মঙ্গলবার , ২৮ মার্চ ২০২৩, ১৪ চৈত্র ১৪২৯, ০৫ রমজান ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

রাশিয়ার অভিযানে ২৪ ঘণ্টায় ১৬৫ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত

বাখমুতের উত্তর অংশে তীব্র লড়াই চলছে শত্রæর বিরুদ্ধে লড়াই দিন দিন আরো কঠিন হয়ে পড়ছে : জেলেনস্কি কোনো হুমকি দেননি রুশ প্রেসিডেন্ট : জার্মান চ্যান্সেলর কিয়েভকে ব্যবসায়ীর ব্যক্তিগত সম

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

রাশিয়ান সশস্ত্র বাহিনীর আর্টিলারি ফায়ার ইউনিট ও ভোস্টক গ্রæপের অভিযানে গত ২৪ ঘন্টায় ইউজনো-ডোনেটৎস্ক এবং জাপোরোজিয়ে এলাকায় ইউক্রেনীয় সশস্ত্র বাহিনীর ১৩০ জনেরও বেশি সেনা নিহত হয়েছে। সেই সাথে খারকভ এলাকায় নিহত হয়েছে ৩৫জন ইউক্রেনীয় সেনা। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ গতকাল সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ ঘোষণা দেন।

তিনি বলেছেন, ‘ইউজনো-ডোনেৎস্ক এবং জাপোরোজিয়ে নির্দেশনায় আর্টিলারি ফায়ার এবং সৈন্যদের ভোস্টক গ্রæপের সক্রিয় অভিযানের ফলে ১৩০জনেরও বেশি ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হয়েছে।’ এছাড়াও, তার মতে, দশটি সরঞ্জাম ধ্বংস করা হয়েছে। ‘দুটি ট্যাংক, একটি পদাতিক ফাইটিং ভেহিকেল, দুটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, দুটি সামরিক যান, একটি গভোজডিকা স্ব-চালিত হাউইটজার, সেইসাথে ডি-৩০ এবং ডি-২০ হাউইটজার ধ্বংস করা হয়েছে,’ তিনি বলেছিলেন। তার মতে, খারকভ অঞ্চল এবং লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিকের ইউক্রেনীয় সশস্ত্র বাহিনীর ছয়টি নাশকতা এবং পুনরুদ্ধার গোষ্ঠীর কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছিল। কোনাশেনকভ জোর দিয়ে বলেন, ‘ওই এলাকায় ৩৫ জন ইউক্রেনীয় সেনা সদস্য নিহত, একটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান এবং দুটি যানবাহন ধ্বংস করা হয়েছে।’

রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ২টি ড্রোন, ১১টি উরাগান এবং হিমারস শেল গুলি করে নামিয়েছে। ‘বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের ইয়েগোরোভকা এবং খেরসন অঞ্চলের আলয়োশকার বসতি এলাকায় দুটি ইউক্রেনীয় মানববিহীন বিমানবাহী যানকে ধ্বংস করেছে। এছাড়াও, ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের ভলনোভাখা এবং জাপোরোজিয়ে অঞ্চলের টোকমাকের বসতিগুলির অঞ্চলে উরাগান এবং হিমার্স একাধিক লঞ্চ রকেট সিস্টেমের ১১টি রকেট গুলি করে ধ্বংস করা হয়েছিল,’ কোনাশেনকভ বলেছেন।

বাখমুতের উত্তর অংশে তীব্র লড়াই চলছে : ওয়াগনার প্রাইভেট মিলিটারি কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা, ইয়েভজেনি প্রিগোজিন নিশ্চিত করেছেন যে, আর্টেমভস্কের উত্তরাঞ্চলে (ইউক্রেনীয় নাম বাখমুত) আক্ষরিক অর্থে ‘প্রতিটি রাস্তার জন্য’ ভয়ঙ্কর যুদ্ধ রয়েছে।

‘আমি পরিস্থিতি স্পষ্ট করছি। ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী পিছু হটছে না। তারা শেষ খাদ পর্যন্ত লড়াই করছে। আর্টেমভস্কের উত্তরাঞ্চলে, প্রতিটি রাস্তা, প্রতিটি বাড়ি, প্রতিটি সিঁড়ির জন্য ভয়ঙ্কর যুদ্ধ চলছে,’ তিনি বলেছিলেন। তার কথাগুলো তার প্রেস সার্ভিস টেলিগ্রাম চ্যানেলে প্রকাশিত হয়েছে। ‘অবশ্যই, এটা চমৎকার যে মিডিয়া ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর পশ্চাদপসরণ কামনা করে, তবে এটি উত্তর কোয়ার্টারে, বা দক্ষিণে বা পূর্বে ঘটছে না,’ শহরের উত্তর জেলা থেকে ইউক্রেনীয় ইউনিট প্রত্যাহারের মিডিয়া রিপোর্ট সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেছিলেন।

এর আগে, ডোনেৎস্ক পিপলস রিপাবলিকের ভারপ্রাপ্ত প্রধান ডেনিস পুশিলিন বলেছিলেন যে, রাশিয়ান বাহিনী নিয়মতান্ত্রিকভাবে আর্টেমভস্ক অঞ্চলে ইউক্রেনীয় গোষ্ঠীর সরবরাহ লাইন কেটে ফেলার জন্য এবং এটিকে ছিন্ন করার জন্য কাজ করছে। লুহানস্ক পিপলস রিপাবলিকের পিপলস মিলিশিয়ার অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্নেল আন্দ্রে মারোচকো জানিয়েছেন যে, রাশিয়ান বাহিনীকে আর্টেমভস্কের চারপাশ ঘেরাও করতে প্রায় ১০ কিমি এগিয়ে যেতে হবে।

শত্রæর বিরুদ্ধে লড়াই দিন দিন আরও কঠিন হয়ে পড়ছে : ইউক্রেনে শত্রæর বিরুদ্ধে লড়াই দিন দিন আরও কঠিন হয়ে পড়ছে। রাশিয়া ধীরে ধীরে অনেক সেনা মাঠে নামাচ্ছে। এমন কথা জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।
পশ্চিমাদের ট্যাংক সরবরাহের ঘোষণার পর দেশটিতে হামলা জোরদার করেছে রুশ সেনারা। দেশটির বাখমুত দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে পুতিন বাহিনী। সেইসঙ্গে ভোলেদারও দখলে নিতে চায় তারা। শনিবার রাতে এক ভিডিওবার্তায় জেলেনস্কি বলেন, যারা ফ্রন্টলাইনে যুদ্ধ করছে তাদের জন্য পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। দখলদারেরা দলে দলে নতুন সেনাবাহিনী মাঠে নামাচ্ছে এবং আমাদের প্রতিরক্ষা ভেঙে দিতে সক্ষম হচ্ছে। জেলেনস্কি আরও বলেন, বাখমুত, ভোলেদার, লিমানসহ ওই অঞ্চলের শহরগুলোর ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখা কঠিন হয়ে পড়েছে।

অবশ্য এর আগে দেশটির ডেপুটি প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হান্না মালইয়ার টেলিগ্রামে লিখেছেন, বাখমুত ও লিমানে রুশ সেনারা ইউক্রেন বাহিনীর প্রতিরক্ষা ভাঙতে ব্যর্থ হয়েছে। লিমান শহরটি বাখমুতের উত্তরে অবস্থিত। গত অক্টোবরে রাশিয়ার কবল থেকে মুক্ত করা হয় এই শহর। ফের এটি রাশিয়ার দখলে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এর আগে শুক্রবার জেলেনস্কি প্রতিশ্রæতি দিয়ে বলেন, বাখমুত রক্ষায় আমৃত্যু লড়াই করে যাবে ইউক্রেনের সেনারা। কিয়েভে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ কথা জানিয়েছিলেন জেলেনস্কি। তিনি বলেছিলেন, আমরা বাখমুত রক্ষায় আমৃত্যু লড়াই করব। একে দূর্গের ন্যায় রক্ষায় নিয়োজিত থাকব।

কোন হুমকি দেননি রুশ প্রেসিডেন্ট : রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন টেলিফোনে আলাপকালে ‘আমাকে বা জার্মানিকে’ কোন হুমকি দেননি, জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎজ বিল্ড অ্যাম সোনট্যাগ সংবাদপত্রের সাথে একটি সাক্ষাতকারে বলেছেন।
‘না, পুতিন আমাকে বা জার্মানিকে হুমকি দেননি,’ শলৎজ বলেছিলেন। ইউক্রেনের বর্তমান পরিস্থিতির ‘একদম ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি’ রাশিয়ান নেতার সাথে টেলিফোন কথোপকথনে খুব স্পষ্টভাবে চিহ্নিত করা হয়েছে, জার্মান চ্যান্সেলর উল্লেখ করেছেন। ‘জার্মানি মাথা ঠাÐা রাখবে এবং ভবিষ্যতে সমস্ত সিদ্ধান্তে ওজন বজায় রাখবে,’ কিয়েভে ট্যাঙ্ক সরবরাহের বিষয়টি উল্লেখ করে শলৎজ উল্লেখ করেছেন। ‘কারণ তা না হলে অন্যান্য সমস্ত বিষয় অসতর্ক এবং অত্যন্ত বিপজ্জনক হবে,’ চ্যান্সেলর বলেছিলেন। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সাথে পশ্চিমা অস্ত্রগুলো শুধুমাত্র ইউক্রেনের ভ‚খÐে ব্যবহার করা হবে এমন একটি চুক্তি হয়েছে কিনা এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি যোগ করেন, ‘এ বিষয়ে ঐকমত্য রয়েছে।’

কিয়েভকে ব্যবসায়ীর ব্যক্তিগত সম্পদ হস্তান্তর ‘সরাসরি চুরি’ : ইউক্রেনে রাশিয়ান ব্যবসায়ী কনস্ট্যান্টিন মালোফেয়েভের সম্পত্তি হস্তান্তর দেখায় যে, যুক্তরাষ্ট্রে বিদেশী ব্যবসায়ীদের তহবিল যে কোনও সময় বাজেয়াপ্ত করা যেতে পারে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত রাশিয়ান দূতাবাস এ কথা বলেছে।

‘আমরা কিয়েভ সরকারের কাছে রাশিয়ান ব্যবসায়ী কনস্ট্যান্টিন মালোফেয়েভের বাজেয়াপ্ত সম্পত্তি হস্তান্তরের বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল মেরিক গারল্যান্ডের নোটিশ পেয়েছি। এর মাধ্যমে একটি গুরুতর নজির স্থাপন করা হয়েছে,’ রাশিয়ান ক‚টনৈতিক মিশন উল্লেখ করেছে, ‘বিভিন্ন আইনি কৌশল এবং কারসাজি ব্যবহার করে, মার্কিন কর্তৃপক্ষ সুবিধাবাদী স্বার্থের জন্য ব্যক্তিগত সম্পত্তি সরাসরি চুরির আশ্রয় নেয়।’ ক‚টনৈতিক মিশন জানিয়েছে, ‘এ ধরনের কর্মকাÐ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিনিয়োগের পরিবেশকেক্ষুণ্ন করছে। বিদেশী ব্যবসায়ীদের কাছে একটি সংকেত পাঠানো হয়েছে যে, তাদের সম্পদ স্থানীয় আইন দ্বারা সুরক্ষিত নয় এবং মিথ্যা অজুহাতে যে কোনও সময় বাজেয়াপ্ত এবং হস্তান্তর করা যেতে পারে।’

মার্কিন প্রশাসনের দ্বারা অনুসৃত নীতি ‘ব্যক্তিগত সম্পত্তির অলঙ্ঘনীয়তা সম্পর্কিত আমেরিকান সমাজের মূল নীতিকে অবমূল্যায়ন করে’। উপরন্তু, এটি বিচার বিভাগের পক্ষপাতিত্বকে স্পষ্টভাবে প্রদর্শন করে। আমেরিকান ‘থেমিস (বিচারের দেবি)’ সম্পূর্ণরূপে হোয়াইট হাউসের রাজনৈতিক ইচ্ছার দ্বারা পরিচালিত হয়েছিল, দূতাবাস যোগ করেছে। মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল মেরিক গারল্যান্ড এর আগে রুশ ব্যবসায়ী কনস্ট্যান্টিন মালোফেয়েভের ৫৪ লাখ ডলার মূল্যের বাজেয়াপ্ত সম্পত্তি ইউক্রেনে হস্তান্তরের বিষয়ে বিবৃতি দিয়েছিলেন। সূত্র : তাস, রয়টার্স, আল-জাজিরা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (9)
Reaj Hossain ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৭:০৪ এএম says : 0
ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট এর কারণে আজকে তাদের জনগণ মারা পড়ছে
Total Reply(0)
Khan Gypsy ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৭:০৪ এএম says : 0
জেলোনস্কি নিশ্চিত নোবেল পাবে!
Total Reply(0)
Gajiul ahsan ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৭:৫০ এএম says : 0
বোমা ব্লাস্ট হোক আমেরিকার ওয়াশিংটনের মধ্যে ।
Total Reply(0)
Ranok Ranok ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৭:০৪ এএম says : 0
পশ্চিমাদের শিক্ষাদেবার এটাই সুযোগ।
Total Reply(0)
Md Sijanur Rahman SoHAn ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৭:০৪ এএম says : 0
আরো তীব্র হামলা চালানো হউক। পুতিনের জন্য শুভ কামনা রইলো
Total Reply(0)
Md Sijanur Rahman SoHAn ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৭:০৪ এএম says : 0
আরো তীব্র হামলা চালানো হউক। পুতিনের জন্য শুভ কামনা রইলো
Total Reply(0)
Gajiul ahsan ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১১:০৩ এএম says : 0
বোমা ব্লাস্ট হোক আমেরিকার ওয়াশিংটনের মধ্যে ।
Total Reply(0)
Md. Shahjalal ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৭:২১ পিএম says : 0
যুদ্ধ নয়, শান্তি চাই। সেই সঙ্গে অর্থনৈতিক অবরোধও প্রত্যাহার করা হোক।
Total Reply(0)
jahangir alam ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ৫:১৭ পিএম says : 0
পুতিন বস কখনো ভুল কাজ করতে পারে না।আগে জেলেনস্কিকে শিক্ষা দেওয়া দরকার।পশ্চিমাদের সাহায্য আসার আগেই ইউক্রেনের সকল প্রতিরোধ ব্যবস্হা ধ্বংস করে দিতে হবে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন