে সিদ্ধান্ত নেবে একমাত্র ব্যবস্থাপনা পরিচালক। মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগের আদেশে সুস্পষ্টভাবে সেটাই বলা আছে। কোম্পানি রান করার বিন্দুমাত্র সুযোগ থাকলে তার চেষ্টা না করে কোনো অবস্থাতেই লাখ লাখ মানুষকে পথে বসানোর সিদ্ধান্ত দেবে না ব্যবস্থাপনা পরিচালক। তিনি কোম্পানির টাকায় এক কাপ চা-ও খাননি, খাবেনও না। বিনা পারিশ্রমিকে নিজের গাড়ি, তেল-মবিল পুড়িয়ে অফিস করছেন। সেখান থেকে বের হবার দিন পর্যন্ত মানুষের কল্যাণের উদ্দেশ্যে তাই করে যাবেন। গালাগালি খুব করে করতে থাকুন, যাতে তার দ্রুত সেখান থেকে বের হয়ে যাবার পথ ত্বরান্বিত হয়। তিনি অনেক কিছুই গুছিয়ে এনেছিলেন। আল্লাহপাক আপনাদের হেফাজত করুন। আমি একা এই অফিস ঝাড়ু দিয়েছি। ২০/২৫ দিন শুধুমাত্র একা অফিস করেছি। দ্বিতীয় কেউ ছিল না। বাসায় গিয়ে রাত ১২টা পর্যন্ত কাজ করেছি গত দুই মাস ধরে। অনেক কিছুই গুছিয়ে এনেছিলাম। আহা! আমাকে করা গালাগালির ভাষাগুলো দেখছি আর চরমভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ছি। ছেড়ে দেয়া ছাড়া আমার আর কোনো অপশন নেই।’
ফেসবুক পোস্ট সম্পর্কে জানতে চাইলে মাহবুব কবীর বলেন, এ বিষয়ে কোনো কথা তো বলব না। কথা বলার মতো অবস্থানেও নেই আমি। জানি না কী হবে।
প্রতারণার অভিযোগে গত বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ রাসেল ও তার স্ত্রী কোম্পানির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন গ্রেফতার হন। কোম্পানিটির কাছে গ্রাহকদের পাওনা অর্থ ফিরিয়ে দিতে হাইকোর্টের নির্দেশে গত ১৮ অক্টোবর ইভ্যালি পরিচালনার দায়িত্ব নেন আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকের নেতৃত্বে গঠিত পাঁচ সদস্যের পরিচালনা পরিষদ। এই পরিষদ ইভ্যালির অর্থ ও সম্পদ উদ্ধারে নানামুখী কার্যক্রম নিয়েছে। মাহবুব কবীর মিলনকে পর্ষদের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব দেয়া হয়।
দায়িত্ব পেয়ে ইভ্যালি গ্রাহকদের হতাশ না হওয়ার পরামর্শ দেন মাহবুব কবীর। গত ২৬ অক্টোবর ফেসবুক স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছিলেন, ‘যা কিছু দেখবেন শুনবেন জানবেন, আতঙ্কিত বা হতাশ হবেন না। আস্থা বা বিশ্বাস রাখুন, অপেক্ষা করুন। কষ্ট যা হবে, আমার হবে। হয়ত তিন গুণ কষ্ট বেড়ে যাবে, এই যা। যা হবে বিন্দু পরিমাণ বিচ্যুতি বা অনিয়ম বা ম্যানিপুলেশন থাকবে না। সময় দিন। অপেক্ষা করুন।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps