ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

অর্থনীতিতে ঝুঁকি তৈরি করছে ব্যাংক খাত

সংবাদ সম্মেলনে আইএমএফ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৮ জুন, ২০১৯, ২:২৭ এএম

 বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রæত এগুচ্ছে। দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির হার সন্তোষজনক পর্যায়ে রয়েছে। অথচ দেশের ব্যাংকিং খাতে ধস অব্যাহত রয়েছে। ক্রমবর্ধমান খেলাপি ঋণ আর্থিক স্থিতিশীলতা এবং অর্থনীতিতে ঝুঁকি তৈরি করছে। এছাড়া রাজস্ব আয় বৃদ্ধি ও ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করা দেশের জন্য অন্যতম চ্যালেঞ্জ। দশদিনব্যাপী মিশন শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বৈশ্বিক দাতা সংস্থা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) প্রতিনিধি দল।

এশিয়া এবং প্যাসিফিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডাইসাকু কিহারার নেতৃত্বে আইএমএফের আর্টিক্যাল-৪ এর ছয় সদস্যবিশিষ্ট প্রতিনিধিদল ১৬-২৭ জুন পর্যন্ত ঢাকা সফর করেন। সফলকালে তারা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর, অর্থসচিব, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান ও একাধিক সংসদ সদস্যের বৈঠক করেন। সফর শেষে সংবাদ সম্মেলনের দেশের অর্থনীতির নানা দিক তুলে ধরনের ডাইসাকু কিহারা।

ডাইসাকু কিহারা বলেন, অর্থনীতি এগুলেও ব্যাংকিং খাতে ধস নামছে। ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ বেড়েই চলেছে। খেলাপি ঋণ কমাতে টাইম-বাউন্ড কর্মসূচি হাতে নিতে হবে। ব্যাংকিং সুপারভিশন বাড়াতে হবে, খেলাপিদের আইনীসহায়তা বন্ধ করতে হবে। খেলাপিদের পুনতফসিল ও পুনর্গঠন নীতিমালা আরও কঠোর করা দরকার। সর্বক্ষেত্রে সুশাসন নিশ্চিত করতে হবে। সরকারি ব্যাংকসহ সব ব্যাংকগুলোতে সংস্কারের মাধ্যমে তাদের দক্ষতা বাড়াতে হবে।

ডাইসাকু কিহারা আরও বলেন, নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর করার সিদ্ধান্ত রাজস্ব আয় বৃদ্ধির জন্য ইতিবাচক। কিন্তু মাল্টিপল রেট কার্যকর করা অনেক চ্যালেঞ্জের। এতে রাজস্ব আহরণে প্রভাব ফেলবে। রাজস্ব নীতিতে সংস্কার করতে হবে। এনবিআরের প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো আধুনিকায়ন করতে হবে। অন্যদিকে ব্যয়ের ক্ষেত্রেও সরকার সতর্ক থাকতে হবে। সরকারি বিনিয়োগে অপচয় রোধ করতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে জাতীয় পরিকল্পনার আলোকে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রæত বর্ধনশীল এতে সন্দেহ নেই। তবে অর্থনীতিতে বৈচিত্র্য আনতে হবে। ব্যবসার পরিবেশ উন্নত করতে হবে, দুর্নীতি বন্ধে পদক্ষেপ নিতে হবে। বাংলাদেশের অর্থনীতির উন্নয়নের স্বার্থে বাজেট নীতি ও মুদ্রানীতিতে যেকোন ধরনের সংস্কারে নীতিগত ও কৌশলগতভাবে সহায়তা করবে আইএমএফ।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন