ঢাকা, শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১২ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

সম্পাদকীয়

চিঠিপত্র

| প্রকাশের সময় : ২১ মার্চ, ২০২০, ১২:০২ এএম


কৃষকের কথা ভাবুন
এক বিঘা জমিতে সবজি চাষ করতে খরচ হয় ২০ হাজার টাকার মতো। অথচ সবজি বিক্রি করে ১৫ হাজার টাকাও উঠছে না। কৃষকের লোকসান ৫ হাজার টাকা। এই চিত্র দেশের উত্তরাঞ্চলের। তবে সব জায়গায়ই কৃষকের লোকসান হচ্ছে, একটু কমবেশি। মধ্যস্বত্বভোগীদের নিয়ে অনেক কথা হয়। তাদের নিয়ন্ত্রণ, অবৈধ মুনাফা রোধ করা হবে। অনেক দিন ধরেই এমন কথা শুনে আসছি। আজও কৃষকের দুঃখ দূর করার ব্যবস্থা হয়নি। বাড়তি আয়ের জন্য যারা সবজি চাষ করেছিলেন, তাদের অবস্থা আরও শোচনীয়। এই মৌসুমে আবার ধান বিক্রি করেও কৃষকের লাভ হয়নি। এমন হলে কৃষক বাঁচবে কীভাবে? দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কৃষিপণ্য সংরক্ষণে আধুনিক গুদাম দরকার। তাও করা হচ্ছে না। লোকসান সত্তে¡ও কৃষক হাল ছাড়েনি। তবে আর কতকাল হাল ধরে রাখতে পারবে কে জানে! এদিকে জমি কমেছে, ধানের উৎপাদন বেড়েছে। বাজার মনিটরিংয়ে যারা কাজ করেন, তারা সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করলে বাজারের এমন দশা হওয়ার কথা কি?
মুহাম্মদ শফিকুর রহমান
মিরপুর, ঢাকা।


দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর হোন
দুর্নীতিবাজ একদিকে যেমন শিক্ষাকে কলঙ্কিত করছে, অন্যদিকে দেশটাকেও কলঙ্কিত করছে। দেশের উন্নয়নেও বড় বাধা সৃষ্টি করছে। এসব দুর্নীতিবাজ দেশ, জাতি ও সমাজের শত্রু। এদের বিরুদ্ধে কঠোর হতেই হবে। দিতে হবে কঠিন শাস্তি। বিশেষ করে ব্যাংক দুর্নীতির সংখ্যা এতটাই বেড়েছে, যা কোনোভাবে থামানো যাচ্ছে না। তাই আসুন, দেশকে দুর্নীতিমুক্ত রাখতে দুর্নীতিবাজদের মুখোশ উন্মোচন করি। দুর্নীতিবাজদের সামাজিকভাবে বয়কট ও মনে-প্রাণে ঘৃণা করি। দুদককে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আরও কঠোর অবস্থান নিতে হবে।
মো. আজিনুর রহমান লিমন
ডিমলা, নীলফামারী।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন