ঢাকা সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৬ বৈশাখ ১৪২৮, ০৬ রমজান ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বরিশালে বিআইডব্লিউটিসি’র বাণিজ্যিক কমপ্লেক্স নির্মাণ কাজ সম্পন্ন

নাছিম উল আলম : | প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

রাষ্ট্রীয় নৌ বাণিজ্য সংস্থা বিআইডব্লিউটিসি টানা ১১ বছরের প্রচেষ্টায় বরিশাল নদী বন্দর এলাকায় একটি ছয়তলা বাণিজ্যিক ভবনের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করেছে। ২০০৭ সালে তত্তাবধায়ক সরকার আমলে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) এম এ মতিন এবং বিআইডব্লিউটিসি’র তৎকালীন চেয়ারম্যান আলী কবির-এর বলিষ্ঠ পদক্ষেপের ফলে এ ভবনটি নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সে সময়ে দরপত্র আহ্বান, নির্মাণ প্রতিষ্ঠান নিয়োগসহ কার্যাদেশ প্রদানের পরে কাজ শুরু হলেও পরবর্তীতে নানা জটিলতায় ভবনটির নির্মান কাজ বন্ধ হয়ে যায়। বিআইডব্লিউটিসি ও নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের মতবিরোধ আদালত পর্যন্ত গড়ায়।
তবে সব জটিলতা কাটিয়ে ২০১৪ সালে পুনরায় ভবনটির নির্মান কাজ শুরু হয়। তবে ছয় তলা এ ভবনটির মূল নির্মাণ ব্যয় ৪ কোটি ১ লাখ থেকে বেড়ে ৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকায় উন্নীত হয়েছে। নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি অনুযায়ী ৩০ মাসে কাজ শেষ করার সময় নির্দিষ্ট থাকলেও তা সময়মত হয়নি।

অবশেষে সব প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে মাসখানেক আগে পুরো প্রকল্পটির কাজ শেষ হয়েছে। নৌ পরিবহন মন্ত্রী মো. শাহজাহান খান গত শুক্রবার বহুল প্রতিক্ষীত এ ভবনটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন। ছয় তলার এ বাণিজ্যিক কমপ্লেক্সটির প্রতিটি তলায় ৩ হাজার ৭শ’ বর্গফুট মেঝে রয়েছে। ইতোমধ্যে নিচতলাটি বিভিন্ন দোকান ও ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের কাছে ভাড়া প্রদান করা হলেও উপরের তলাগুলো এখনো খালি পড়ে আছে। লিফট সমৃদ্ধ এ ভবনটির ৬ষ্ঠ তলার অর্ধেকে একটি গেষ্ট হাউজও নির্মাণ করা হয়েছে। বিআইডবিøউটসি’র তরফ থেকে ভবনটির বিভিন্ন ফ্লোরে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের কাছে ভাড়া দেয়ার চেষ্টা চলছে বলে জানা গেছে। তবে সংস্থাটির বাণিজ্য ও কারিগিরি পরিদপ্তরের আঞ্চলিক অফিস এ ভবনে স্থানান্তর হবে কি না তা নিয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। অথচ এ ভবন নির্মানের আগে এখানের দ্বিতল ভবনে সংস্থাটির সবগুলো পরিদপ্তরের আঞ্চলিক অফিসসহ একটি গেষ্ট হাউজ ছিল। বর্তমানে যেসব স্থানে এসব দপ্তর রয়েছে তা মূল ষ্টিমার ঘাট থেকে অনেক দূরে। ফলে যাত্রীদের দুর্ভোগ ও হয়রানি বাড়ছে।

দক্ষিণাঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিআইডব্লিউটসি’র এখনো বিপুল পরিমাণ নিজস্ব জমি রয়েছে। যার বেশীরভাগই অব্যবহৃত। এসব সম্পদের সুষ্ঠু বাণিজ্যিক ব্যবহার নিশ্চিত করলে সংস্থার আয় যথেষ্ট বাড়বে। তবে অনেক জমি বেহাতও হয়ে আছে। এসব জমি পুনরুদ্ধারসহ যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করার তাগিদ দিয়েছেন ওয়াকিফহাল মহল।

যাত্রী সাধারণের তরফ থেকে সংস্থাটির বাণিজ্যিক অফিসটি সদ্য নির্মিত বাণিজ্যিক কমপ্লেক্সে স্থানান্তরসহ এখানে ব্যাংক-বীমার মত প্রতিষ্ঠানের কাছে ভাড়া প্রদানেরও দাবি জানান হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন