ঢাকা, বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯, ০৬ চৈত্র ১৪২৫, ১২ রজব ১৪৪০ হিজরী।

খেলাধুলা

মাদ্রিদে ফিরছেন রোনালদো

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচ খেলতে চেনা শহরে ফিরছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। মাদ্রিদের ওয়ান্দা মেত্রোপলিতনে আজ রোনালদোর জুভেস্টাস খেলবে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে। একই সময় শালকের বিপক্ষে মাঠে নামবে পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটি।

গত মৌসুম শেষে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে নাম লেখানোর পর এবারই প্রথম স্পেনের রাজধানীতে ফিরছেন রোনালদো। দীর্ঘ নয় বছর লা লিগা দলের হয়ে খেলায় অ্যাটলেটিকোকে ভালোভাবেই চেনেন পর্তুগিজ তারকা। ৩১ ম্যাচে সাবেক চিরপ্রতিদ্ব›দ্ধী দলের বিপক্ষে ২২ গোল তার নামের পাশে। হাইভোল্টেজ এই ম্যাচে রোনালদোই তাই হতে পারেন মাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রির তুরুপের তাস।

অন্য কোন প্রতিপক্ষ হলে হয়ত এত বেশি ভাবতে হত না অ্যালেগ্রিকে। এমনিতেই যে কোন দলের সামনেই ডিয়েগো সিমিওনের অ্যাটলেটিকো কঠিন এক প্রতিপক্ষ। আর সেটা যদি হয় ইতালিয়ান কোন দলের বিপক্ষে তাহলে তো কথাই নেই। টানা নয় ম্যাচ সেরি আ দলের বিপক্ষে হারেনি অ্যাটলেটিকো, জয় ৭ ম্যাচেই, বাকি দুটি ড্র। জুভেন্টাসের বিপক্ষে টুর্নামেন্টে তাদের দেখা হয়েছে একবারই, ২০১৪/১৫ মৌসুমের গ্রæপ পর্বে। দুই লেগ থেকে অ্যাটলেটিকোর হয়ে জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেছিলেন আর্দা তুরান। তাছাড়া, ২০১৫ ও ২০১৭ সালের দুই ফাইনাল থেকে ‘তুরিনের বুড়ি’দের খালি হাতে ফিরতে হয় দুই স্প্যানিশ দল যথাক্রমে বার্সেলোনা ও রিয়ালের কাছে হেরে। এবার ফাইনালের অনেক আগেই তাদের সামনে স্পেনের তৃতীয় কঠিন দল ‘লস রোজাবø্যাঙ্কোস’রা।

অ্যাটলেটিকোর ভাগ্যও অনেকটা জুভেন্টাসের মত। ২০১৪ ও ২০১৬ সালে দুইবার ফাইনালে তাদের শিরোপাবঞ্চিত করে নগর প্রতিদ্বন্ধী রিয়াল। এবার ‘এ’ গ্রæপ থেকে তারা বরুশিয়া ডর্টমুন্ডকে গোল ব্যবধানে টপকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোলোয় উঠলেও পারফর্মান্স সন্তসজনক ছিল না গ্রিজম্যান-কস্তাদের। লিগেও তাদের সময়টা খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। টানা দুই ম্যাচ হারের পর সর্বশেষ ম্যাচে জেতে নূন্যতম গোলের ব্যবধানে। যদিও লিগে তাদের অবস্থান বার্সার পরেই।

অন্যদিকে সেরি আ লিগে প্রতাপের সঙ্গে এগিয়ে চলছে জুভেন্টাস। লিগের মাঝ পথেই ১৩ পয়েন্টে এগিয়ে জুভরা। একদিকে রোনালদো-মানজুকিচরা যে মন করেছেন মৌসুমের সর্বোচ্চ (৫৫) গোল তেমনি বোনুচ্ছি-কিয়েল্লিনিদের কল্যাণে সবচেয়ে কম (১৫) গোলও হজম করেছে তারা। ইউরোপিয়ান ফুটবলে সর্বশেষ ১৯৯৬ সালে সাফল্য পাওয়া জুভেন্টাসের শিরোপা জয়ের এবার সবচেয়ে ভালো সুযোগ বলে মনে করছেন অনেকেই। এর কারণ যে দলে রোনালদোর অন্তর্ভুক্তি তা না বললেও চলে। জুভেন্টাস ‘বুড়ো হতে চলা’ রোনালদোর পিছনে সাকুল্যে ৩৪১ মিলিয়ন ইউরো খরচ করছে তো ইউরোপ সেরা হতেই।

সঙ্গে ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন পাওলো দিবালাও। ম্যাচ নিয়ে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারের মন্তব্য, ‘অ্যাটলেটিকো রক্ষণের দিক দিয়ে শক্তিশালী এবং পাল্টা আক্রমণেও খুব ভালো। যদি আপনি রক্ষণে সচেতন না থাকেন তাহলে তাদের এমন খেলোয়াড় আছে যারা অপনাকে ধ্বংসস্তুপে ফেলে দেবে। তবে আমরাও নিজেদের শক্তি সম্পর্কে ওয়াকিবহল।’

রাতের অন্য ম্যাচে গার্দিওলার সিটি হয়ত নির্ভার হয়েই মাঠে নামবে। এর প্রধান কারণ দুই দলের সাম্প্রতিক বিপরীতমুখী ফর্ম। শেষ ৫ ম্যাচে যেখানে মাত্র একটি জয় জার্মান ক্লাব শালকের নামের পাশে সেখানে সমান ম্যাচে ৪ জয় সিটির। প্রিমিয়ার লিগে নিউক্যাসলের কাছে হারের পর চার ম্যাচে আগুয়েরো-সানেরা গোল করেছেন ১৫টি। চেলসি ও আর্সেনালের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছেন দলের আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরো। ভালো কিছুর আশা তাই করতেই পারেন কাতালান কোচ গার্দিওলা।
আজ রাতে মুখোমুকি
শালকে : ম্যান সিটি
অ্যাটলেটিকো : জুভেন্টাস
ম্যাচ শুরু রাত ২টায়, সরাসরি দেখাবে সনি টেন ১ ও ২

সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন