শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ২০ শাবান সানি ১৪৪৫ হিজরী

মহানগর

বিএনপির আন্দোলনে সরকার ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে: আব্বাস

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ২:৩৭ পিএম

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, বিএনপি নেতা কর্মীরা যে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলেছে এতে সরকার এবং সরকারের নেতাকর্মীরা ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে। তাই সরকার বিএনপিকে প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছে। এর থেকে গর্বের বিএনপির জন্য আর কিছু হতে পারে না।

বৃহস্পতিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর মুক্তির দাবিতে এই প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলন।

আওয়ামী লীগের উদ্দেশ্য করে মির্জা আব্বাস বলেন, এই দানবীয় সরকারের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে এ কথা বিএনপি বলেছিল এখনো বিএনপি বলছে। আওয়ামী লীগের মুখে গণতন্ত্রের কথা মানায় না, লুটেরা সরকারের মুখে মানুষের অধিকারের কথা মানায় না, রাতের ভোটের সরকারের মুখে মানুষের বাকস্বাধীনতার কথা মানায় না, ভোট চোরের সরকারের মুখে অবাধ নির্বাচনের কথা মানায় না। এদেশকে আমরা হায়েনার হাত থেকে মুক্ত করবো।

আব্বাস বলেন, কাদের সাহেব বলেছেন- নির্বাচন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হওয়ার অবস্থা সংবিধানে নেই। আমরা বলতে চাই নির্বাচন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনেই হতে হবে। কারণ এই তত্ত্বাবধায়ক সরকার এই সংবিধানেই ছিল। এই তত্ত্বাবধায়ক সরকার জামায়াত এবং আওয়ামী লীগের দাবি নিয়েই প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই মুহূর্তে দরকার তত্ত্বাবধায়ক সরকার কার দাবি ছিল; জামায়াত এবং আওয়ামী লীগের।

তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে আজকে স্মরণ করতে হয়। কারণ উনি দেশকে ভালবাসেন‌। উনিও পারতেন গোলাগুলি খুনাখুনি করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে, কিন্তু উনি সেটা করেননি। তত্ত্বাবধায়ক সরকার সংবিধানে সংযুক্ত করলেন। নির্বাচন দিলেন, সেই নির্বাচনে আপনারা (আওয়ামী লীগ) পাস করলেন। এরপর আপনারা ক্ষমতায় এসে সেই সংবিধান কাটাছেঁড়া করে বারোটা বাজিয়ে দিয়ে এখন সেখান থেকে তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাতিল করে দিয়েছেন। আবার বলছেন সংবিধানের বাইরে কোন নির্বাচন করার অবস্থা নেই। আমরাও বলতে চাই সংবিধানের বাইরে যেতে চাই না, আমরা চাই যে সংবিধানে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছিল, সেই সংবিধানই আপনারা করবেন। যে সংবিধান আছে সেই সংবিধান নয়। যেই সংবিধানে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছিল সেই সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে।

আওয়ামী লীগের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, বিএনপির নেতা কর্মীরা খুন-গুম গ্রেপ্তারের ভয় পায় না। আপনাদের প্রতিহত করার মত শক্তি এবং সামর্থ্য বিএনপি রাখে।

বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে সমাবেশে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানুল্লাহ আমান, ঢাকা দক্ষিণের রফিকুল আলম মজনু, স্বেচ্ছাসেবক দলের রাজীব আহসান, মহিলা দলের আফরোজা আব্বাস, ওলামা দলের অধ্যক্ষ মাওলানা মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন