ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ইসলামী বিশ্ব

কাশ্মীরের রাস্তায় বিক্ষোভ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ভারত সরকারের তীব্র দমননীতির প্রতিবাদে শুক্রবার কাশ্মীরের রাস্তায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে শত শত মানুষ। এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীদের ওপর চড়াও হয় পুলিশ। জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক গ্রীষ্মকালীন রাজধানী শ্রীনগরের প্রধান সড়কে তারা আন্দোলনকারীদের ওপর টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ ও ছররা গুলি চালাতে শুরু করে। পুলিশের গুলির মুখে অনেকে বিভিন্ন দোকানপাটের সাইনবোর্ড বা বিলবোর্ডের নিচে আশ্রয় নেন। পুলিশি অ্যাকশনের বিপরীতে এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীরাও নিরাপত্তা বাহিনীর উদ্দেশে পাথর ছুড়ে মারে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ফরাসি সংবাদমাধ্যম এএফপি। ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট অধিকৃত কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে অঞ্চলটিকে দুই টুকরো করার ঘোষণা দেয় ভারত। ওই দিন সকাল থেকে কার্যত অচলাবস্থার মধ্যে রয়েছে জম্মু-কাশ্মীর। উপত্যকার বিভিন্ন স্থানে এখনও কারফিউ বহাল রয়েছে। দোকান, স্কুল, কলেজ ও অফিস বন্ধ রাখা হয়েছে। কোনও গণপরিবহন নেই। ইন্টারনেট-মোবাইল পরিষেবাও সীমিত। সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতিসহ কাশ্মীরের শত শত রাজনৈতিক নেতাকে বন্দি রাখা হয়েছে। জনশূন্য রাস্তায় টহল দিচ্ছে সশস্ত্র সেনারা। তবে এমন পরিস্থিতির মধ্যেই ভারতে বড় ধরনের বিনিয়োগ নিয়ে আসছে সউদী আরব। কাশ্মীরকে দুই টুকরো করার ঘোষণা দেওয়ার পর শুক্রবার টানা দ্বিতীয় সপ্তাহের মতো বন্ধ ছিল উপত্যকার বেশিরভাগ মসজিদ। এদিনের বিক্ষোভে অংশ নেওয়া একজন বিক্ষোভকারী এএফপি-কে বলেন, আমরা অবরোধ ভেঙে সিটি সেন্টারের উদ্দেশে পদযাত্রার চেষ্টা করছি। কিন্তু পুলিশ আমাদের থামাতে বল প্রয়োগ করছে। এদিকে ভারতের তামিলনাড়ুর প্রভাবশালী রাজনৈতিক দল এমডিএমকের প্রধান ভাইকো বলেছেন, দেশের স্বাধীনতার শততম বার্ষিকীতে কাশ্মীর আর ভারতের অন্তর্ভুক্ত থাকবে না। জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে টালমাটাল পরিস্থিতির মধ্যেই এমডিএমকে প্রধান এমন মন্তব্য করলেন। রাজ্যসভায় ভাইকো বলেন, আপনারা (মোদি সরকার) কাশ্মীরের মানুষের ভাবাবেগ নিয়ে খেলা করছেন। যখনই ওখানে অতিরিক্ত নিরাপত্তাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল, তখনই আমার আশঙ্কা হয়েছিল। কাশ্মীরকে কসোভো, ইস্ট তিমুর বা সাউথ সুদান হতে দেওয়া যাবে না। সিএনএন, এএফপি, ডন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Yourchoice51 ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ৯:৩০ এএম says : 0
HOW CAN SUADI GOVT MAKE NEW BUSINESS WITH THE OPRESSORS? THE SAUDI KING IS TRYING TO BUY TICKET FOR JAHANNAM. MAY ALLAH ACCEPT IT.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন