রোববার, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯, ১৩ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

জাতীয় সংবাদ

‘জয় বাংলা’ সেøাগান দিয়ে মেয়র তাপসের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের হামলা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ ডিসেম্বর, ২০২২, ১২:০০ এএম

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের উপস্থিতিতে ঢাকা আলিয়া মাদরাসার দক্ষিণ পাশের একটি মাঠ উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনা ঘটে। ঢাকা আলিয়া মাদরাসা শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এ হামলা চালিয়েছেন বলে জানা গেছে। হামলার ঘটনায় কয়েকজন আহত হয়েছেন। গতকাল বুধবার পুরান ঢাকার বকশীবাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। হামলার সময় হামলাকারীরা ‘জয় বাংলা’ বলে সেøাগান দিতে থাকেন। ‘অ্যাকশন অ্যাকশন, ডাইরেট অ্যাকশন’ বলে হামলা চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, মাদরাসার দক্ষিণ পাশের একটি মাঠ উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনাটি ঘটে। মাঠ উদ্বোধনের সময় ঢাকা আলিয়া মাদরাসা শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালান। এতে স্থানীয় কাউন্সিলরের কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন। স্থানীয় ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ওমর বিন আবদুুল আজিজ ও ডিএসসিসির একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মাঠটির মালিকানা দাবি করে আসছে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, মাঠটির মালিক তারা। তারা মাঠটি প্যারেড গ্রাউন্ড হিসেবে ব্যবহার করে আসছে। মাঠের মালিকানা নিয়ে মাদরাসা ও কারা কর্তৃপক্ষের মধ্যে আদালতে মামলা চলছে। এমন প্রেক্ষাপটে ডিএসসিসি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা মাঠটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়। কারণ, আইন অনুযায়ী, সিটি করপোরেশন এলাকার মাঠ দেখার দায়িত্ব ডিএসসিসির। মাঠটির সংস্কার কার্যক্রম শুরু করতে গিয়েও বাধার মুখে পড়েন ডিএসসিসির প্রকৌশলীরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ডিএসসিসির দায়িত্বশীল এক প্রকৌশলী বলেন, মাদরাসার শিক্ষার্থীরা চাচ্ছেন, মাঠটির নাম হোক ‘ঢাকা আলিয়া মাদরাসা মাঠ’। কিন্তু ডিএসসিসি নাম দিয়েছে ‘বকশীবাজার কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ’। মাঠের নামকরণ নিয়ে মাদরাসার শিক্ষার্থীদের আপত্তি ছিল। এ কারণেই তারা হামলা চালিয়েছেন। সংস্কারকাজ শেষে মাস দেড়েক আগে মাঠের মূল ফটকে নামফলক বসাতে গিয়েছিলেন ডিএসসিসির কর্মকর্তারা। তখন মাদরাসার শিক্ষার্থী তথা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ডিএসসিসির কর্মকর্তাদের ওপর চড়াও হয়েছিলেন।

ডিএসসিসির এই প্রকৌশলী জানান, পূর্বঘোষণা অনুযায়ী, গতকাল মাঠটি উদ্বোধনের সময়সূচি নির্ধারিত ছিল। খবর পেয়ে সকাল থেকে মাদরাসার ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মাঠ এলাকায় অবস্থান নেন। তারা ‘জয় বাংলা’ বলে সেøাগান দিতে থাকেন। ‘অ্যাকশন অ্যাকশন, ডাইরেট অ্যাকশন’ বলেও তারা সেøাগান দেন। বকশীবাজার এলাকায় মেয়র পৌঁছার পরও তারা সেøাগান দিতে থাকেন। নামফলকের সামনে লাগানো কাপড়টি যখন মেয়র সরিয়ে উদ্বোধন করতে যাচ্ছিলেন, ঠিক তখনই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অনুষ্ঠানে আসা লোকজনের ওপর হামলা চালান। এ ঘটনার পরই সেখান থেকে চলে যান মেয়র।

ডিএসসিসির মুখপাত্র ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবু নাসের সাংবাদিকদের বলেন, এ ঘটনায় মেয়রের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। তিনি নামফলক উদ্বোধন শেষে নিরাপদে নগর ভবন এসেছেন।
কাউন্সিলর ওমর বিন আবদুল আজিজ বলেন, হামলার ঘটনায় তার এক কর্মীর চোখের ওপর ইটের অংশ এসে পড়ে। এতে তার চোখ জখম হয়েছে।

জানতে চাইলে ঢাকায় আলিয়া মাদরাসা শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি জোবায়ের খান বলেন, ১৯৮৬ সাল থেকে মাঠটির মালিকানা নিয়ে কারা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মাদরাসা কর্তৃপক্ষের বিরোধ চলছে। এখন এই মাঠের মালিকানা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে মামলা চলছে। এমন পরিস্থিতিতে ডিএসসিসি বলে, তারা মাঠের সংস্কারকাজ করবে। আমরা প্রথমে আপত্তি জানিয়েছিলাম। পরে মাদরাসা কর্তৃপক্ষকে ডেকে ডিএসসিসি বলে, শিক্ষার্থীরা যেভাবে চাইবেন, সেভাবেই করা হবে। কিন্তু হঠাৎ নামফলকে বকশীবাজার কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ নামকরণ করে মাঠের উদ্বোধন করা হচ্ছে শুনে শিক্ষার্থীরা সেখানে জড়ো হন। তারা এই নামকরণের প্রতিবাদ জানান। একপর্যায়ে পুলিশ শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠিপেটা করে। কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে। এই ঘটনায় অন্তত ২০ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

হামলার বিষয় জানতে চাইলে ছাত্রলীগের এই নেতা বলেন, আন্দোলনকারীদের মধ্যে জামায়াত-বিএনপির লোকজন থাকতে পারেন। পরিস্থিতি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য অতিউৎসাহী হয়ে তারা হামলা চালাতে পারেন। কিন্তু এই ঘটনার পর ছাত্রলীগ সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন