বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪

সারা বাংলার খবর

বাংলার বীর সন্তানদের রক্তের বিনিময়ে এদেশের রাস্ট্রভাষায় স্বীকৃতি পায় - এমপি শাওন

ভোলা জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৪:০০ পিএম

শহীদ বেদীতে পুস্পস্তবক অর্পণ ও শ্রদ্ধাঞ্জলি, প্রভাত ফেরী, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি, ফ্রি রক্তের গ্রুপ নির্নয়, মাস্ক বিতরণ ক্যাম্পেইন, পুরস্কার বিতরণ, আলোচনা সভা এবং যথাযথ মর্যাদার মধ্য দিয়ে ভোলার লালমোহনে মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। একুশের প্রথম প্রহরে রাত ১২ টা ১ মিনিটি গভীর শ্রদ্ধায় লালমোহন কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে প্রথমে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান ভোলা-৩ (লালমোহন-তজুমদ্দিন) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন, উপজেলা প্রশাসন ও সর্বস্তরের জনগণ। ২১ ফেব্রুয়ারি সকালে লালমোহন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে প্রভাত ফেরী বের হয়ে সজীব ওয়াজেদ জয় ডিজিটাল পার্কের শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়। প্রভাত ফেরী শেষে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার পল্লব কুমার হাজরার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন ভোলা-৩ (লালমোহন-তজুমদ্দিন) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন। প্রধান অতিথি চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।
এরপর এমপি শাওন হাজী মোঃ নূরুল ইসলাম চৌধুরী মহাবিদ্যালয়ে বিভিন্ন কর্মসুচী ও সভায়
প্রধান অতিথির আলোচনা সভায় বলেন, আজ থেকে প্রায় ৭০ বছর আগে আজকের এই দিনে মাতৃভাষার অধিকার রক্ষার দাবিতে তৎকালীন শাসকদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে বাংলার বীর সন্তানেরা নেমে এসেছিল রাজপথে। মাতৃভাষার দাবীতে ১৯৫২ সালে বুকের তাজা রক্ত দিয়েছিল সালাম, রফিক, বরকত, শফিক, জব্বারসহ অনেকে। বাংলার বীর সন্তানদের রক্তের বিনিময়ে এদেশের রাস্ট্রভাষায় স্বীকৃত পায়। পৃথিবীর কোন দেশের মানুষ ভাষার জন্য প্রাণ দিতে হয়নি। শুধু এই জাতিকে নিজ ভাষার জন্য প্রাণ দিতে হয়েছে। ১৯৯৯ সালে জাতিসংঘের স্বীকৃতির পরই এখন এ দিনটি শুধু আমাদের দেশে নয় সারা বিশ্বে পালন করা হয়।
এসময় অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, লালমোহন সকহারি কমিশনার (ভূমি) মোঃ জাহিদুল ইসলাম, হাজী মোঃ নূরুল ইসলাম চৌধুরী মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ শাহাজাহান, লালমোহন থানা অফিসার ইনচার্জ মাকসুদুর রহমান মুরাদ, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ রফিকুল ইসলাম,প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সোহাগ ঘোষ,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবুল হাসান রিমন,পৌরসভা আওয়ামীলীগের আহবায়ক শফিকুল ইসলাম বাদল, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থীবৃন্দ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন