ঢাকা, মঙ্গলবার , ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১২ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

আড়াইহাজারে প্রতিবেশীর ধর্ষণে মাদরাসা ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা , থানায় মামলা

আড়াইহাজার ( নারায়ণগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০১৯, ৪:১৮ পিএম

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে এক লম্পট প্রতিবেশী চাচার ধর্ষণে এক মাদরাসা ছাত্রী সাড়ে ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। ফলে ওই মাদরাসা ছাত্রীকে অপারেশনের মাধ্যমে তার গর্ভের সন্তান নষ্ট করে ফেলার জন্য ধর্ষক চাপাচাপি করছে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে সোমবার রাতে আড়াইহাজার থানায় ওই প্রতিবেশীর নামে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ জানায়, উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের জোকারদিয়া নয়াপাড়া গ্রামের ওই কিশোরী (১৫) লতব্দী মহিলা মাদরাসার ছাত্রী। তার পিতা দিন মজুর এবং মাতা মালয়েশিয়া প্রবাসী। গত ৪ জানুয়ারি ওই ছাত্রীর মাদরাসা বন্ধ থাকায় সে দুপুরে বাড়ীতে ঘোরাফেরা করছিল। এ সময় একই পাড়ার মৃত: মোতালেব মিয়ার ছেলে লম্পট ইয়াসিন (৩৮) তাকে ফুসলিয়ে তার (ধর্ষকের) নির্মাণাধীন দালানের ভিতরে নিয়ে গিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে বলপূর্বক ধর্ষণ করে।

এর পর বেশ কয়েকবার ধর্ষিতাকে ভয় ভীতি দেখিয়ে একই স্থানে শারীরিক মেলা মেশা করতে বাধ্য করে। ফলে ধর্ষিতা অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। ১৭ জুন ধর্ষিতা অন্ত:স্বত্ত্বা জনিত কারণে বমি করতে থাকলে তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়া হলে ডাক্তার ধর্ষিতাকে সাড়ে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে রিপোর্ট প্রদান করেন।

পরে ধর্ষিতা তার পিতাকে ঘটনা খুলে বললে ধর্ষিতার পিতা বিষয়টি নিয়ে ধর্ষক ইয়াসিনের সাথে কথা বলে। ধর্ষক তাকে কিছু টাকা দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষিতাকে অপারেশনের মাধ্যমে তার গর্ভের সন্তান নষ্ট করে ফেলার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। ধর্ষিতার পিতা তাতে রাজী না হয়ে সোমবার রাতে আড়াইহাজার থানায় এসে ধর্ষণ মামলাটি দায়ের করে। ধর্ষক ইয়াসিন র্ধষিতার দুরসম্পর্কের চাচা হন বলে জানা গেছে। আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, আসামী গ্রেফতারের চেষ্ঠা চলছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন