ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

নিবন্ধ

চিঠিপত্র : মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন

| প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, ১২:০০ এএম

আমি সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার অন্তর্গত গ্রাম পাঙ্গাসী চাঁনপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। চার ভাই-বোনের মধ্যে আমি সবার ছোট। ইচ্ছে ছিল লেখাপড়া শেষ করে সরকারি চাকরি করবো। কিন্তু ২০০২ সালে এসএসসি পাস করার পর কোন এক কারণে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হই। ফলে আর লেখাপড়া শেষ করতে পারিনি। বর্তমানে আমার এক ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলেটির বয়স ৭ বছর আর মেয়েটির বয়স সবেমাত্র ৩ মাস। বাবা বেঁচে নেই। ঘরে আছেন আমার বৃদ্ধ মা। তাছাড়া আর না বললেই নয় আমি স্থানীয় হাট পাঙ্গাসী বাজারে ছোট একটি ব্যবসা শুরু করেছিলাম। কিন্তু আর্থিক সংকটের কারণে আমি আমার ব্যবসায়ে সফলতা আনতে পারিনি। পারিনি আমার সংসারে অভাব-অনটন দূর করতে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি একজন মা, আপনি একজন বোন, আপনি একজন সফল প্রধানমন্ত্রী। আমি আপনার কাছে কোন সাহায্যে চাই না। চাই শুধু একটা কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা।
মোঃ মোকাদ্দেস হোসাইন সোহান,
সাং-গ্রাম পাঙ্গাসী চাঁনাড়া,
ডাকঘর-বোয়ালিয়ারচর,
উপজেলা-রায়গঞ্জ, জেলা-সিরাজগঞ্জ।

ওষুধ কোম্পানীর প্রতিনিধির উপর অন্যায় আবদার কেন?
ব্যাধি নিরাময়ের প্রধান মাধ্যম হলো ওষুধ। তাই ওষুধকে জীবন রক্ষাকারী পণ্য বলা হয়ে থাকে। আর এই ওষুধকে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে কোম্পানীগুলোর স্থানীয় প্রতিনিধি রয়েছে। তাঁরা ওষুধ ও ওষুধের গুণগতমান সম্পর্কে ডাক্তারদের ধারণা দিয়ে থাকেন। এছাড়া ফার্মেসিগুলোতে ওষুধ বিপণন করে থাকেন এই প্রতিনিধিগণ। কিন্তু এই প্রতিনিধিগণের সাথে ফার্মেসিম্যান ও ডাক্তারগণের অনেক অমানবিক আচরণ লক্ষ করা যায়। যেমন ভ্রমণের নামে অর্থ চাওয়া, ফ্যামিলির জন্য গিফট চাওয়া, মাঝে মাঝে অন্যায় আচরণ করা। এছাড়া সরকারী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের চাওয়ার তো কোন শেষ নেই। ওষুধ কোম্পানীর প্রতিনিধিগণের সাথে এই অমানবিক আচরণ কখনই মেনে নেয়া যায় না। স্বাস্থ্যসেবায় অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী এই প্রতিনিধিদের ঘাডের উপর চাপিয়ে দেয়া অন্যায় আবদারগুলো বন্ধ করা অত্যন্ত জরুরি। বিষয়টি স্বাস্থ্যমন্ত্রী মহোদয়ের নজরে এনে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানাচ্ছি।
মোঃ আজিনুর রহমান লিমন, গ্রাম- আছানধনী মিয়াপাড়া ডাক- চাপানীহাট, উপজেলা- ডিমলা,
জেলা- নীলফামারী।

শ্যামবাজারের উন্নয়ন চাই
রাজধানীর এক সময়ের নদী পথে আসা-যাওয়া ও নিত্যদিনের কাঁচাবাজারের মালামাল পুরনো ঢাকার শ্যামবাজার ছিল একমাত্র সম্বল। এর পাশেই লালকুঠি। পাকিস্তান আমলে বিয়েশাদী বা অনুষ্ঠানাদির জন্য লালকুঠী বা ফরাশগঞ্জ মইনউদ্দিন চৌধুরী মেমোরিয়াল হলই ছিল যথেষ্ট যা এখন একেবারে অবহেলিত। বুড়িগঙ্গা তীর ঘেঁষা এই শ্যামবাজার ও লালকুঠীর উন্নয়নের যথেষ্ট প্রয়োজন দেখা দিয়েছে। পাইকারী কাঁচামাল ও বাজারসদাই করার জন্য এখনও শ্যামবাজারের খ্যাতি থাকলেও যানজটের কারণে মানুষ কারওয়ানবাজারকে বেছে দিয়েছে। শ্যামবাজার ও লালকুঠি এলাকার রাস্তা ভাল নয়। এ এলাকার উন্নয়নের জন্য ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও নৌ-পরিবহন অধিদপ্তরের অনেক অবহেলা ও উদাসীনতা রয়েছে। শ্যামবাজারের উপর ব্যাকল্যান্ডের মতো রাস্তাঘাট হলে পোস্তগোলা হতে মোহাম্মদপুর পর্যন্ত যাতায়াত করা খুবই সহজ হবে। আশাকরি, কর্তৃপক্ষ এ দিকে দৃষ্টি দেবে।
মাহবুবউদ্দিন চৌধুরী
১৭, ফরিদাবাদ-গেন্ডারিয়া
ঢাকা।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন
আমার বাবা খুবই অসুস্থ এবং দরিদ্র ও ভদ্র একজন মানুষ। সংসার চালানো তার পক্ষে খুবই কষ্টকর। আমার একটি চাকরি বা কর্মসংস্থানে খুবই দরকার, যাতে পরিবারকে আমি সহায়তা করতে পারি। এমতাবস্থায় আমি আপনার সদয় অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আকুল আবেদন জানাচ্ছি।
মোঃ মীর তাওহীদ
পিতা- মোঃ ছাইদুর রহমান,
গ্রাম- গোপালপুর, পোস্ট- সাংগড়,
জেলা- ঝালকাঠী।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (34)
রাসেল ১২ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১১:১৮ পিএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিকট অকুল আবেদন করছি যে আমাকে কিছু সাহায্য করবেন আমার বাড়ি টাংগাইল জেলা গোপালপুর থানা ঝাওয়াইল ইউনিয়ন হরিষা গ্রাম আমাদের কোন জায়গা জমি এবং বাড়ি করার জমিও নেই। আমার দুইটি মেয়ে আমি ঠেলাগাড়ি রিকশা ভেন লেবারর কাজও করি এখন বেকু ও ভোলডোজারে চেনের কাজ করি কিছু টাকা জমাই ছিলাম আমার ছোট মেয়ে হতে গিয়ে সব টাকা পয়সা শেষ। তাই আপনার নিকট অকুল আবেদন করছি আমাকে কিছু সাহায্য করবেন।
Total Reply(0)
Md Mahade Hasan ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৮:২০ এএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমি এতিম  আমার বাবা একজন  সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন  আমর পরিবার ও আমার ভবিষ্যৎ নিয়ে আপনার সহযোগিতা কামনা করছি।আমার পরিবার পরিজন কে পরিচালনা করতে আমি অক্ষম।যদিও আমি একটা কম্পানিতে চাকুরী করি কিন্তু তা দিয়া সংসার চালাতে আমি পারছি না ।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমি জানি আপনি অনেক দয়ালু মমতাময়ী mother of Humanity তাই একজন মা পারে সন্তান এর ভবিষ্যৎ তৈরি কে দিতে।তাই আপনার কাছে বিনীত অনুরোধ আমাকে একটা ভালো চাকুরী দেন না হয় কিছু অর্থ দান করুন। যাতে আমি আমার জিবন সুন্দর করে পরিচালনা করতে পারি। আমি আমার পরিবার আপনার কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকবো
Total Reply(0)
মোঃমাহফুজার রহমান, লালমনিরহাট ২৭ জানুয়ারি, ২০১৯, ৩:১৬ পিএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীআপনার কাছে আমার আকুল আবেদন এই যে আমার বাবা লালমনিরহাট নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসায় চাকুরীরত অবস্থায় গত ৩১/১/২০১৮ইং তারিখে হৃদরোগেে আক্রান্ত হয়ে মারা যান আমরা ছয় ভাইবোন আমার বাবা মারা যাবার পর আমাদের পরিবার খুব কস্টে আছে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ জানাজায় বলেছিলেন বাবার চাকুরীটা আমাকে দিবেন কিন্তু এক বছর যাবত কোন খবর নেই উনি এখন টাকার বিনিময়ে অন্য লোক নিয়োগ দিতেছে। আমি একজন মাস্টাস পাশ বেকার তাই আপনাদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন আমার এই বিষয়টি দেখবেন এতে আমার পরিবার আপনার কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকবো।
Total Reply(0)
মোঃ নাজমুল ইসলাম ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১০:২১ পিএম says : 0
বরাবর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদে্শ সরকার,বাংলাদেশ বিষয়: কর্ম সংস্থানের জন্য আবেদন। জনাবা সবিনয় নিবেদন এই যে আমি মোঃ নাজমুল ইসলাম, জেলা-দিনাজপুর,থানা - বিরল এর একজন নাগরিক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার আবেদন হলো আমি আপনার কাছে ছোট্ট একটি চাকরি চাচ্ছি। এই ছোট্ট একটি চাকরি ছাড়া আমার আর অন্য কোন পথ নাই।কারণ আমি নিম্নবিত্ত পরিবারের ছেলে। আমার মা একজন গৃহিণী আর আমার বাবা অন্যের বাসায় কাজ করেন। তাই যে কোন ছোট্ট একটি চাকরি আমার খুবই প্রয়োজন। আমি বর্তমান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়ন বিষয় নিয়ে তৃতীয় বর্ষে পড়তেছি। অতএব প্রার্থনা এই যে নিম্নবিত্ত পরিবারটির কর্ম সংস্থানের জন্য জনাবার নিকট আ্শু দৃষ্টি কামনা করছি। নিবেদক মোঃ নাজমুল ইসলাম
Total Reply(0)
মোঃ আবুল কাশেম ২০ মার্চ, ২০১৯, ১২:৩২ পিএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আসসালামু আলাইকুম আমার সালাম গ্রহন করুন আমি মোঃ আবুল কাশেম সমাজ সেবা অধিদপ্তরে 16 গ্রেডের চাকরি করি আমি এম এস এস ও এল এল বি পাস অতি দরিদ্র ঘরে জন্ম গ্রহনক্ষত্রের করি। খুব ছোট বেলায় বাবাকে হারিয়েছি। অতি কষ্টে লেখা পড়া করিছি। চার বোন দুই ভাই ও মা। সংসার চালানো খুবেই কষ্ট হচ্ছে। আমার মা ব্রেইন ষ্টোক হার্টে ব্লক ডায়বেটিক 29-8 প্রায় এই পরিমাণ থাকে । প্রতি মাসে ওষুধ খরচ আসে 10000 হাজার টাকার মত। এখন মায়ের হাট ব্লক এ রিং বসাতে হবে যা খরচ আসবে 3 লক্ষ টাকার বেশি যা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। তাছাড়া কেউ সাহায্য করার মতো নেই। তাই আমার বিষয়টি বিবেচনা করে আমাকে আর্থিক অনুদান দেওয়ার জন্য বিশেষ অনুরোধ করছি। অত্যন্ত বেদনার সাথে অনুরোধ যানাচ্ছি স্যার বিষয়টি বিবেচনায় দেখুন। আমার হিসাবে নাম মোঃ আবুল কাশেম ।
Total Reply(0)
মোঃ সাইদুর রহমান ১৬ মে, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
আমি যুব উণ্ণয়নে কম্পিটার কোর্ষ করেছি সংসার চলে আমার উপার্যন দিয়ে তাই একটি কর্মসংস্থান খুবই দরকার।দয়া করে একটা সুযোগ দিন,সারা জীবন দোয়া করবো ।
Total Reply(0)
মোঃ সাইদুর রহমান ১৬ মে, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
আমি যুব উণ্ণয়নে কম্পিটার কোর্ষ করেছি সংসার চলে আমার উপার্যন দিয়ে তাই একটি কর্মসংস্থান খুবই দরকার।দয়া করে একটা সুযোগ দিন,সারা জীবন দোয়া করবো ।
Total Reply(0)
মোঃ সাইদুর রহমান ১৬ মে, ২০১৯, ১:৪৩ এএম says : 0
আমি যুব উণ্ণয়নে কম্পিটার কোর্ষ করেছি সংসার চলে আমার উপার্যন দিয়ে তাই একটি কর্মসংস্থান খুবই দরকার।দয়া করে একটা সুযোগ দিন,সারা জীবন দোয়া করবো ।
Total Reply(0)
মোঃ সোহাগ শেখ ১১ জুন, ২০১৯, ৬:৫৩ পিএম says : 0
আমার নাম সোহাগ শেখ। আমার বাড়ি গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের বসবাস কারি।।আমার বাবা অতি গরিব এবং মুর্খ বলে আমাদের জমিজামা অন্য লোকেরা দখল করে আছে।।আমাদের কাছে জমির কাগজ পএ থাকা সত্ত্বেও আমরা কিছু করতে পারছি না।।কারণ আমাদের ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তাদের কাছ থেকে টাকা খেয়ে আমাদের কিছু করতে দিচ্ছে না।।আমরা গরীব বলে আমাদের পাশে আজ কেউ নেই।।তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার আবেদন যে আমাদের সমস্যা সমাধান করে সু নাগরিক হিসেবে বেচে থাকার সুযোগ করে দেন।।
Total Reply(0)
মো: শাফিকুল ইসলাম ২৪ জুন, ২০১৯, ৮:৫৬ এএম says : 0
আসলামুআলাইকুম মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমি একজন মুসলিম আমার নাম মো: শফিকুল ইসলাম শামিম আমি একজন মুক্তিদ্ধার সন্তান আমার বাড়ি খুলনা জেলা খালিশপুর পিতা: মৃত এস এম োবাযদুল্লাহ, কিন্ত মা, আমি অতি গরিব মানুষ কিন্তু আমার পরিবারে অসুস্হ মা বিছানায় তাহার চিকিতসা ঠিক মত করিতে পারিনা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মা, আমার পরিবার এখন পযর্ন্ত মুক্তিভাতা পাইনা দয়া করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কছে আমার আবেদন যে আমদের সমস্যা সমাধান করবেন মা।
Total Reply(0)
মো: শাহীন আলম ২৮ জুন, ২০১৯, ৯:৫৮ এএম says : 0
আসসালামু আলাইকুম মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। আমার নাম মো শাহীন আলম আমি জন্ম গত থেকে হৃদরোগে আক্রান্ত। আমি দশম শ্রেণি তে পড়ি আশা ছিলো বড় হয়ে পুলিশের চাকুরী করব ও দেশ ও দেশের মানুশের পাশে থাকবো। কিন্তু গরিবের আশা তো পুরোন হয়না। তাই তো আমার এই হৃদরোগ এর সমস্যা বেশি হয়েছে । তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে সাহায্য কামনা করছি। আমার ঠিকানা:জেলা- নিলফামারী,থানা:ডিমলা,গ্রাম:ডিমলা,
Total Reply(0)
কামরুল সরকার ২৯ জুন, ২০১৯, ৯:৫৪ পিএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননী শেখ হাসিনা। আমি চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলার সুলতানাবাদ ইউনিয়নের ২০১৫-২০১৭ সালের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ছিলাম। এখন আমার সরকারি চাকরি বয়স শেষ। এখন আমি আমার পরিবার নিয়ে চলতে পারিনা। আমি বি এ পাস। জননী মা আমাকে একটা চাকরি দিলে আমি আমার পরিবার নিয়ে একটু ভালো ভাবে চলতে পারতাম। মা জননী শেখহাসিনা আমাকে একটা চাকরি দিয়ে আমার বেকারত্ব অভিশাপ জীবন থেকে মুক্তি দিবেন। মা জননী শেখহাসিনা আমার বাবা একজন মজিব বাহিনীর মুক্তিযুদ্ধ ছিলো। এই জীবনে কিছু পাইনি। মা জননী শেখহাসিনা আপনার ছেলের মতো হতে পারবোনা শত জন্মে। কিন্ত আপনার আর্দশের সৈনিক হিসেবে ছিলাম। মা জননী শেখহাসিনা একটা চাকরি দিলে আমি অনেক কিছু পাবো দল থেকে এটা আমার আশা মা।
Total Reply(0)
Adideb ৬ জুলাই, ২০১৯, ১০:৫৪ এএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননী শেখ হাসিনা। আমার বাড়ি মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখার উপজেলার ১ংবণি ইউনিয়নে। আমাদের ইউনিয়নে পোস্ট অফিস টা তেমন শক্তিশালী নয় ঘর টা পাকা হলে কিন্তু তেমন মজুদ নয় যে কোনো সময় চুরি ডাকাতি হতে পারে। এবং ঘর টা ছোট তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার কাছে আকুল আবেদন যে আমাদের পোস্ট অফিস টা মেরামত করবেন
Total Reply(0)
ইদ্রিছ ৬ জুলাই, ২০১৯, ১:১৭ পিএম says : 0
মমতাময়ী মা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের বাড়ির সবাই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আমি গরিব গরের সন্তান আমি একটি ব্যাংক থেকে লোন নিয়া ছোট একটা ব্যাবসা করি আমার এই ব্যাবসায় জামাত বিএমপির হরতাল ও জালাও পোরাও এর সময় যে পরিমান লোকসান হয়েছে তা যদি আপনি না হয় আল্লাহ সাহায্য না করে ত আমার কোন ঠিকানা থাকবে না জেলখানা ছারা আপনি তো জগতের মা মমতাময়ী মা আমাকে কিছু সাহায্য করেন এবং আমার ছেলে মেযে গুলি কে বাচান
Total Reply(0)
সুবর্ণা আক্তার ১১ জুলাই, ২০১৯, ১২:৪০ এএম says : 0
আসসালামুয়ালাইকুম আমি কুমিল্লার একজন গরিভ ঘরের মেয়ে এমপি মহোদয় আপনার কাছে অনেক মিনতি করছি একটা চাকরির জন্য আমার মা নেই পঙ্গু বাবাকে নিয়ে অনেক কষ্টে চলতেছি আমি যেখানে চাকরির জন্য যাই টাকার কারনে চাকরি করতে পারছিনা আমি অনেক কষ্টে অনার্স কম্পিট করেছি আপনার কাছে একটা চাকরির জন্য মিনতি করছি মা.দয়া করে আমাকে একটা সরকারি চাকরির ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য অনুরধ করছি আমার সরকারি চাকরি করার ছোটবেলা থেকে অনেক শখ যা গরিব ঘরে জন্ম নেওয়ার কারনে তা পূরন হচ্ছে না।
Total Reply(0)
akbar hossain ২০ জুলাই, ২০১৯, ১১:৪৯ এএম says : 0
আমি মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সাথে দেখা করতে চাই। প্লিজ আমাকে সাহায্য করুন। অনুগ্রহ পূর্ব বিষয়টি দেখার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি। আমি ইতিমধ্যে 27/11/2018 তারিখে অফিসে গিয়ে দরখাস্থ করেছিলাম। আমি খুব অসহায় হয়ে আপনাদের নিকটি সুবিচার কামনা করছি। স্যার আমি একজন ছাত্র। আমার বাবা একজন দিনমজুর, অসহায় গরিব মানুষ। 2014 সালে আমাদেরকে বসত ভিটা থেকে উৎখাত করার জন্য একটি সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট সাজানো মামলায় ফাসানো হয়েছে। এবং আমাদের বসত ভিটা জমি টুকু কেরে নিয়েছে । এখন আমার বাবা সব কিছু হাড়িয়ে পাগলের মত। জীবন যাপন করছে। মামলাটি এখনো ভোলা র্কোটো চলমাল। মামালা চালানোর মত কোন সামর্থ নেই আমাদের তবুও অনেক কষ্টে মামলাটি চালিয়ে যাচ্ছি। আমি নির্দোষ প্রমান করার জন্য সকল প্রমানাধী ও রেকডিং আমার কাছে রয়েছে। প্রয়োজন শুধু সত্য টুকু তুলে ধরার। সত্য প্রচারে আপনাদের সহযোগিতা কামনা করছি।
Total Reply(0)
Imam hossain khan ২১ জুলাই, ২০১৯, ১:৩৯ পিএম says : 0
বরাবর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, গণভবন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, ঢাকা বিষয়: জমি সংক্রান্ত দেওয়ানী মামলা অতি দ্রুততম সময়ের মধ্যে নিস্পত্তির জন্য বিদ্যমান আইন বা কার্যবিধি সংশোধনপূর্বক যুগোপযোগী করার আবেদন। জনাবা সবিনয় নিবেদন এই যে,উপরোক্ত বিষরের আলোকে নিন্মলিখিত মতামতের প্রতি আপনার দৃষ্টি আকর্ষন করতে চাই। CS/RS/SA রেকর্ডে ক্রয়কৃত সম্পত্তি কবলা দলিল মূলে ক্রেতার নামে মালিকানা সম্পর্কিত রেকর্ড ও অন্যান্য দলিল সম্পন্ন এবং ১০০/১৫০ বছর ভোগ দখল সত্ত্বেও সাবেক রেকর্ড ও দলিলাদিতে বিক্রেতার নাম থেকে যায়। ফলে উক্ত বিক্রেতার ওয়ারিশ ভূমি দস্যূরা সাবেক রেকর্ড দলিলাদির ভিত্তিতে ক্রেতার কবালা দলিল মূলে রেকর্ড ও দলিলাদি ভূয়া ও বানোয়াট ঘোষনা দিয়ে উক্ত সম্পত্তির মালিকানা নিজেদের বলে দাবি করে। এবং সাবেক রেকর্ড দৃষ্টবন্টের পতিকায় আবেদনের নামে মিথ্যা হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করে উক্ত জমি জবর দখলের চেষ্টা করে ও হয়রানি করে।আদালতে এই ধরনের মামলার সংখ্যা অধিক।উক্ত মামলা নিষ্পত্তি হইতে ১০/১৫ বছর সময় লাগে। কোন কোন ক্ষেত্রে ৪০/৫০ বছরেও নিস্পত্তি হয় না। রেকর্ড ও দলিল পত্রে মালিকানা এবং ভোগদখল প্রমান সাপেক্ষে উভয় পক্ষের সদিচ্ছায় ৩/৪ দিনে সালিশির মাধ্যমে ফয়সালা হওয়া সম্ভব। কিন্ত উক্ত ভূমি দস্যুর ওয়ারিশরা আইনের দুর্বলতার কারনে অবৈধভাবে জমি দখলের জন্য রেকর্ড দৃষ্টে বন্টনের প্রার্থনা পূর্বক আবেদনের নামে আদালতে হয়রানি মূলক মিথ্যা মামলা দায়ের করে।দীর্ঘ সময় মামলা পরিচালনা করতে করতে বিবাদীগন হতাশায় জর্জরিত হয়।যে বিধিমালা বা কার্যবিধিতে দীর্ঘ সময় মামলা কার্যক্রম পরিচালিত হয় মামলায় ভুক্তভোগীগন এটাকে রাষ্ট্রীয় হয়রানি বলে মনে করে।অধিকাংশ সিভিল মামলার ভোক্তভোগীগন গরিব বিধায় তাদের প্রতিক্রিয়া, আর্থিক ক্ষতি ও হয়রানি মিডিয়ায় প্রকাশিত হয় না। তাই আইনের শাসন ও নিন্মভিত্তের সম্পত্তি ভোগদখলের অধিকার প্রতিষ্টার লক্ষ্যে বিদ্যমান আইনকে সংশোধন ও যুগোপযোগী করে অন্তত তিন বছরের মধ্যে মামলা নিস্পত্তি করনের ব্যবস্থা করা হউক এবং এই লক্ষ্যে আমার নিন্ম মতামত তুলে ধরতে চাই। ১) বিবাদী বর্ননার পর উভয় পক্ষে ও আদালতের সদ্বিচ্ছায় বা আদালত কর্তৃক তদন্ত কমিটি/ উকিল কমিশন গঠন করা হউক।এবং তদন্তের রিপোর্ট মোতাবেক মামলা খারিজ বা মামলার কার্যক্রম পরিচালনা করা হউক। বর্তমান আইনে উকিল কমিশনের যে বিধান আছে তাহা মামলার কার্যক্রমের শেষ ধাপে বিধায় তাতে অনেকেরই আগ্রহ নেই। ২)বাদী বিবাদী একে অপরকে হয়রানি, জবর দখল ইত্যাদি যাতে না করে সেই জন্য বিশেষ ক্ষমতা সহ ভ্রাম্যমান আদালত গঠনের বিধান অথবা র্যাব(RAB) কে সম্পৃক্ত করা হউক। ৩)সাবেক রেকর্ড দৃষ্টে বন্টনের প্রতিকারের আবেদনের নামে আদালতে মামলার হয়রানি প্রমানিত হলে বাদীকে কারাদন্ড সহ বিবাদীকে আর্থিক ক্ষতিপূরনের ব্যবস্হা করা হউক। বর্তমান আইনে যে আর্থিক ক্ষতিপূরনের ব্যবস্থা আছে তা অতি সামান্য। এই কারনে ভূমিদস্যুরা ভূমি জবর দখলের জন্য হয়রানি মূলক মামলা করতে সাহস পায়। ৪) বাদী যেহেতু সকল প্রস্তুতি নিয়ে আদালতে মামলা দায়ের করে ,সেহেতু কোন অজুহাতে সময় প্রার্থনা না মন্জুর করার বিধান করা হউক। ৫) যে সকল আইনজীবী পেশাগত স্বার্থে মামলাকে দীর্ঘায়িত করার অপকৌশল গ্রহন করে,তাদেরকে কালো তালিকাভুক্ত সহ আইনের আওতায় আনার বিধান করা হউক। ৬) বিভাগীয় পর্যায়ে একটি করে দেওয়ানি ট্রাইবুন্যাল গঠন করা হউক। ৭) বিবাদীর মৃত্যুতে তাদের ওয়ারিশের নামে নোটিশ জারি প্রভৃতি কার্যক্রমে যাতে মামলা দীর্ঘয়ীত না হয় সেই জন্য এক নম্বর বিবাদী বা বিবাদী পক্ষে মামলা পরিচালকের মৃত্যুতে তার ওয়ারিশের মধ্যে সমন জারীর ব্যবস্থা করা হোক। ৮) সংশ্লিষ্ট আদালতে বোর্ড গঠনের ব্যবস্থা করা হোক। ৯)কবলা দলিল মূলে সম্পত্তি ক্রেতার নামে রেজিষ্ট্রি হওয়ার পর বিক্রেতার মালিকানা বিলুপ্তি ঘোষনা অথবা মালিকানা হস্তান্তর বিষয়ক ঘোষনা পত্র প্রকাশের ব্যবস্থা করা হউক। যাতে বিক্রতার ওয়ারিশ গন উক্ত রেকর্ড ও দলিলাদির অযুহাতে নিজেদের সম্পত্তি বলে দাবি করেসাবেক রেকর্ড দৃষ্টে বন্টনের প্রতিকারের আবেদনের নামে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা দায়ের না করতে পারে। ১০) মামলার জট নিরসন এবং দ্রুত নিষ্পত্তির লক্ষে অন্যান্য কার্যপন্থা উদ্ভাবনের জন্য বিচারকদের সমন্বয় উচ্চ পর্যায় মামলা দ্রুত নিস্পত্তি বোর্ড গঠন করার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি। ১১) উপরিউক্ত ব্যবস্থাগুলোর মধ্যে বেশ কয়েকটা ধাপ আইনে থাকলেও কেন তার প্রয়োগ হচ্ছে না তা মহামান্য বিচারক ও বার কাউন্সিলকে তদন্ত করার অনুরোধ জানাচ্ছি। দেশের তৃনমূল জনগোষ্টি তাদের নিজস্ব সম্পত্তি ভোগদখলের অধিকার নিশ্চিত করা এবং সামাজিক নিরাপত্তা ও দায়বদ্ধতার বিধানে আমার উপরোক্ত মতামত বিবেচনা করা প্রয়োজন বলে মনে করি। নিবেদক ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে এ.কে.এম ইমাম হোসেন খান আমিরাবাদ, নলছিটি, ঝালকাঠী
Total Reply(0)
মোঃ ফজলে রাব্বী ৩০ জুলাই, ২০১৯, ৮:২০ পিএম says : 0
বরাবর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, গণভবন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, ঢাকা বিষয়: সরকারি ভাবে একটি বাসা করে দেওয়ার জন্য আবেদন জনাব সবিনয় নিবেদন এই যে আমি মোঃ ফজলে রাব্বী পিতা মোঃ আকামাল শেখ , মাতা, মোছাঃ মনোয়ার বেগম ,গ্ৰাম, ছোটদাপ পোস্ট ,ছোটদাপ থানা আটোয়ারি জেলা , পঞ্চগড়। আমি এই এলাকার সাধারণ একজন ছেলে ,পরাশূনা ইন্টার পাশ পরিবারের অভাবের কারণে পরালেখা আর করতে পারি নাই, আমার পরিবারের উপার্জন কারি আমি একাই , আমি গার্মেন্টসে চাকরি করি, বাবা মায়ের খরচ, বোনের লেখাপড়ার খরচ, নিজের থাকা খাওয়া সব মিলিয়ে অনেক কষ্ট হয় আমার , জনাবের নিকট আমার আবেদন দয়া করে আমাকে একটা সরকারি ভাবে একটি বাসা করে দিলে আমি আমার পরিবার নিয়ে একটু শান্তিতে বসবাস করতে পারতাম, উপরোক্ত বিষয়গুলো বিবেচনা করে আমাকে সাহায্য করার জন্য জানাবের নিকট আবেদন করছি।
Total Reply(0)
মোঃ হৃদয় মিয়া ২ আগস্ট, ২০১৯, ৭:৫২ পিএম says : 0
বরাবর, প্রধানমন্ত্রি শেখ হাসিনা আর্থিক সহযোগিতার জন্য আবেদন। আসছালামু আলালাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লা,আশা করি ভালো আছেন। বিনিত নিবেদন এই যে,আমি এদেশের একজন সুনাগরিক এবং ব্যক্তিগত পেশায় ছাত্র। ইন্টার সেকেন্ড ইয়ারে পাড়ি,অনেক কষ্টকরে এসএসসি পাস করেছি। এসএসসি পাসের পর ভালো রেজাল্টের জন্য প্রাইভেট কলেজে ভর্তি হয়েছিলাম,এইচএসসি পরিক্ষার আর মাত্র কয়েক মাস বাকি। আমি একজন খুবই গরিব ঘরের সন্তান,আমার বাবা দিনমুজুর।তাই কলেজের সমস্থ পাওনাদি পরিশোধ করতে পারছিনা।আমার স্বপ্ন আমি একদিন এদেশের একজন মানুষের মত মানুষ হয়ে এইদেশটাকে আরো আলোর দিকে নিয়ে যাবো। এইচএসসি পরিক্ষা দেওয়ার জন্য সবমিলিয়ে ২০ হাজার টাকার প্রয়োজন।পরিক্ষা শেষ হলে আমি আবার টাকা ফিরিয়ে দেব কথা দিলাম।এই সাহায্যেটা আমার খুব প্রয়োজন। আমি একজন ছাত্র হিসেবে এই আবদারটি করলাম মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে। গ্রামঃ নলদিঘী,ডাকঘরঃ তালদিঘী,থানাঃ তারাকান্দা ,জেলাঃ ময়মনসিংহ।
Total Reply(0)
শাফিজল ইসলাম ৩ আগস্ট, ২০১৯, ১:৪৭ পিএম says : 0
মা আপনি
Total Reply(0)
শাফিজল ইসলাম ৩ আগস্ট, ২০১৯, ১:৫৬ পিএম says : 0
মা আপনি আমার মা আপনি আমার জন্য হেপ কর বেন মা আমি খোতি গোত ছেলে আপনার আমি একটু সাহাজো চাই তাছি মা আমি আপনার সাথে একটু দেখা করতে পারবো মা আমি আপনার কছে টাকা পয়সা চাবোনা মা আমি ঢাকা উত্তরা থাকি ১০ সেক্টর ৪ রোড জদি মা আপনার একটু দেখা করার সুজোগ দেন মা আমি কিচু কথা বোলব মা মোঃ শাফিজল ইসলাম বাবা মোতাহার হোসেন
Total Reply(0)
Sohanur Rahman Sohan ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ১১:৩৮ এএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন আমার বাবা খুবই অসুস্থ এবং দরিদ্র ও ভদ্র একজন মানুষ। সংসার চালানো তার পক্ষে খুবই কষ্টকর। আমার একটি চাকরি বা কর্মসংস্থানে খুবই দরকার, যাতে পরিবারকে আমি সহায়তা করতে পারি। এমতাবস্থায় আমি আপনার সদয় অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আকুল আবেদন জানাচ্ছি। মোঃ সোহানুর রহমান সোহান পিতা- মোঃ নাজির হোসেন, গ্রাম- চাকির পশার পাঠক, পোস্ট- রাজারহাট জেলা- কুড়িগ্রাম।
Total Reply(0)
সুবর্ণা আক্তার ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ১১:৫৭ এএম says : 0
আস্সালামু আলাইকুম আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন আমি সাভারে থাকি আমার স্বামী সাবলম্বী হওয়ার জন্য আর্থিক সহায়তা চাই তিনি সাভার সিটি সেন্টারে মার্কেটে অন্যের কাপড়ের দোকানে কর্মচারী হিসেবে কাজ করে নয় হাজার টাকা সেলারি পেয়ে থাকে এতে আজ বতমানযুগে একটা পরিবারের সমস্ত খরচ চালানো অসম্ভব হয়ে পড়েছে তাই অন্যের দোকানে কাজ করে যে অভিজ্ঞতা হয়েছে সেই অভিজ্ঞতা থেকে নিজেই একটা দোকান নিতে চাই কিন্তু দোকান নেওয়ার মতো এতো অর্থ নাই একটা দোকান নিতে সব মিলিয়ে প্রায় ১৫লক্ষ টাকা দরকার এতো অর্থ নাই ব্যবসা শুরু করার মত অবস্থা নেই একটা দোকান কিনতে ৪০লক্ষ লাগে আর ভাড়া নিতে লাগে ১৫লক্ষ এই ১৫লক্ষ টাকা একটা দোকান নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারি তাই আপনি যদি আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন তাহলে একটা পরিবার পরিবারের উপকার হত আমি খুব আশা করে আমি আপনার কাছে সহায়তা চাইছে
Total Reply(0)
Sohanur Rahman Sohan ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০০ পিএম says : 0
বরাবর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদে্শ সরকার,বাংলাদেশ বিষয়: কর্ম সংস্থানের জন্য আবেদন। জনাবা সবিনয় নিবেদন এই যে আমি মোঃসোহানুর রহমান সোহান , জেলা-কুড়িগ্রাম,থানা রাজারহাট- এর একজন নাগরিক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার আবেদন হলো আমি আপনার কাছে ছোট্ট একটি চাকরি চাচ্ছি। এই ছোট্ট একটি চাকরি ছাড়া আমার আর অন্য কোন পথ নাই।কারণ আমি নিম্নবিত্ত পরিবারের ছেলে। আমার মা একজন গৃহিণী আর আমার বাবা অন্যের বাসায় কাজ করেন। তাই যে কোন ছোট্ট একটি চাকরি আমার খুবই প্রয়োজন। অতএব প্রার্থনা এই যে নিম্নবিত্ত পরিবারটির কর্ম সংস্থানের জন্য জনাবার নিকট আ্শু দৃষ্টি কামনা করছি। নিবেদক মোঃ সোহানুর রহমান সোহান পিতা মোঃ নাজির হোসেন জেলা : কুড়িগ্রাম থানা : রাজারহাট ডাকঘর : রাজারহাট
Total Reply(0)
Md.Ovir Hossain Joman ২১ আগস্ট, ২০১৯, ৯:৫৬ এএম says : 0
জয় বাংলা বাংলা জয় হক আমি জানিনা আমার এই আবেদন টি কী ভেবে নিবে। আমি বাংলাদেশের সরকার কাছে দেশের উন্নতি জন্য কিছু কথা বলতে চাই। ১:)সরকারের উচিৎ আমাদের দেশের যত রাস্তা আছে গ্রামে,শহরে সব ভালো ভাবে মেরামত করে রাস্তার দুই পাশে লেম্পুশ দেওয়ার জন্য। শহরের থাকলে ও আমাদের গ্রামাঞ্চলে নেই। ২:) ভালো মানুষ দিয়ে রাস্তা গুলো ভালো ভাবে মেরামত করা। রাস্তার ভিতরে যে গাছ আছে সে গুলো কেটে ফেলা। তার পর রাস্তায় CCTV স্থাপন করা,এবং সকল রাস্তায়,তার পর অংশ অংশ করে সব জায়গায় একটি ঘর করে তাতে কম্পিউটার স্থাপন করা। এবং দুই জন পুলিশ দেওয়া। ৩:)এবং প্রতি চার রাস্তা মোর তিন রাস্তা মোর দুই রাস্তা মোর সব জাগায় পুলিশ স্থাপন করা তাতে করে যারা নিদিষ্ট আইন না মেনে গাড়ি চালাই তাদের কে দরা যাবে।এবং তারা যাতে অবৈধ ভাবে গাড়ি চালাই তাদের কে ধরা যাবে। এবং পুলিশ গুলো যেন ঘুশ না খায় তাতে করে আমাদের দেশের উন্নতি ঘটবে। ৪:)এবং একটি টিম তৈরী করা যারা শুধু দূর নীতি নিয়ে কাজ করে। এবং রাস্তা ঘাট পরিস্কার করার জন্য মানুষ রাখা যারা জাইগা পরিস্কার করবে। ৫:)এবং গ্রামাঞ্চলের প্রতি টা স্কুলে যেন CCTV স্থাপন করা। যারা বাইক চালাই মাতার হেমলাইট পরে সে দিকে যেন পুলিশ যেন যেখানে দেখে তার বিরুদ্ধে আইনের ব্যবস্থা দিতেপারে। ৬:) বিশেষ করে বাংলাদেশের সরকার আমাদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া ভিতরে মধ্যে যে গ্রামগুলো আছে তাতে রাস্তা গুলো নাজেবেহাল বৃষ্টি হলে রাস্তায় দিয়ে গাড়ি চলাচল জন্য অসুবিধা হয়। ৭:) এবং আমার কোনো মাদকদ্রব্য ব্যক্তি দের কে ধরিয়ে দিতে ভয় হয়,কারণ যে কোনো মাদকদ্রব্য ব্যক্তি কে ধরিয়ে দিলে তাতে দেখা যাই এক মাস,দুই মাস,পর জামিনে চলে আসে কীভাবে তার পর দেখা যাই তার পিছনে কোনো আওয়ামীলীক কিছু নেতা থাকে। না হলে সে ধরা পরলে টাকা দিয়ে সাথে সাথে চারা পাই। তা হলে আমার কী কীভাবে ধরিয়ে দিব,তাই আমার অনুরোধ সে দিকে বাংলাদেশের সরকারের ব্যবস্থা নেওয়া। আমি কোনো আওয়ামীলীগের উদ্দেশ্যে করে বলিনাই তাদের কে যারা এই দূর্রনীতী সাথে জরিত ব্যক্তিকে। ৮:) তাতে করে আমাদের অনেক উন্নতি হবে আমার মনে হয়। আমি কাউকে উদ্দেশ্যে করে বলিনাই just কিছু অনুরোধ। আমার লেখা মাঝে ভুল হলে মাফ করিয়া দিবেন। ৯:বিশেষ করে আমাদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া,বিজয়নগর রাস্তা ভালো না। ১0: দূর্রনীতী টেকাতে সব রাস্তায় CCTV এবং পুলিশ ২৪ঘন্টা রাখা উচিৎ ভিন্ন রাস্তায় আমি মানে করি।এত এবং এই সকল ব্যবস্থা নিলে বাংলাদেশের উন্নতি হওয়া যাবে।এবং তার সাথে যারা রাজনীতি সাথে জরীত ব্যক্তি গোলো যেন না একজন অপরাধী ব্যক্তি তার কোনো ভাই,চাচা,কাকা,ছেলে বরং তাদেরকে ধরিয়া দেয় সে দিকে সরকারের ও পুলিশের নজর রাখা উচিৎ। অতএবং আমার লেখা আমাদের বাংলাদেশের কাজে লাগে তা হলে গ্রহণ করবেন। না হলে ডিলিট করে দিবেন। আমি কাউকে উদ্দেশ্যে বা আওয়ামীদের বলিনায়। (#জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু,বাংলাদেশ চিরজীবী হক,এই বতর্মান সরকারের উন্নয়ন হক এই টা আমার কামনা ) ইন্নসাল্লাআ বাংলাদেশ একদিন উন্নয়নের ১নাম্বার হবে।
Total Reply(0)
nirmol ২৬ আগস্ট, ২০১৯, ২:৪৬ এএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমরা পজেটিভ পরিবার। আমরা পজেটিভ জীবন নিয়া খুব কষ্টের মাঝে আছি। এখন আমার কোন কাজ নাই তবে একসময় আমি সেইভ দি চিলড্রেন এ কাজ করেছিলাম। তবে এখন আমরা খুব অসহায় ভাবে দিন কাটাচ্ছি ও অসুস্থ হয়ে যাচ্ছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি বাংলার ১৭ কোটি মানুষের প্রাণ।আমরা আপনাকে সবসময় সম্মান করি। আমরা/আমি আপনার কাছে, বেচে থাকার জন্য, একটি সরকারি ছোট চাকরি আবদার করছি। আমি HSC পাশ,সাল ১৯৯৯। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি আমাদের সমাজে একটু বাচার সুযোগ করিদিন। আপনি সবসময় ভাল থাকুন, খোদার কাছে এই দোয়া করি। নির্মল, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।
Total Reply(0)
nirmol ২৬ আগস্ট, ২০১৯, ২:৪৭ এএম says : 0
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমরা পজেটিভ পরিবার। আমরা পজেটিভ জীবন নিয়া খুব কষ্টের মাঝে আছি। এখন আমার কোন কাজ নাই তবে একসময় আমি সেইভ দি চিলড্রেন এ কাজ করেছিলাম। তবে এখন আমরা খুব অসহায় ভাবে দিন কাটাচ্ছি ও অসুস্থ হয়ে যাচ্ছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি বাংলার ১৭ কোটি মানুষের প্রাণ।আমরা আপনাকে সবসময় সম্মান করি। আমরা/আমি আপনার কাছে, বেচে থাকার জন্য, একটি সরকারি ছোট চাকরি আবদার করছি। আমি HSC পাশ,সাল ১৯৯৯। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি আমাদের সমাজে একটু বাচার সুযোগ করিদিন। আপনি সবসময় ভাল থাকুন, খোদার কাছে এই দোয়া করি। নির্মল, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।
Total Reply(0)
মোঃ মিজানুর রহমান ২৮ আগস্ট, ২০১৯, ৩:৫৬ পিএম says : 0
আছালামু আলাই কুম ..সরবো পতম মহান রাবুল আলামি কে শুকরিয়া জানাই যে আপনার শরীর বালো রেখেছেন আমি দুয়া করি পরম করোনাময় যেনো আপনাকে বালো রাখেন .....আপনার কারণে আজ দেশের মানুষ খুবই বালো আছে আর সুখে শান্তিতে আছে সবি আপনার অবদান আমি দেখেছি আপনি দেশের মানুষের অনেক সাহায্য সহযোগিতা করে ছেন তাই আমি আপনার কাছে আমার একটি সাহায্য সহযোগিতা চাই ছি আমার দুই মেয়ে আমি একজন রিকশা চালক রিকশা চালিয়ে জা পাই তা দিয়ে কুনো মতে চলে কিন্তু আমাদের কোনো বাড়ি ঘর নাই সারা জিবন ঘর বারা দিয়ে আর থাকতে পারছি না ডাকা শহরের ঘর ভাড়া দিয়ে মেয়ে দুটির লেখা পার খরচ আমি আর পার ছিনা আমায় একটু সাহায্য করেন মা মা গো আমি তুমার এক হতবাগা ছেলে গো মা আমার সশুর বারির থেকে মেয়ে দের একটু জায়গা দান করেছে যদি একটি ঘর করে দিতেন .... . আমি সাহায্য পারথি মিজানুর রহমান ঠিকানা ..মোঃ পুর ডাকা তুরাগ হাউজিং রোড নং (৩)
Total Reply(0)
Md. abul Bashar ৩১ আগস্ট, ২০১৯, ৪:১০ পিএম says : 0
বরাবর, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়, তেজগাঁও ঢাকা-১২১৫। বিষয়ঃ সাক্ষাতকারের জন্য আবেদন। জনাব, যথাবিহীত সম্মানপূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, আমার সালাম নিবেন, আশা করি ভাল আছেন। আমি মোঃ আবুল বাশার, পিতাঃ মোঃ নুরুল ইসলাম, মাতাঃ মোসাঃ জাহানারা বেগম, গ্রামঃ খিলপাড়া, পোঃ প্রেমনল বাজার, উপজেলাঃ লালমাই, জেলাঃ কুমিল্লা। বাংলাদেশ।....। আমি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী। আমার প্রতিবন্ধী কার্ড নং ১৯৯৬১৯৩৩২৮০০৪১৬১৫-০২। সর্বোপরি প্রতিবন্ধী স্বপক্ষের শক্তি হিসেবে ইতিহাসে বর্তমান সময়ে সবচেয়ে দেশবান্ধব সরকার কাজ করছে। নানাবিধ উন্নয়নের পাশাপাশি সরকার প্রতিবন্ধীদের জীবনের মানোন্নয়নে অনেক অবদান রাখছেন। আমি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী । বাংলাদেশ সরকার প্রতিবন্ধীদেরকে স্বীকৃতি দিয়েছেন। আজ আমি কিছু না পেও হতাশ হয়ে আছি। আমি যত দূর জানি বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে এই দেশের লক্ষ বেকার যুবকে চাকুরি প্রদান করেছেন এবং এই দেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তথ্য প্রযুক্তি খাতকে প্রাধান্য দিয়েছে। তাই আমার ইচ্ছা আমি সরকারের জন্য কাজ করি। ২০১৪ ইং সনে এইচ.এস.সি পাস করার পর আমি সরকারি চাকরির জন্য প্রতিবন্ধী কোটায় অনেক চেষ্টা করছি। কিন্তু কিছুতেই সফল হচ্ছিনা। আমার বাবা একজন রিক্রাা চালক। আমি শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়েও কম্পিউটার রক্ষনাবেক্ষনের কাজ জানি। এমতাবস্থায় আমার জীবনের প্রয়োজন এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে বেঁচে থাকার জন্য একটি স্থিতিশীল চাকরি খুবই দরকার। আমি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী হিসাবে আমাকে আমার যোগ্যতা অনুসারে যে কোন স্থানে যে কোন ধরনের চাকরি প্রদান করতে তাই মাননী প্রধানমন্ত্রী নিকট আমার আকুল আবেদন, একজন প্রতিবন্ধী হিসেবে গণ্য করে আমাকে সরকারের একটা কাজ করার সুযোগ দিবেন। অতএব মহোদয় দয়া করিয়া উপরোল্লেখিত বিষয় গুলো বিবেচনা করে আমাদের এই পরিবারটিকে স্বচ্ছতা অনায়নের লক্ষ্যে আমাকে সাক্ষাকারের মাধ্যমে দেখে একটি চাকরি প্রদানে কৃপা দৃষ্টি কামনা করছি নিবেদক (মোঃ আবুল বাশার)
Total Reply(0)
Omarfaruk ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৯:১৫ পিএম says : 0
স্যার ,আমি ওমর ফারুক বাড়ি বগুড়া সোনাতলা, গ্রাম চমারগাচা, বাবার নাম: নাজিম উদ্দীন,ছোট বেলায় মা বাবা কে হারিয়ে অন্যার বাড়িতে থেকে কোনো রকম, এইচএসসি,শেষ করে কাজ শুরু করি।বর্তমানে একটি সেলস এর কাজ করি। আমার নাই কোন বসত ভিটা। আমাকে একটা ছোট খাটো একটি চাকুরী দিতে পারেন।স্যার আপনি ভালো থাকবেন। Omarfaruk5242@gmail.com
Total Reply(0)
Parna paul ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৮:৪৬ পিএম says : 0
মাননীয় দেশনেত্রী আপনি এ দেশের জনগণের মাতা।তাই আপনাকে পৃথিবী খ্যাত পদবি "মা" বলে সমদ্ধোন করলাম।একজন মা ই পারে তার সন্তানের দুঃখ ঘোচাতে।মা আমি একটা অসহায় মেয়ে মানুষ।তাই আপনার সাহায্য প্রর্থনা করিছ।মাগো আপনার আনুকুলে আমায় একটা কাজ দিন।আমার একটা কাজের খুব দরকার।অনেক জায়গায় কাজ খুঁজেছি কিন্তু মেয়ে মানুষ বলে কেউ নিতে চায় না।পরিবারের সবাই বলে আমার নাকি ভাগ্য খারাপ।তাই আমাকে একটি কাজ যদি দিতেন তাহলে জীবনটাকে অনেক সহজ ভাবে উপেভাগ করতে পারতাম।না হলে এ জীবনটা আমার কাছে আনেক কঠিন মনে হচ্ছে।মনে হচ্ছে পৃথিবীতে আসাটাই বেকার।মাগো আপনি পারেন না এমন কিছু নেই।তাই আমার মতো অসহায় কে যদি একটু সাহায্য করেন তাহলে আমার খুব ভালো হতো।আমায় একটু সাহায্য করুন মা।আমায় একটু সাহায্য করুন মা।
Total Reply(0)
সুমন কিশোর দও ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
সব গুলো কমেন্ট পড়লাম সবাই শুধু যার য়ার নিজের আবদার এবং চাহিদা কথায় লেখলেন আপনারা কি কোন দিন ভেবে দেখেছেন শুধু আপনারাই য়ে কষ্টে আছেন তা ত নয় আপনার আমার মত বাংলাদেশ অনেক বেকার ছেলেরা আছে তারা ত কষ্ট করছে তারাও ত আমার আর আপনার মত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে আপন, শুধু আমার আর আপনার কথা ভাবলে ত দেশ চলবে না একজন সরকারের তার সব জনগণকে নিয়ে ভাবে। আর মনে রাখবেন আমরা যতটুকু কষ্ট করছি তার থেকে বেশি কষ্ট মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনা ভোগছেন, তাই আসুন আমাদের কথা না ভেবে সরকারের কথা ভাবি কিভাবে সরকারের উন্নয়ন করা য়াবে দেখবেন ১৬ কোটি মানুষের দোয়া আপনার ও একটা গতি হয়ে যাবে।
Total Reply(0)
সুমন কিশোর দও ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
সব গুলো কমেন্ট পড়লাম সবাই শুধু যার য়ার নিজের আবদার এবং চাহিদা কথায় লেখলেন আপনারা কি কোন দিন ভেবে দেখেছেন শুধু আপনারাই য়ে কষ্টে আছেন তা ত নয় আপনার আমার মত বাংলাদেশ অনেক বেকার ছেলেরা আছে তারা ত কষ্ট করছে তারাও ত আমার আর আপনার মত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কাছে আপন, শুধু আমার আর আপনার কথা ভাবলে ত দেশ চলবে না একজন সরকারের তার সব জনগণকে নিয়ে ভাবে। আর মনে রাখবেন আমরা যতটুকু কষ্ট করছি তার থেকে বেশি কষ্ট মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনা ভোগছেন, তাই আসুন আমাদের কথা না ভেবে সরকারের কথা ভাবি কিভাবে সরকারের উন্নয়ন করা য়াবে দেখবেন ১৬ কোটি মানুষের দোয়া আপনার ও একটা গতি হয়ে যাবে।
Total Reply(0)
মোঃ শেখ ফরিদ মজুমদার ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১২:২৪ এএম says : 0
আমি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী বেকার যুবক প্রধানমন্ত্রীর মোবাইল নাম্বারটা দেন উনার সাথে যোগাযোগ করতে চাই,
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন