বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

যুবতীকে ব্লাকমেইল করে ধর্ষণ, আত্মহত্যার চেষ্টা

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৭:৩২ পিএম

১৯ বছরের এক যুবতীর গোসল করার ভিডিও ধারণ করে তা দেখিয়ে ব্লাকমেইল করে একাধিকবার ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী যুবক জনি দেবনাথের বিরুদ্ধে। বিষয়টি নব-নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িতে বসে সালিশ করতে চাইলে ধর্ষককে হাজির না করে লুকিয়ে রাখে তার পরিবার। ফলে ওই যুবতী গতকাল বুধবার দুপুরে ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্বহত্যার চেষ্টা চালায়। ধর্ষক জনি দেবনাথ (২৬) প্রতিবেশী দুলাল দেবনাথের ছেলে। সে গত ৩ বছর পূর্বে কাতার থেকে দেশে আসে। বর্তমানে সে নরসিংদীর মাধবদীতে কাপড়ের ব্যবসা করছে বলে জানা গেছে। কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন পূর্বধইর পশ্চিম ইউনিয়নের হাটাশ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী যুবতীর অভিযোগ, গত ৫ বছর পূর্বে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তার উপর কু-দৃষ্টি পড়ে প্রতিবেশী দুলাল দেবনাথের ছেলে প্রবাসী জনি দেবনাথের। গত ২ মাস পূর্বে গোসলখানায় গোসল করার সময় জনি লুকিয়ে আমার ভিডিও করে। ওই গোসলের ভিডিও দেখিয়ে জনির সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে বলে। তা না হলে ভিডিওগুলো ফেসবুকে ছড়িয়ে দিবে, এমন ভয় দেখিয়ে আমাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

যুবতীর মা কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, আমি গত ৯ ফেব্রুয়ারি (বুধবার) কাজে গিয়েছিলাম, বাড়ি ফিরে লোকজনের মুখে এ খবর শুনি। আমাকে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করে স্থানীয় ভাবে আপোষ মীমাংসার কথা বলা হয়। অন্যথায় ধর্ষণের ঘটনা জানাজানি হলে মেয়ের বিয়ে দিতে পারবো না বলেও ভয় দেখায়। আমি গরিব মানুষ, আইন আদালত বুঝি না। তাই আপোষ মীমাংসা করতে রাজি হয়েছি। কিন্তু গত রোববার রাতে নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম পারভেজের বাড়িতে সালিশ বসে। ওই সালিশে ধর্ষককে হাজির না করে লুকিয়ে রাখে তার পরিবার। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ওই যুবতী গতকাল বুধবার দুপুরে ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্বহত্যার চেষ্টা চালায়। বিষয়টি জানতে পেরে এলাকাবাসী ওই যুবতীকে প্রথমে বাঙ্গরা উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ও পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করানো হয়।

পূর্বধইর পশ্চিম ইউপি’র নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম পারভেজ বলেন, ঘটনাটি স্পর্শকাতর হওয়ায় মেয়েটির ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করি। এলাকার গণ্যমান্য লোকজন দু’পক্ষকে আমার বাড়িতে নিয়ে এসে সালিশ করেছেন। সালিশে অভিযুক্ত জনি দেবনাথ উপস্থিত না থাকায় বিচার করা সম্ভব হয়নি।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত জনি দেবনাথ পলাতক থাকায় যোগাযোগের চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে তার মা অর্চনা দেবনাথ বলেন, শুনেছি একটি ভিডিও নিয়ে কি জানি হয়েছে। এর বেশী আমি কিছু জানিনা।

বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার সাংবাদিকদের বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় কেউ অভিযোগ করেনি। তারপরও বিষয়টি খোঁজ-খবর নিয়ে দেখব। যদি ঘটনা সত্যি হয়, তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps