ঢাকা, মঙ্গলবার , ২১ জানুয়ারী ২০২০, ০৭ মাঘ ১৪২৬, ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

রাত জেগে ক্ষেত পাহারায় কৃষকরা

বালিয়াকান্দি (রাজবাড়ী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার সদর ইউনিয়নের পাইকান্দি ভাটিপাড়া এলাকার মাঠে আগাম মুড়িকাটা পেঁয়াজ ক্ষেত রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন কৃষকরা। এই মৌসুমে বাম্পার ফলনের আশায় প্রান্তিক কৃষকদের মুুখে হাসি ফুটে উঠেছে।

পেঁয়াজ বাংলাদেশের পরিচিত ও অন্যতম একটি মসলা জাতীয় একটি ফসল। বিভিন্ন অঞ্চলের মাঠে এই ফসলের চাষ করে কৃষকরা। মুড়িকাটা পেঁয়াজের উঁচু জমির বেলে ও দোঁ-আশ মাটিতে ফলন ভালো হয়। উপজেলার সাতটি ইউনিয়নেই কম-বেশি প্রান্তিক কৃষকরা তাদের চাষের উঁচু জমিতে মুড়িকাটা পেঁয়াজের চাষ করে।

আগাম মুড়িকাটা পেঁয়াজ সাধারণত বর্ষা মৌসুমে উঁচু জমির বেলে বা দো-আঁশ মাটিতে রোপন করলে মাটি ভেদ করে গাছগুলো বেশ বড় ও হৃষ্টপুষ্ট হয়। এরপর মাটির নিচে পেঁয়াজগুলো বড় হলে দেড় থেকে দুই মাসের মধ্যে উঠাতে পারে কৃষকরা।

গত সোমবার বিকালে বালিয়াকান্দি সদর ইউনিয়নের পাইকান্দি ভাটিপাড়া গ্রামের শাহাদত শরীফের ছেলে কৃষক মো. আকিদুল শরীফ জানান, আমরা প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরেও দেড় মাস পূর্বে ১৫৪ শতাংশ উঁচু জমির দোঁ-আশ ও বেলে মাটিতে আগাম মুড়িকাটা পেঁয়াজের চাষ করেছিলাম। বর্তমান পেঁয়াজগুলো গজিয়ে ধীরে ধীরে বড় ও তরতাজা হয়ে উঠেছে এবং মাটির নিচে পেঁয়াজের গাছগুলো বড় হয়ে তোলার উপযোগী হয়ে উঠেছে। এই পেঁয়াজ এক সপ্তাহের মধ্যে ক্ষেত থেকে উঠিয়ে হাট-বাজারে পাইকারি বিক্রি করা যাবে। তবে পেঁয়াজের বাজার মূল্য বেশি হওয়ায় রাত জেগে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিতে হচ্ছে। তিনি আরো জানান, ১৫৪ শতাংশ জমির পেঁয়াজ প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতি না হলে এবং বর্তমান বাজার অনুযায়ী বিক্রয় করতে পারলে খরচ বাদে ৪ থেকে ৫ লাখ টাকা লাভ হবে বলে আশা করছি।

এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের কৃষকরা তাদের মাঠের উঁচু জমিতে দেশিয় জাতের লালতীর মুড়িকাটা পেঁয়াজের চাষ করে ভালো ফলন ও লাভবান হবেন বলে জানিয়েছেন এলাকার প্রান্তিক কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে সাড়ে ৮শ’ হেক্টর উঁচু জমিতে দেশিয় জাতের লালতীর কিং, তাহের পুরী ও বাড়ি ওয়ান মুড়িকাটা পেঁয়াজের চাষ করে প্রান্তিক কৃষকরা এ বছরে অধিক লাভে বিক্রয় করবে বলে কৃষকরা আনন্দে মুখরিত।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
সোয়েব আহমেদ ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:৪৯ এএম says : 0
এবার কৃষকদের মুখে হাসি ফুটবে
Total Reply(0)
সাদ্দাম ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:১৬ এএম says : 0
এক্ষেত্রে প্রশাসনের উচিত নিরাপত্তা দেওয়া
Total Reply(0)
রিপন ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:৪৯ এএম says : 0
দেশে আর বেশি বেশি পেঁয়াজের চাষ করতে হবে।
Total Reply(0)
সফিক আহমেদ ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:৪৬ এএম says : 1
হায়রে আমরা কোন সময় এসে পরলাম যে পেঁয়াজ খেত ও পাহাড়া দিতে হয়
Total Reply(0)
নোমান ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:৪৭ এএম says : 0
পেঁয়াজের যে দাম পাহাড়া না দিয়ে উপায় আছে ?
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন