বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

ঘোড়া-ঘড়ির রশি টানাটানি সুবিধায় রয়েছে নৌকা

কুসিক ভোটের দিকে সবার চোখ

সাদিক মামুন, কুমিল্লা থেকে | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০২২, ১২:০১ এএম

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) তৃতীয় এবং নতুন নির্বাচন কমিশনের অধীনে প্রথম নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার সকল প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। আসছে বুধবার কুসিকের ভোট অনুষ্ঠিত হবে। জাতীয়, স্থানীয় মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বদৌলতে কুসিক নির্বাচনের দিকে দেশ-বিদেশের বাঙলা ভাষাভাষি কোটি কোটি মানুষের চোখ।

কে হচ্ছেন কুসিকের মেয়র? আওয়ামী লীগের আরফানুল হক রিফাত নাকি স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সার ও মনিরুল হক সাক্কুর মধ্যে কেউ? এ প্রশ্নের আলোচনা এখন কুমিল্লা ছাপিয়ে দেশব্যাপী। ভোটযুদ্ধের সময় কাছাকাছি চলে আসায় তিন মেয়র প্রার্থীর প্রচারনায় নতুন মেরুকরণ সৃষ্টি হচ্ছে। শুক্রবার থেকে বিরামহীন প্রচারণা চলছে। তিন মেয়র প্রার্থী ভোটারের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন। হেভিওয়েট প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কুর তুলনায় বেশ খোশ মেজাজেই ভোটের মাঠে সরব স্বতন্ত্র প্রার্থী ঘোড়া প্রতীকের নিজাম উদ্দিন কায়সার।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের (নাসিক) ফলাফল মাথায় রেখেই কুসিকে নৌকার রিফাতের জয় কোনভাবেই যাতে হাতছাড়া না হয় সে লক্ষ্য নিয়ে এগুচ্ছে আওয়ামী লীগ। ইতোমধ্যে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সমন্বয় টিমের প্রতিনিধিরা নগরীতে নৌকার পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছেন। তারা বলেছেন, নগর উন্নয়নের স্বার্থে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে রিফাতকে জয়যুক্ত করতে কুমিল্লার মানুষকে পরিবর্তনের পক্ষে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

অন্যদিকে বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলেও দল থেকে অব্যাহতি নিয়ে মনিরুল হক সাক্কু ও নিজাম উদ্দিন কায়সারের মেয়র পদে প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন বিএনপি নেতারা। দু’জনকে দল থেকে বহিস্কার করা হলেও নেতাদের চোখ রয়েছে কায়সার ও সাক্কুর ওপর। কুমিল্লা জেলা বিএনপির অধিকাংশ নেতাকর্মীই প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী নিজাম উদ্দিন কায়সারের পক্ষেই অবস্থান নিয়েছেন। তৃণমূল ও মূলধারার বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনগুলো কায়সারের ভগ্নিপতি সাবেক এমপি হাজী আমিন উর রশিদ ইয়াছিনের নিয়ন্ত্রণে।

সেই হিসেবে প্রচার-প্রচারণায় কায়সারের ঘোড়া অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠছে। নির্বাচনী প্রচারণায় কায়সার অত্যন্ত কৌশলী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন। তিনি তার বক্তব্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে যেমন ছেড়ে কথা বলছেন না, তেমনি গত ৫ বছর মেয়রের দায়িত্বে থাকা সাক্কুকে একজন ব্যর্থ জনপ্রতিনিধি ও আওয়ামী লীগপ্রীতি মেয়র হিসেবে তার কর্মকান্ড তুলে ধরছেন।

কায়সার তার বক্তব্যে গত বছর সাক্কু বিএনপির জন্য কতোটা ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন এটাও তুলে ধরছেন। যারা বিএনপির আদর্শে বিশ^াসী তাদেরকে ঘোড়া প্রতীকে ভোট দেওয়ার অনুরোধ করেন। এছাড়াও তিনি সাক্কুকে আওয়ামী লীগের সঙ্গে আঁতাতকারি উল্লেখ করেন।

এদিকে নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের জায়গা নিশ্চিতের দাবী করে আসছেন সাক্কু। তবে এতোদিন প্রচারণার মাঠে নৌকার বিরোধিতায় মগ্ন থাকলেও গত বৃহস্পতিবার থেকে ঘোড়া প্রতীকের কায়সারের সমালোচনায় নেমেছেন সাক্কু ও তার স্ত্রী টিকলী। সাক্কুর স্ত্রী তার স্বামী বিএনপির খাঁটি লোক এটা প্রমাণের জন্য প্রচারণার মাঠে খালেদা জিয়ার বক্তব্য দেওয়া ছবির পাশে সাক্কু দাঁড়িয়ে রয়েছেন এমন ছবিও ভোটারদের সামনে প্রদর্শন করতে হচ্ছে।

কুমিল্লে জেলার রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, ভোটের মাঠে ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থী কায়সারের কৌশলী প্রচারণা সাক্কুর টেবিল ঘড়ি প্রতীকের জন্য বিপদ ডেকে আনছে। কায়সারের ঘোড়ার অপ্রতিরোধ্য দৌড়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এগুতে পারছে না সাক্কুর টেবিল ঘড়ির কাঁটা। একই রাজনৈতিক ঘরণার (বিএনপির) দুই প্রার্থীর রশি টানাটানিতে নির্বাচনী বৈতরণী পার হওয়ার পথ সুগম হচ্ছে রিফাতের।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন