শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

অভ্যন্তরীণ

প্রধান দুই দলেই বিদ্রোহের আগুন

প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

অভ্যন্তরীণ ডেস্ক : শেষ পর্যন্ত মনোনয়ন না পাওয়ায় বড় দুই দলেই জ্বলছে বিদ্রোহের আগুন। এ-সংক্রান্ত আমাদের সংবাদদাতাদের পাঠানো রিপোর্ট-
টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা জানান, উৎসবমুখর পরিবেশে টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মোট ৭৬ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র গত সোমবার শেষ দিনে দাখিল করেছেন। উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১২টি ইউনিয়নে ৭৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ১২, বিএনপির ১২, জাতীয় পার্টির (এ) ৩, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের ২ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন ৪৭ জন। স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে ১২ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ২৭ ও বিএনপির ৬ জন বিদ্রোহী প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নাগরপুর ইউনিয়নের প্রার্থী মোঃ কুদরত আলী, গয়হাটা ইউনিয়নে শেখ শামছুল হক, সলিমাবাদ-অ্যাড. দাউদুল ইসলাম দাউদ, আটগ্রাম-মোঃ শওকত হোসেন, ধুবড়িয়া-মোঃ মতিয়ার রহমান, ভাদ্রা ইউনিয়নে মোঃ হামিদুর রহমান, দপ্তিয়র ইউনিয়নে মোঃ আবুল হাসেম, সহবতপুর ইউনিয়নে মোঃ আনিসুর রহমান আনিস, ভারড়া ইউনিয়নে মোঃ রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার, মামুদনগর ইউনিয়নে শেখ কামাল হোসেন, মোকনা ইউনিয়নে শরিফুল ্ইসলাম, পাকুটিয়া ইউনিয়নে অ্যাডঃ আজাহারুল ইসলাম। বিএনপির প্রার্থী নাগরপুর ইউনিয়নে মোঃ হাবিবুর রহমান হবি ইউনিয়নে গয়হাটা ইউনিয়নে হারুনুর রশিদ, সলিমাবদ ইউনিয়নে অ্যাডঃ ফরিদ আহ্মেদ ভুইয়া, আটগ্রাম ইউনিয়নে মোঃ আব্দুল বারী, ধুবড়িয়া ইউনিয়নে আশিকুর রহমান, ভাদ্রা হাবিবুর রহমান খান, দপ্তিয়র ইউনিয়নে এম. ফিরোজ সিদ্দিকী, মামুদনগর ইউনিয়নে মাহে আলম সাবু, মোকনা ইউনিয়নে আতাউর রহমান খাঁন, পাকুটিয়া ইউনিয়নে মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, ভাড়রা ইউনিয়নে মনিরুজ্জাম লিটন, সহবতপুর ইউনিয়নে মোঃ আবুল হোসেন। জাতীয় পাটি (এ) নাগরপুর ইউনিয়নে মোঃ লেবু মিয়া, সলিমাবাদ ইউনিয়নে মোঃ এমদাদ হোসেন, সহবতপুর ইউনিয়নে মোঃ রতন মিয়া। ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন প্রার্থী সহবতপুর ইউনিয়নে মোঃ শাহদৎ হোসেন, গয়হাটা ইউনিয়নে জহির খান।
চরফ্যাশন (ভোলা) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, চরফ্যাশন উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীরা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন অনেকে। একাধিক প্রার্থী জানান, আমরা দলের জন্য অনেক ত্যাগ স্বীকার করে কাজ করেছি। আজ আমাদেরকে মনোনয়ন দেয়া হয়নি, এজন্য আমরা স্থানীয় জনসাধারণের অনুরোধে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ঢালচর আওয়ামী লীগের প্রার্র্থী রয়েছে ইউনিয়ন আ’লীগ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম পাটওয়ারী। চরমানিকা আ’লীগ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান সাইদুল ইসলাম সোহাগ। মজিব নগন ইউনিয়নে নুরাবাদ ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আবদুল আলী মাষ্টারের পুত্র আ.লীগের আবুল কাশেম ফারুক, বিএনপির ফারুক মিয়া। চরকলমী আ.লীগের সহ-সভাপতি দু’জন যথাক্রমে মিজানুর রহমান বেপারী ও প্রধান শিক্ষক কামাল হোসেন, বিএনপির আলমগীর হোসেন। রসুলপুরে বিএনপির মোশারেফ হোসেন। উল্লেখ্য চরফ্যাশন উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে আগামী ২২মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ১০টি ইউনিয়নে আ.লীগ ও বিএনপির মোট ২০জন চেয়ারম্যান প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন পেয়ে গত সোমবার স্বস্ব রিটার্নিং অফিসারের নিকট দাখিল করেছেন। তার মধ্যে অনেক প্রার্থীগণ দাখিলের দিনই নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেছেন বলে অফিস সূত্রে জানা গেছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন